চাপাবাজির রাজনীতি মানুষ পছন্দ করে না :এমপি খোকা

 

 

সোনারগাঁ প্রতিনিধি

সোনারগাঁ আসনের সংসদ সদস্য ও জাতীয় পার্টির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব লিয়াকত হোসেন খোকা গতকাল মঙ্গলবার উপজেলার ৪৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নবনির্মিত ৪৮টি ওয়াশ ব্লক আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেছেন। পৌরসভার ঐতিহ্যবাহী ভট্টপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা বলেন, যুগের সাথে তাল মিলিয়ে মানুষ এখন অনেক এগিয়েছে। তারা এখন জনপ্রতিনিধিদের কাছ থেকে কাজ দেখতে চায়। তাই চাপাবাজির রাজনীতি এখন আর চলে না। অথচ সোনারগাঁয়ে কিছু নেতাকে দেখা যায় যাদের রাজনীতির মূল চালানই হলো চাপাবাজি। এমপি খোকা বলেন, আমি ৩৬ বছর যাবত লোভ-লালসা ত্যাগ করে উন্নয়ণ ও জনসেবার নীতিকে আঁকড়ে ধরে দেশ গড়ার রাজনীতি করে যাচ্ছি। আমার কাছে চাপাবাজির কোন স্থান নেই। আমি এমপি হওয়ার পর সর্বপ্রথম সোনারগাঁয়ের মানুষ কি কি সমস্যায় আছে তা খুঁজে বেরিয়েছি। তখন আমি দেখলাম সোনারগাঁয়ের ১১৩টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মধ্যে ৩১টি বিদ্যালয়ের ভবনের অবস্থা খুবই খারাপ। যেখানে আমার কোমলমতি সন্তানরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে লেখাপড়া করছে। তা দেখার পর আমার চোখে পানি এসে পড়েছিলো। তখন আমি বিলম্ব না করে ছুটে যাই প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী মহোদয়ের কাছে। এরপর তাকে সোনারগাঁয়ে এনে ভিডিও চিত্রের মাধ্যমে সেই ভবনগুলোর দুর্দাশার চিত্র তার সামনে তুলে ধরি। তখন তিনি প্রশ্ন তুলে বলেছিলেন, ‘এই ভবনগুলো তো আর ছয় মাসে নষ্ট হয়নি। তাহলে আগের এমপিরা কি করেছে?’ পরে তিনি ৩১টি বিদ্যালয়ের জন্য নতুন ভবন অনুমোদন করেন। এছাড়া বাকি স্কুলগুলোর পুরাতন ভবনের সংস্কার করা হয়েছে এবং আরো নতুন ভবনের জন্য আবেদন করা হয়েছে।  এমপি খোকা আরো বলেন, আজ উপজেলার ৪৮টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ওয়াশ ব্লকের উদ্বোধন করা হলো। এছাড়া খুব শীঘ্রই আরো ২২টি স্কুলে ওয়াশ ব্লকের কাজ শুরু হবে। তিনি বলেন, আমি সোনারগাঁয়ের শতভাগ স্কুলে পানির ব্যবস্থা করেছি। নুনেরটেকের দুটি স্কুল ছাড়া বাকি সকল স্কুলে বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে নুনেরটেকেও বিদ্যুৎ পৌঁছে যাবে। তখন ওই দুটি স্কুলও বৈদ্যুতিক সুবিধা পাবে। উপজেলা জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরামের প্রশংসা করে এমপি খোকা বলেন, সোনারগাঁ পৌরসভার মেয়র ও কাউন্সিলরবৃন্দ এবং ইউনিয়ন পরিষদের অধিকাংশ চেয়ারম্যান ও মেম্বারবৃন্দ উন্নয়ণবান্ধব। তারা মানুষের পাশে থেকে উন্নয়ণ করতে চায়। তাই তাদের মত উপজেলার প্রতিটি মানুষ যদি নিজ নিজ অবস্থানে থেকে ভালো কাজ শুরু করে তাহলে সোনারগাঁয়ের একটি মডেল উপজেলা হওয়া শুধু সময়ের ব্যাপার হবে মাত্র। অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহীনুর ইসলামের সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- নারায়ণগঞ্জ জেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মাহমুদুর রশীদ মজুমদার, সোনারগাঁ উপজেলা জনস্বাস্থ্য প্রকৌশলী মো. নাজমুল হাছান, সহকারি প্রকৌশলী গোলাম মোস্তফা ভূঞা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা নিখিল চন্দ্র বিশ^াস, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান নাসিমা আক্তার, পৌরসভার মেয়র সাদেকুর রহমান ভূঁইয়া, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সুলতান আহমেদ মোল্লা বাদশা,  বারদী ইউপি চেয়ারম্যান ও উপজেলা জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরামের সাধারণ সম্পাদক জহিরুল হক, শম্ভুপুরা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রউফ, নোয়াগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান ইউসুফ দেওয়ান, বৈদ্যেরবাজার ইউপি চেয়ারম্যান ডা. আব্দুর রউফ, উপজেলা শিক্ষা কমিটির সদস্য ও ভট্টপুর মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আবু নাইম ইকবাল, উপজেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি শফিকুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন প্রমূখ। ভট্টপুর মডেল সপ্রাবি’র প্রধান শিক্ষক বি.আর বিলকিসের সঞ্চালনায় এসময় উপজেলা জনপ্রতিনিধি ঐক্য ফোরাম, উপজেলা জাতীয় পার্টি ও আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, অভিভাবক ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *