সোমবার, ২৩ জুলাই ২০১৮ ইং, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী, বিকাল ৩:২৯

শিরোনাম

‘ব্যক্তিত্ব বিকাশের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক আলোচনা        দুই ব্যবসায়ীকে যেভাবে সাত টুকরো করেছে পিন্টু        জগন্নাথ ঠাকুর বাড়ি ফিরলেন        আজাদ বিশ্বাসের উপর  পুলিশের অনেক বিশ্বাস!        যে নেতারা লাঙ্গলে ভোট দিয়েছে সামনে তারা কিসে ভোট দিবেন?        অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে  রুখে দাঁড়াতে হবে : আইভী        আড়াইহাজার পৌর নির্বাচনে জেলা বিএনপির নেতাদের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন        স্বপন হত্যায় আদালতে ঘাতক পিন্টুর জবানবন্দী       

নারায়ণগঞ্জে নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হতাশ!

Badal-nj | ০৪ জুলাই, ২০১৮ | ১২:৩০ অপরাহ্ণ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আগামী নির্বাচনে মনোনয়ন লাভের আশায় নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগের নৌকা প্রত্যাশী একাধিক প্রার্থী রয়েছে মাঠে। নির্বাচনের মনোনয়ন লাভের আশায় অধিকাংশ প্রার্থী এলাকায় না থেকে কেন্দ্রে দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন। নৌকা প্রত্যাশীরা নিজেদের সমর্থন ভারি করতে তৃনমূলের দ্বারস্থ হচ্ছেন। কারণ সম্প্রতি আওয়ামীলীগ সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তৃনমূলের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়ার কারণে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা এখন কেন্দ্রে লবিং গ্রুপিংয়ের পাশাপাশি তৃনমূলের নেতা-কর্মীদের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছে। আগামী নির্বাচনে আওয়ামীলীগ মহজোটের মাধ্যমে নির্বাচনে অংশ নিবেন এ কারণে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী কেউ কেউ ইতিমধ্যে হতাশ হয়ে পড়েছেন। নারায়ণগঞ্জের ২টি আসনে মহাজোটের অংশীদার জাতীয়পার্টির প্রার্থী থাকছে এমন কারণে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে হতাশা নেমে এসেছে। যে কারণে অনেকেই ঘোষণা দিয়ে মাঠে তৎপর নন। এমনকি নেতা-কর্মীদের সাথেও ক্ষমতাসীন দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের যোগাযোগ এখন আর আগের মতো নেই বলে দলের একাধিক নেতা-কর্মী দাবি করেছে। ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলের নেতাকর্মীরা নৌকা প্রতীকের মনোনয়ন দাবি করে রব তুলেছে। আর মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নৌকা প্রতীকের দাবিতে বিভিন্ন কর্মসূচি সহ নানা ধরণের বক্তব্য দিয়ে কর্মী গুছিয়ে নেয়ার কাজ সম্পন্ন করছে। আওয়ামীলীগের একই আসনে একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছে। তবে এ আসনে জাতীয় পার্টিতে মনোনয়ন প্রত্যাশীর সংখ্যা একেবারেই কম। সদর-বন্দর আসনের জাতীয় পার্টির নেতা ও এমপি সেলিম ওসমান নির্বাচন করবেন কিনা তা এখনো স্পষ্ট করেননি। তিনি রাজনীতি থেকে উন্নয়নকে বেশি প্রাধান্য দিয়ে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছেন। এছাড়া মনোনয়ন ইস্যুতে এখনো তিনি নির্বাচন করার দাবি না করে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। এতে সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ‘তিনি বেশ সুকৌশলে উন্নয়নের মধ্য দিয়ে এক ঢিলে দুই পাখি মারতে চাইছেন। মনোনয়ন ইস্যুতে দাবি না তুলে উন্নয়নের কথা বলে একদিকে জনপ্রিয়তা কুড়াতে সক্ষম হবে। অন্যদিকে জনপ্রিয়তা আর উন্নয়নের মধ্য দিয়ে মনোনয়নের টিকেটও হাসিল হয়ে যাবে। তিনি এই আসনে শিক্ষাখাতে উন্নয়নের ব্যাপক ভূমিকা পালন করেন। এছাড়া নবীগঞ্জ ফেরী ও শীতলক্ষা সেতু নিয়ে তার ব্যাপক তোড়জোর তাকে বেশ আলোচিত স্থানে বসিয়েছে। তবে কোন এলাকার দুর্ভোগ কিংবা সমস্যার চিত্র দেখা দিলে তাৎক্ষনিকভাবে পদক্ষেপ নেয়ার ফলে এই নেতা জনপ্রিয়তার শীর্ষে অবস্থান করছেন।’ ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনে এমপি শামীম ওসমান আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাশা করে একেবারে নিশ্চুপ রয়েছেন। ইতোমধ্যে ডিএনডির মেগা প্রজেক্ট ও লিংক রোডের সংস্কার কাজের মধ্য দিয়ে বেশ প্রশংসা কুড়িয়েছেন। এছাড়া সম্প্রতি হকার ইস্যু ছাড়া আর কোন ইস্যুতে বিতর্কে জড়ানটি এই নেতা। এখন তিনি বিভিন্ন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে নৌকা ও প্রধানমন্ত্রীর গুণকীর্তন করে যাচ্ছেন। তবে নিজের জন্য দোয়া ছাড়া আর কিছু চাইতে দেখা যাচ্ছেনা। তাই ডাকসাইটে থাকা এই নেতা ডার্ক হর্সের মত বেশ সুকৌশলে মনোনয়ন বাগিয়ে নিবেন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা। সোনারগাঁ আসনে লিয়াকত হোসেন খোকা জাতীয় পার্টির লাঙল প্রতীকে নির্বাচন করার প্রত্যয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করছেন। এই নেতা তার আসনের যানজট নিরসনে নিজে সড়কে নেমে যানজটমুক্ত শহর উপহার দেয়ার নজির স্থাপনের মধ্য দিয়ে বেশ আলোচিত হয়েছে। এছাড়া কোন রকমের বিতর্কে না জড়িয়ে নিজ এলাকার কর্মকা- নিয়ে তিনি বেশি ব্যস্ত সময় পার করছেন। মনোনয়ন ইস্যুতে এই আসনে ওসমান পরিবারের আরেক সদস্য ও জাতীয় পার্টি নেতা এমপি সেলিম ওসমান সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী হওয়ার ফলে কিছুদিন আগে তার বিরোধীতা করে বক্তব্য দিয়েছেন । তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় পার্টিকে বন্ধু বলে সম্মোধন করে তাদের নিয়ে আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে নিজ দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সমালোচনা করা থেকে বিরত থাকা কঠোর হুশিয়ারী উচ্চারণ করেছে। তবে কেন্দ্রের এমন হুশিয়ারীর পর থেকে এই নেতা অনেকটা নিশ্চুপ রয়েছে। এদিকে মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা সদর-বন্দর আসন থেকে নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন। তিনি বিভিন্ন সভা-সমাবেশে প্রভাবশালী দুই বলয়ের (ওসমান ও আইভী) পক্ষ না নিয়ে ঢালাওভাবে বক্তব্য দিয়ে আসছেন। যদিও তিনি কোন পক্ষ না নিলেও অধিকাংশ সময়ে ওসমান বলয়ের বিষোধগারে বেশি ব্যস্ত দেখা গেছে। তিনি বলেছেন, ‘আমরা লাঙলের ভারে ক্লান্ত হয়ে পড়েছি। বন্দরবাসী আর এই ভার বহন করতে চায় না। আমরা আগামী সংসদ নির্বাচনে নারায়ণগঞ্জের ৫টি আসনেই নৌকা দেখতে চাই। সদর-বন্দর আসনে আমি নিজেও নমিনেশন চাইবো। প্রার্থীতা পাই আর না পাই নৌকার জন্য সংগ্রাম করেই যাবো।’ তবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মহাজোট নিয়ে নির্বাচনের অংশগ্রহণের সিদ্ধান্তের পরে এই নেতারা তার বক্তব্যে অনেকটা সংযত হয়েছেন। সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ানও একই আসনে নির্বাচন করার আশাবাদ ব্যক্ত করছেন। এই নেতা একইভাবে জাতীয় পার্টির মনোনয়ন ঠেকাতে নানা বক্তব্য দিয়ে আসছেন। তবে মনোনয়ন ইস্যুতে বিশাল শো-ডাউন সহ বন্দরের বিরাট ইফতার মাহফিলের মধ্য দিয়ে এই নেতা আলোচনায় উঠে আসছে। এছাড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে সহায়তার মধ্য দিয়ে জনপ্রিয়তা কুড়িয়ে মনোনয়ন হাসিল করতে চাইছেন। আওয়ামীলীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য ও আইনজীবি সমিতির সাবেক সভাপতি আনিসুর রহমান দিপু একই আসন থেকে মনোনয়ন প্রাপ্তিতে বেশ সরব রয়েছেন। তবে এই নেতার প্রভাবশালী ওসমান ও আইভী এই দুই মেরু থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে একাই মনোনয়ন প্রাপ্তিতে কাজ করে যাচ্ছেন।  জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আরজু রহমান ভূঁইয়া প্রথম থেকেই এই আসন থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশা করে আসছেন। তিনি বিভিন্ন সভা-সমাবেশে তার নৌকার দাবি তুলে বিভিন্ন বক্তব্য দিয়ে আসছেন। এই নেতা প্রায় ৫০ টি উঠান বৈঠক করে গণসংযোগের মধ্য দিয়ে মনোনয়নের টিকিট হাসিলের চেষ্টা করছেন। অবস্থাদৃষ্টে মনে হচ্ছে নারায়ণগঞ্জের সদর-বন্দর আসনে শেষ পর্যন্ত জোটবদ্ধ নির্বাচনের স্বার্থে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারায়ণগঞ্জের একাধিক আসন ছাড় দিবেন এমন বার্তা ক্ষমতাসীন দলের অনেকের কাছে পৌছেছে বলে তারা মনোনয়নের ব্যপারে হঠাৎ করে অনেকটাই নিশ্চুপ হয়ে গেছেন।

Copyright © Dundeebarta.com. ওয়েব ডিজাইন: মো: নাসির উদ্দিন, বন্দর, নারায়ণগঞ্জ। ০১৭১২৫৭৪৯৯০