শহরে ভোগান্তির নাম কালিরবাজার

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
শহরের খানপুর থেকে স্কুলে যাবে সজীব। সকাল ৯ টায় ঘর থেকে বের হয়েছে সে। পৌছাল ৯টা ৪৫ মিনিটে। দশ মিনিটের রাস্তা পার হতে সময় লাগলো প্রায় পৌনে এক ঘন্টা। এ ভোগান্তি নিত্যদিনের। কারণ রাস্তা হকারদের দখলে থাকায় যানজট লেগেই থাকে। দীর্ঘদিন ধরে কালিরবাজার ফলপট্টির মোড় ও পুরান কোর্ট এলাকায় যানজটের মূল কারণ হকার। হাটঁতে হাটঁতে নিজেকে রাস্তার মাঝখানে আবিষ্কার করেননি এমন পথচারি নারায়ণগঞ্জ শহরে কমই পাওয়া যাবে। কালিরবাজারের ব্যস্ত সড়কের দুই পাশে বিভিন্ন পণ্য সামগ্রীর পসরা সাজিয়ে বসে থাকে এ সকল হকাররা। ফলে পথচারি এবং যানবাহন চলাচলে প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি হয়। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কতিপয় হকার নেতারা এসকল হকারদের নিয়ন্ত্রন করেন। এবং নির্দিষ্ট স্থানে বসতে দিয়ে নিয়মিত চাঁদা তোলেন। ফুটপাত বিহীন এ সড়কের বিভিন্ন জায়গায় তৈরী হওয়া গর্ত এবং খানাখন্দ যানজটের আরেক কারণ। এছাড়াও ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটের নয়টি পরিবহন কোম্পানির প্রায় পাঁচ শতাধিক বাস প্রতিদিন শহরের ভেতর দিয়ে যাওয়া-আসা করে। এগুলো ঢাকা থেকে আসার সময় চাষাঢ়া মোড় হয়ে মেট্রো সিনেমা হলের সামনে দিয়ে কালীর বাজার রোড হয়ে নৌবন্দরের সামনের টার্মিনালে গিয়ে থামে। ফলে দিনের শুরু থেকে এ সড়ক দিয়ে চলাচলকারী পথচারীরা যানজটের মুখোমুখি হন প্রতিনিয়ত। নারায়ণগঞ্জ কলেজের শিক্ষার্থী হিমেল জানান, সকাল ৯ টায় যখন ক্লাস থাকে, তখন হাতে ২০ মিনিট সময় নিয়ে বাসা থেকে বের হই। কারণ সকালের সময়ে যে পরিমান জ্যাম থাকে তাতে সময় মত ক্লাস ধরতে পারিনা। আর যানজটের সময় গাড়ির, রিক্সার হর্ন এবং বেলের শব্দে প্রচন্ড সমস্যা হয়। জেলা পুলিশ প্রশাসনের সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) মো: আব্দুর রশিদ বলেন, এ সড়কে যানজট নিরসনের জন্য টার্মিনাল ঘাট টানবাজার মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ রয়েছে। এছাড়া এ সড়কের মধ্যে পড়ে দুটি বড় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নারায়ণগঞ্জ কলেজ ও নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল। ফলে পরীক্ষার সময় যানজটের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। তখন কমিউনিটি পুলিশের সহায়তা নেয়া হয়। এছাড়া এ যানজটের স্থায়ী সমাধান করতে হলে রাস্তা আরো প্রসস্ত করতে হবে। রাস্তার উপর অবৈধ দোকানপাট সরাতে হবে। সিটি কর্পোরেশনের সিইও এহতেশামূল হক বলেন, হকারের সমস্যা নারায়ণগঞ্জের একটি বড় সমস্যা। এটা সমাধানে মেয়র আইভীর নির্দেশনায় আমরা কাজ করে যাচ্ছি। আর পুরান কোর্ট এলাকার হকারদের ব্যপারটা আমরা আমলে নিয়েছি, শীগ্রই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে। সূত্র প্রেস নারায়ণগঞ্জ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *