আজ : মঙ্গলবার: ৮ ফাল্গুন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ | ২০ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ইং | ২ জমাদিউস-সানি ১৪৩৯ হিজরী | ভোর ৫:৫৮
fevro
শিরোনাম
7

খালেদা জিয়ার রায় ঘোষনার দিন মাঠে থাকবে আওয়ামীলীগ

Badal-nj | ০২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ | ২:৩০ পূর্বাহ্ণ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
আগামী ৮ ফেব্রুয়ারী বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার রায়ের ঘোষণার দিনে নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে মাঠে থাকতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী এমপি শামীম ওসমান। ইতোমধ্যে সে ধরনের দিক নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এদিকে শামীম ওসমান মাঠে থাকলে সেটা জামায়াত ও বিএনপির জন্য হতে পারে বেশ শক্ত কিছু। সংশ্লিষ্টদের মতে, শামীম ওসমান মাঠে না থাকলে বিএনপি কিংবা জামায়াত শহরে বড় ধরনের কোন অরাজকতা ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে পারে। কিন্তু ইতোমধ্যে শামীম ওসমান ঘোষণা দিয়েছেন তিনি মাঠে থাকবেন। ৩ ফেব্রুয়ারী এ উপলক্ষ্যে সমাবেশ করতে চাইলেও শেষ দিকে এসে সেটা বাতিল করা হয়। ফলে সমাবেশ না হলেও ২০১৫ সালের ৫ জানুয়ারীর মত ৮ ফেব্রুয়ারী চাষাঢ়া, দুই নং রেল গেট, সাইনবোর্ড, শিমরাইল, পঞ্চবটির মোড়, কাঁচপুর সহ বিভিন্ন পয়েন্টে শামীম ওসমানের নির্দেশনায় নেতাকর্মীরা থাকবেন জানা গেছে। তারা সেখানে যে কোন ধরনের নৈরাজ্য প্রতিহত করবে। বিএনপির একজন নেতা জানান, রায় যদি উলটপালট কিছু ঘটে তাহলে মিছিল করার প্রচেষ্টা থাকবে। কিন্তু শামীম ওসমান মাঠে থাকলে সেটা আমাদের জন্য বেশ দুস্কর হবে। সে কারণেই আপাতত আমাদের কৌশল পাল্টাতে হবে। যুবদলের একজন নেতা জানান, পুলিশ থাকলেও সেটাকে মোকাবেলা করা যাবে। কিন্তু শামীম ওসমান থাকলে সেটাকে মোকাবেলা করাটা বেশ দুস্কর হবে। ঘোষণা করা হবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার একটি দুর্নীতি মামলার রায়। সেদিন সকাল থেকেই নারায়ণগঞ্জের রাজপথ আওয়ামী লীগের দখলে রাখার প্রচেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় নেতারাও বার বার বলে আসছেন, জনগণকে সঙ্গে নিয়েই বিএনপির নৈরাজ্য প্রতিহত করা হবে। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে শামীম ওসমান ৩ ফেব্রুয়ারী সমাবেশ আহবান করলেও সেটা পরে স্থগিত করা হয়। কিন্তু ৮ ফেব্রুয়ারি আওয়ামী লীগের প্রত্যেকটি সহযোগি সংগঠনকে মাঠে থাকার নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে। এর আগে শামীম ওসমান বলেছেন, নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ ছিল আছে ও থাকবে। এখানে অন্য কেউ কর্তৃত্ব দেখাতে পারবে না। যারা স্বপ্ন দেখছেন আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে না তারা বোকা। আগামীতে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসবে এবং শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী বানাতে হবে। তিনি বলেন, ‘অনেকে বলেন নারায়ণগঞ্জে আওয়ামী লীগ বিএনপি জামায়াত সমান। কিন্তু আমি বলবো আওয়ামী লীগের সমান কেউ হতে পারে না। যে জামায়াত বিএনপি বাসে আগুন দিয়ে মানুষ হত্যা করে অন্তত তাদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ কখনো এক হতে পারে না। যারা বিএনপি ও জামায়াতকে খুশী করে ক্ষমতার স্বাদ ভোগ করতে চান তাদের মনে রাখতে হবে এক সময়ে তারাই আপনাকে ছোবল দিবে।’ শামীম ওসমান বলেন, ‘যদি কেউ মনে করেন, পরিস্থিতি খুব নরমাল আছে, তাহলে কিন্তু আপনারা সঠিক জিনিসটা বুঝবেন না। আমার মনে হয়, আওয়ামী লীগের জন্য না, স্বাধীনতার পক্ষের, এজন্য আমরা আজকে এখানে জাতীয় পার্টিকেও ডাকছি, অন্যান্য দলের নেতাদেরও ডাকছি। সবাইকেই ডাকছি। স্বাধীনতার পক্ষে যারা আছেন, তাদের জন্য আগামী দিনটা, আগামী ছয়টা মাস, সাতটা মাস সবচেয়ে বড় কঠিন পরীক্ষার সময়। সবচেয়ে বড় কঠিন পরীক্ষা। ‘আগামীতে নারায়ণগঞ্জে বিএনপি জামায়াত নাশকতার পরিকল্পনা করছে। ওরা ওদের সর্বশক্তি নিয়োগ করবে। তারা চায় লিংক রোড, সাইনবোর্ড, কাঁচপুর দখল করতে। কারণ এসব দখল করতে পারলে এক্সপোর্ট ইমপোর্ট বন্ধ হয়ে যাবে। তারা চায় আমাকে ঘায়েল করতে। কারণ আমাকে ঘায়েল করতে পারলে তারা সফলকাম হবে। কিন্তু এটা মনে রাখতে হবে এটা নারায়ণগঞ্জ। এখানে আওয়ামীলীগের জন্ম। এখান আওয়ামী লীগ ছাড়াই কেউ টিকতে পারবে না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *