সোমবার, ২৩ জুলাই ২০১৮ ইং, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী, বিকাল ৩:২৮

শিরোনাম

‘ব্যক্তিত্ব বিকাশের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক আলোচনা        দুই ব্যবসায়ীকে যেভাবে সাত টুকরো করেছে পিন্টু        জগন্নাথ ঠাকুর বাড়ি ফিরলেন        আজাদ বিশ্বাসের উপর  পুলিশের অনেক বিশ্বাস!        যে নেতারা লাঙ্গলে ভোট দিয়েছে সামনে তারা কিসে ভোট দিবেন?        অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে  রুখে দাঁড়াতে হবে : আইভী        আড়াইহাজার পৌর নির্বাচনে জেলা বিএনপির নেতাদের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন        স্বপন হত্যায় আদালতে ঘাতক পিন্টুর জবানবন্দী       

সৈনিক লীগের কমিটি নিয়ে তোপের মুখে হাই ও বাদল

Badal-nj | ০৪ জুলাই, ২০১৮ | ১২:৪২ অপরাহ্ণ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আবারো নারায়ণগঞ্জের আওয়ামীলীগে পাল্টাপাল্টি কমিটি গঠন করা হলো। আর এ পাল্টা কমিটি গঠনের মাধ্যমে জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও শহীদ বাদল এখন স্থানীয় আওয়ামীলীগের দুই এমপির মুখোমুখি। তবে আব্দুল হাই বলেছেন, বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগ আওয়ামীলীগের কোন অঙ্গ সহযোগী সংগঠন নয়। তাই এই কমিটি গঠনে আওয়ামীলীগের সুপারিশ করার সুযোগ নেই। আর পাল্টাপাল্টি কমিটি গঠনের বিষয়েও আমি জানি না। তবে এর আগে সভাপতি ও সেক্রেটারি দাবিদার জসিমউদ্দীন ও পরেশ চৌধুরী জেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারি শহীদ বাদলের ঘনিষ্ঠ কর্মী হিসেবে রাজনীতি করছেন বলেও জানাগেছে। জানা গেছে, এবার নারায়ণগঞ্জে জেলা বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের পাল্টাপাল্টি কমিটি গঠন করা হয়েছে। পাল্টা কমিটিতে রয়েছেন রূপগঞ্জ আসনের এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী বীর প্রতীক ও আড়াইহাজার আসনের এমপি নজরুল ইসলাম বাবুর লোকজন। তবে এর আগেই ৭১ সদস্য বিশিষ্ট আরেকটি কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির সভাপতি জসিমউদ্দীন ও সেক্রেটারি পরেশ চৌধুরী জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সেক্রেটারি আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদলকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতেও দেখা গেছে। নেতাকর্মীদের সূত্রে জানা গেছে, গত মে মাসে জসিমউদ্দীনকে সভাপতি ও পরেশ চৌধুরীকে সেক্রেটারি করে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ কাশেম ও সেক্রেটারি জিএইচএম কাজল নারায়ণগঞ্জে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি ঘোষণা করেন। ওই কমিটি গঠনের পর জসিমউদ্দীন ও পরেশ চৌধুরী জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ দুই নেতাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানালে তারাও এ কমিটিতে অভিনন্দন জানান। তবে এদিকে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মোহাম্মদ  কাশেম সংগঠনের পদ থেকে অব্যাহতি নিলে কমিটিতে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি হন শিল্পপতি হারুন উর রশিদ। এদিকে গত ১ জুলাই নারায়ণগঞ্জে ২১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেন কেন্দ্রীয় কমিটির আরেক সভাপতি দাবিদার অধ্যাপক কামরুল ইসলাম ও সেক্রেটারি ওয়াদুদ মিয়া। এ কমিটিতে অ্যাডভোকেট আব্দুল্লাহ রোমেল মোল্লাকে আহ্বায়ক করা হয়। তিনি এমপি নজরুল ইসলাম বাবুর খালাতো ভাই। কমিটিতে যুগ্ম আহ্বায়ক হিসেবে রয়েছেন নুরুল হক, অ্যাডভোকেট মামুন সিরাজুল মজিদ,  মির্জা মোহাম্মদ আবু তাহের, অ্যাডভোকেট স্বপন ভুইয়া, স্বরূপ সাহা ও সদস্য সচিব কা হয় মাসুম রানাকে। এদের মধ্যে স্বপন ভুইয়া হলেন এমপি গোলাম দস্তগীর গাজীর লোক। এ কমিটিতে সদস্য হিসেবে রয়েছেন নজরুল ইসলাম বাবুর ভগ্নিপতি এটি ফজলে রাব্বিও। এছাড়াও সদস্য পদে আরো রয়েছেন সোহেল রানা, অ্যাডভোকেট সোহেল আজাদ, অ্যাডভোকেট আব্দুুর রহিম, রাসেল ভুইয়া, শেখ মোহাম্মদ জসিমউদ্দীন, নূর মোহাম্মদ শেখ, শাহজালাল মিয়া, আজিজুল হাকিম, রাকিব, জিল্লুর রহমান, ইসলাম হোসেন পলু ও খোরশেদ আলম। তবে আগের কমিটির সভুাপতি জসিমউদ্দীন ও সাধারণ সম্পাদক পরেশ চৌধুরী দাবি করেছেন, আমাদের কমিটি বৈধ। অন্য কেউ কমিটি দিলে সেটা বৈধ না। আমাদের কমিটিতে জেলা আওয়ামীলীগের সুপারিশ রয়েছে। আমরা কমিটি গঠনের পর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সেক্রেটারিকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানিয়েছি। নিয়মিত জেলা আওয়ামীলীগের কর্মসূচিগুলোতে অংশগ্রহণ করছি। সুতরাং কেউ ধরে বসে কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি সেক্রেটারি দাবি করে নারায়ণগঞ্জে কমিটি ঘোষণা করলেই সেটা বৈধ হয়ে যাবে না। তাই এ বিষয়ে নেতাকর্মীরা বিব্রত হবে না। তবে অপর কমিটির আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট আবদুল্লাহ রোমেল মোল্লা বলেন, আমাদের কমিটিই বৈধ কমিটি। আমাদের কেন্দ্রীয় কমিটি নারায়ণগঞ্জে ২১ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি গঠন করেছে। সুতরাং অন্য কেউ বঙ্গবন্ধু সৈনিক লীগের কমিটির সভাপতি সেক্রেটারি দাবি করলেও হবে না। তারা ভুয়া।

Copyright © Dundeebarta.com. ওয়েব ডিজাইন: মো: নাসির উদ্দিন, বন্দর, নারায়ণগঞ্জ। ০১৭১২৫৭৪৯৯০