নারায়ণগঞ্জে রাজনীতি এখন জনসেবা নয় যেন ভাগ্য পরিবর্তনের চাবি

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
জনসেবা করাই রাজনীতির মূল লক্ষ্য হলেও নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক নেতাদের দিয়ে কোন প্রকার সেবা পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ। যদিও হাতেগুনা কয়েকজন জসপ্রতিনিধি জনসেবা করলেও বাকিরা ব্যস্ত নিজেদের নিয়ে। কেউ কেউ নারায়ণগঞ্জের রাজনীতি করে নিজের ভাগ্যের পরিবর্তন করেছে। নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ ও বিএনপির শীর্ষ অনেক নেতা রয়েছেন যারা রাজনীতি করে কোটি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন। এক সময় রিক্সা যোগে চলাচল করলেও এখন চলছেন কোটি টাকার গাড়ি দিয়ে। নারায়ণগঞ্জে রাজনীতি বলতে ক্ষমতার লড়াইকে বুঝায়। রাজনীতির মূলে আছে ক্ষমতা। বর্তমানে রাজনীতিই নির্ধারণ করে কিভাবে ক্ষমতা অর্জন করা যায়, ক্ষমতা বৃদ্ধি করা যায় এবং ক্ষমতা ব্যবহার করা যায়। ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে যেই সরকার ক্ষমতায় থাকে সেই সরকার দলীয় লোকেরা নিজেদের পকের ভারি করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েন। বতর্মানে আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকায় নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের নেতারা খুব দাপটেই রয়েছেন। ঝুট সেক্টর থেকে শুরু করে হাট-ঘাট, রাস্তার টেন্ডারসহ সকল কিছু রয়েছে ক্ষমতাসীদের দখলে। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের সকল উন্নয়ণমূলক কাজের টেন্ডার পাচ্ছে তারই ঘনিষ্ট একজন। একই অবস্থা এমপিদের ক্ষেত্রে। এমপিরা তাদের নিজেদের পছন্দের লোকেরা পাচ্ছে সকল প্রকার চেন্ডার। আবার রাজনীতি করে অনেকেই যোগ্যতা না থাকলেও বিনা ভোটে হয়েছেন ইউপি চেয়ারম্যান-মেম্বার, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান-মেম্বার। কেউ আবার রাজনীতি করে বিভিন্ন সময় ভোলপাল্টে ফেলেছেন।
প্রাচীন গ্রিক থেকে আজ র্পযন্ত প্রত্যেক সমাজে রাজনীতির গুরুত্বর্পূণ প্রভাব লক্ষ করা যায়। গ্রিক দার্শনিকদের থেকে জানা যায়, রাজনীতি হলো একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ তৈরি করার প্রক্রিয়া। সাধারণ ভাষায় রাষ্ট্রপরিচালনার নিয়ম-রীতপদ্ধিতিকে রাজনীতি বলা হয়ে থাকে। অন্যকথায় রাজনীতি হলো ক্ষমতার পর্যালোচনায়। যে যতটা ক্ষমতাধর রাজনীতিতে তার অবস্থানও ততটা জোরালো। রাজনীতি হচ্ছে এমন একটি প্রক্রয়িা, যার মধ্য দিয়ে মানুষ তার রাজনতৈকি আর্দশ অনুসারে নজিরে সমাজকে বিন্যস্ত করে। শাসন ও শাসতিরে মধ্যে সর্ম্পক স্থাপতি হয় রাজনীতরি মাধ্যমেই। এরিস্টটলের মতে, ‘রাজনীতি হলো জনসবো’ তিনি আরো বলনে, “জনজীবনের বিষয়বস্তু ও গতিপথ সংক্রান্ত যৌথ সদ্ধিান্ত গ্রহণে র্সবসাধারণের অংশগ্রহণই রাজনীতির সারবস্তু।
নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ ও বিএনপির শীর্ষ নেতাদের রাজনীতি নিয়ে অনুসন্ধান করে জানাগেছে, শীর্ষ নেতারা বর্তমানে পদ-পদবী নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন। নিজেদের স্বার্থে রাজপথে আন্দোলন করছেন আবার কেউ কেউ আন্দোলনের নামে ফটোসেশন করছেন। নিজের স্বার্থ আদায় করতে দলীয় ভাবে কোন্দল সৃষ্টি করছেনও তারা। সাধারণ মানুষের জন্য নয় তারা রাজনীতি করছে নিজেরে জন্য। রাজনীতি করে তারা হয়েছেন আঙ্গুল ফলে কলাগাছ। রাস্তা সংস্কারের টেন্ডার নিয়ে তার অর্ধেক ব্যয় করে বাকি যাচ্ছে তাদের পকেটে। আর অতীতে যখন বিএনপি সরকার ক্ষমতায় ছিল তখন তারাও ব্যস্ত চিল নিজেদের উন্নয়ণ নিয়ে। সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা না করে শুধু মাত্র নিজেদের কথাই চিন্তা করেছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *