উন্নয়নের মডেল মহাসড়ক এখন ডাষ্টবিনে পরিনত

সিদ্ধিরগঞ্জ প্রতিনিধি

ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের সিদ্ধিরগঞ্জের শিমরাইলমোড়ে আহসানউল্ল্যাহ সুপার মার্কেটের সামনে মহাসড়কজুড়ে ময়লা অ আবর্জনা ফেলে রাখায় পথচারীদের চলাচলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। দিনের পর দিন ময়লা আবর্জনা ও মার্কেটের গরু খাসি জবাই করা ময়লা ফেলে রাখায় দুর্গন্ধে হাঁটাচলা কষ্ট সাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন কর্মীরা এসব দেখেও না দেখার ভান করছে। শুধু শিমরাইলমোড়ের এই স্থানটিই নয় মোড়ের অনেক স্থানে এভাবে ময়লা আবর্জনার স্তুপ পড়ে আছে। এসব স্থান দিয়ে প্রতিদিনই হাজার হাজার মানুষ চলাচল করছে। পথচারীরা জানায়, আমরা এই  দুর্গন্ধযুক্ত ময়লা আবর্জনা দেখতে দেখতে অভ্যস্ত হয়ে গেছি। সিটি কর্পোরেশন এ ব্যাপারে কেন ব্যবস্থা গ্রহন করছেনা তা কারো বোধগম্য নয়। শিমরাইলমোড়ের উত্তর পাশেও এই রকম পঁচা ময়লা আবর্জনা ফেলে রাখা হলেও সে ময়লার দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ছে আশপাশে। পথচারীরা আক্ষেপ করে বলেন নাসিকের উন্নয়নের জোয়ারের এই হচ্ছে নমুনা। শিমরাইল- নারায়ণগঞ্জ সড়কের আটি এলাকায় নারায়ণগঞ্জ সড়ক বিভাগের সার্ভিসরোডের বিশাল জায়গা জুড়ে বছরের পর বছর ময়লা আবর্জনা ফেলে রাস্তাটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অথচ কোটি কোটি টাকা খরচ করে শিমরাইলমোড়ের বিদ্যুৎ অফিস থেকে আদমজী ইপিজেড পর্যন্ত সার্ভিস রোডটি রিকশাসহ ছোট যানবাহন চলাচলের জন্য নির্মাণ করা হয়। সে রাস্তাটির অস্তিত্ব নেই ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে এবং অবৈধ দখলদারদের দখলে ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠান থাকার কারণে। ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের শিমরাইলমোড়টি অনেক গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। কোটি কোটি টাকা খরচ করে মহাসড়ককে ৮ লেন করা হয়েছে। কিন্তু দুইটি লেন ময়লা আবর্জনা ফেলার কারণে যানবাহন চলাচলে যেমন সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে তেমনি জনসাধারণ চলাচল করতে গিয়ে রীতিমতো প্রতিদিনই বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে। মার্কেট মালিকদের অবহেলার কারণে প্রতিদিনই মহাসড়কে ময়লার স্তুপ ফেলে রাখে মার্কেটের দোকানীরা। নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের সাইনবোর্ডে এসে শিমরাইল- আদমজীর সার্ভিস রোডটি উদ্ধারের জন্য নির্দেশ দিলেও বাস্তবে কাজ হয়নি। ওই সড়কের দায়িত্বে থাকা নারায়ণগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী আসফিয়া আদমজী সড়কের ময়লা আবর্জনা ও অবৈধ দখলদারদের কাছ থেকে সওজের সার্ভিস রোডটি উদ্ধারের জন্য বলা হলেও অধ্যাবধি তিনি প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহন করেননি। অবিলম্বে ময়লা আবর্জনা পরিস্কার করে যানবাহন ও জনসাধারন চলাচলের পথ সুগম করার দাবি জানিয়েছেন সিদ্ধিরগঞ্জবাসী।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *