আজ : মঙ্গলবার: ১১ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪ এপ্রিল ২০১৮ ইং | ৭ শাবান ১৪৩৯ হিজরী | সকাল ৯:১৩
BADAL
শিরোনাম
ডিএনডি’র জলাবদ্ধতায় পঞ্চাশ বিঘা জমির ধান পানির নিচে-❋-আওয়ামীলীগে কোন্দল সৃষ্টিকারীদের কেন্দ্রীয় হুশিয়ারি...-❋-হকার ইস্যুতে আবারও অশান্ত হওয়ার পথে নারায়ণগঞ্জ !-❋-ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের বেহাল দশা রোদে ধুলা-বৃষ্টিতে কাদায় জনভোগান্তি-❋-লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের উন্নয়ন নিয়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুলের সাথে আলোচনা-❋-সকল মানুষেরই প্রাণের মায়া আছে :লিপি ওসমান-❋-নারায়ণগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধনীতে ডিসি : ফাস্টফুড আমাদের দেহের জন্য ক্ষতিকর-❋-সাড়ে চার কোটি টাকার মাদক ধ্বংস !-❋-মাঠে নামার প্রস্তুতিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি-❋-ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত পানি ব্যবহারের অযোগ্য ॥ সীমাহীন ভোগান্তিতে নারায়ণগঞ্জবাসী
14

স্বামীকে হারিয়ে কাঁদতে কাঁদতে চোখের জল শুকিয়ে ফেলেছে ময়না

Habibor badal | ১৬ এপ্রিল, ২০১৮ | ১:১১ পূর্বাহ্ণ

 

রূপগঞ্জ প্রতিনিধি

রূপগঞ্জ উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার বিরাব এলাকার আব্দুল মজিদ সৌদী আরবের রিয়াদে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে নিহত হয়েছেন। এ সংবাদে নিহতের বাড়িতে কান্নার শব্দে আকাশের বাতাস যেনো ভারী হয়ে ওঠেছে। নিজ সন্তানকে হারিয়ে মা জৈবুন্নেছা বার বার মুর্ছা যাচ্ছেন। বাবা আওলাদ হোসেন নির্বাক হয়ে লোকজনের দিকে চেয়ে থাকেন। কিছুই বলতে পারছেন না। স্ত্রী ময়না বেগম স্বামীকে হারিয়ে কাঁদতে কাঁদতে চোখের জল শুকিয়ে ফেলেছে। এখন আর তার চোখ থেকে পানি বের হয়না। ৬ বছরের একমাত্র মেয়ে আমেনাকে নিয়ে এখন কিভাবে তার সংসার চলবে? ধার দেনা ও সুদের উপর টাকা নিয়ে আব্দুল মজিদ পরিবারের সুখের জন্য সৌদি আরব গিয়েছিল। সেই টাকা কিভাবে শোধ করবে সেই চিন্তায় স্তব্দ হয়ে গেছে স্ত্রী ময়না। সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, কাঞ্চন পৌরসভার বিরাব লালটেক গ্রামের আওলাদ হোসেনের মেজো ছেলে আব্দুল মজিদ খান ৭ বছর আগে পার্শ্ববর্তী শিমুলিয়া এলাকার গোলজার ভূইয়া মেয়ে ময়না বেগমকে বিয়ে করেন। বর্তমানে আমেনা আক্তার নামে ৬ বছরের একটি মেয়ে আছে। সে স্থানীয় বিরাব সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণীর শিক্ষার্থী। নিজের ভিটে মাটি ছাড়া আর কিছুই নেই তাদের। একটি ছোট টিনের ঘরে পরিবার নিয়ে অভাব অনটনের মধ্যে বসবাস করতো আব্দুল মজিদ। হঠাৎ পরিবার ও নিজেকে সমাজের মধ্যে প্রতিষ্ঠিত করতে তিনি সৌদী আরব কাজের জন্য পারি জমাবেন সিদ্ধান্ত নেন। আতœীয় স্বজন, এনজিও ও প্রতিবেশীদের কাছ থেকে সুদের উপর ৪ লাখ টাকা নিয়ে চলতি বছরের ৭ জানুয়ারী পার্শ¦বর্তী পলাশ থানাধীন ডাঙ্গা কেন্দুয়াবো এলাকার নাজিমউদ্দিনের মাধ্যমে কাজের জন্য পাড়ি জমান সৌদী আরবের রিয়াদে। সেখানে প্রায় ৩ তিন কোন কাজ পাননি আব্দুল মজিদ। রিয়াদের আল নুরা ইউনির্ভাসিটি আবাসিক এলাকায় একটি ভবনে ৭/৮ জনের সাথে থাকতো সে। নিজ বাড়ী থেকে টাকা পাঠালে পেটে খাবার জুটতো তার। ১২ দিন আগে সেখানকার ইউনিভার্সিটিতে ক্লিনারে কাজ পায় সে। প্রতিদিনের মত রাতের কাজ শেষ করে গত শুক্রবার সকালে অন্যদের মত রুমে ঘুমে পড়েন সে। সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে হঠাৎ একটি গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরন ঘটে। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু বরণ করেন আব্দুল মজিদ খানসহ রুমের সবাই। দুপুরে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে একই ভবনে থাকা রাশেদ খান নামে এক যুবক আব্দুল মজিদের বড় ভাই বাছেদ আলীকে আব্দুল মজিদের মৃত্যুর খবর জানায়। এরপর থেকে নিহতের পরিবারের কান্নায় বাতাস ভারী হয়ে উঠেছে। বর্তমানে নিহত আব্দুল মজিদের লাশ রিয়াদের সিমুচি হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। লাশ দেশে আনার ব্যাপারে পরিবারের লোকজন দালালের মাধ্যমে চেষ্টা চালাচ্ছেন বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে নিহত আব্দুল মজিদের স্ত্রী ময়না বেগম বলেন, আমার স্বামীর স্বপ্ন ছিল বিদেশ গিয়ে টাকা উপার্জন করে একমাত্র আদরের মেয়ে আমেনাকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলবে। বাড়ীঘর একটু ভাল করবো। সংসারে সব কষ্ট দূর হইবো। এখন সেই স্বপ্ন স্বপ্নই রয়ে গেল। একদিকে স্বামীকে হারিয়ে ও অন্যদিকে স্বামীর ধার করা টাকা কিভাবে পরিশোধ করবে সেই চিন্তায় হতাশা ছায়া এখন তার চোখে। এদিকে পিতা আওলাদ হোসেন ছেলেকে হারিয়ে নির্বাক দৃষ্টিতে শুধু চেয়ে থাকে। নিজের ছেলের লাশ কাদে নিবেন সেই কথা মনে পড়লে কেদে জ্ঞান হারিয়ে ফেলছেন। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আবুল ফাতে মোহাম্মদ সফিকুল ইসলাম বলেন, সৌদী আরবে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরনে নিহত আব্দুল মজিদের পরিবারের খোজ খবর নিচ্ছি। লাশ দেশে আনাসহ যেকোন ব্যাপারে তার পরিবারের লোকজন কোন প্রকার সহায়তার প্রয়োজন মনে করলে অবশ্যই সহায়তা করবো।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *