সোমবার, ২৩ জুলাই ২০১৮ ইং, ৮ শ্রাবণ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৯ জিলক্বদ ১৪৩৯ হিজরী, বিকাল ৩:৩৩

শিরোনাম

‘ব্যক্তিত্ব বিকাশের প্রয়োজনীয়তা’ শীর্ষক আলোচনা        দুই ব্যবসায়ীকে যেভাবে সাত টুকরো করেছে পিন্টু        জগন্নাথ ঠাকুর বাড়ি ফিরলেন        আজাদ বিশ্বাসের উপর  পুলিশের অনেক বিশ্বাস!        যে নেতারা লাঙ্গলে ভোট দিয়েছে সামনে তারা কিসে ভোট দিবেন?        অন্যায় অবিচারের বিরুদ্ধে  রুখে দাঁড়াতে হবে : আইভী        আড়াইহাজার পৌর নির্বাচনে জেলা বিএনপির নেতাদের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন        স্বপন হত্যায় আদালতে ঘাতক পিন্টুর জবানবন্দী       

পুরনো অবস্থায় ফিরে এসেছে নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ড

Badal-nj | ১৮ জুলাই, ২০১৮ | ৩:২৮ পূর্বাহ্ণ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

গেল এক দশক ধরেই আলোচিত ছিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১৮নং ওয়ার্ডে অবস্থিত পাইকারী ব্যবসাকেন্দ্র নিতাইগঞ্জের ট্রাকস্ট্যান্ডটি। ওয়ান ইলেভেনের পর বিগত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ডটি উচ্ছেদের পরে আবারো বহাল হওয়ার পরে নানান ঘটন অঘটনে আলোচিত ছিল ট্রাকস্ট্যান্ডটি। বিশেষ করে নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ডটি উচ্ছেদ নিয়ে বরাবরই সোচ্চার থাকা মেয়র আইভীকে হত্যাচেষ্টার ঘটনায় ছিল আলোচিত। এক বছর আগে সদর-বন্দর আসনের সংসদ সদস্য, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন, নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন, ব্যবসায়ী ও শ্রমিকদের সমন্বিত উদ্যোগে শৃঙ্খলায় এসেছিল আলোচিত নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ড। তবে বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবারো বিশৃঙ্খলা নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ডটি। বরং আগে নির্দিষ্ট একটি সড়কে অর্থাৎ নিতাইগঞ্জের মূল সড়কে লোড আনলোড চললেও বর্তমানে ১৮নং ওয়ার্ডের পাড়া মহল্লার সড়কেও বিস্তৃত হয়ে পড়েছে নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ড। সর্বত্রই অবাধে চাঁদাবাজি চললেও দেখার যেন কেউই নেই। সরেজমিনে দেখা গেছে, নিতাইগঞ্জে প্রবেশের শুরুতে মন্ডলপাড়া পুল থেকে বায়ের দিকে যে সড়কটি গেছে অর্থাৎ নিমতলী সড়কটিতে অসংখ্য ট্রাক, মিনিট্রাক ও মিনি কাভার্ডভ্যান পার্কিং করে রাখা হয়েছে। একইভাবে বঙ্গবন্ধু সড়কেও অসংখ্য ট্রাক পার্কিং করে রাখা হয়েছে। কয়েকটি ট্রাক থেকে লোড আনলোডও করা হচ্ছে। নিতাইগঞ্জ ডালপট্টি এলাকার ভেতরেও অসংখ্য ট্রাক পার্কিং করে লোড আনলোড চলছিল। এছাড়া ১৮নং ওয়ার্ডের শীতলক্ষ্যা পুল মোড়ে সুলতান গিয়াসউদ্দিন সড়ক (এসজি রোড) ও শহীদ বাপ্পী স্মরণীতেও মিনি ট্রাকস্ট্যান্ড বানানো হয়েছে। উভয় সড়কেই কমপক্ষে ৩০টি ট্রাক পার্কিং করে রাখা হয়েছিল। লোড আনলোড নিয়ন্ত্রন ও চাঁদা আদায়ের জন্য ৪ জন যুবক নিয়োজিত রয়েছেন যাদেরকে সকলেই স্থানীয় কাউন্সিলরের অনুগামী হিসেবেই চেনে। তারা হলেন স্বপন, রাজু, শফিকুল ও রতন প্রধান। তারা ট্রাক প্রতি ৩০০ টাকা এবং লোড আনলোড বাবদ ব্যবসায়ীদের থেকে ২০০ টাকা করে নিচ্ছেন। এই দু’টি সড়কে প্রতিদিন কমপক্ষে ১০০টি ট্রাক থেকে লোড আনলোড করা হচ্ছে। দুই বছর আগে নারায়ণগঞ্জ শহরের পাইকারী ব্যবসাকেন্দ্র হিসেবে পরিচিত নিতাইগঞ্জের অবৈথ ট্রাকস্ট্যান্ড উচ্ছেদের বিষয়ে হাইকোর্টে একটি রিট দায়ের করেছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। ওই রিট দায়েরের পরে হাইকোর্ট নির্দেশনা দিয়েছিল ১০ দিনের মধ্যে অবৈধ ট্রাকস্ট্যান্ড অপসারণের। তবে হাইকোর্টের ওই নির্দেশনা বাস্তবায়ন হতে সময় লেগেছিল প্রায় ১০ মাস। গেল বছরের আগষ্টের শুরুতে সমন্বিতভাবেই নিতাইগঞ্জ ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদ করে লোড আনলোড প্রক্রিয়াকে একটি শৃঙ্খলার মধ্যে আনা হলেও ১০ মাসের ব্যবধানে আবারো স্বরূপে ফিরেছে নিতাইগঞ্জ ট্রাকস্ট্যান্ড। আগের মতোই প্রধান সড়কগুলোতে পণ্যবাহী ট্রাক পার্কিং করে লোড আনলোড যেমন চলছে তেমনি একাধিক সারি করে ট্রাক কাভার্ডভ্যান ও মিনি পিকআপ পার্কিং করেও রাখা হচ্ছে। তবে এবার নতুন করে শীতলক্ষ্যা মোড় ও শহীদ বাপ্পী স্মরণী এলাকায় মিনি ট্রাকস্ট্যান্ড বানানো হয়েছে। সেখান থেকে দৈনিক ৩০ হাজার টাকা চাঁদা আদায় করা হচ্ছে বলে অভিযোগও রয়েছে। জানা গেছে, ২০১৬ সালের ২১ নভেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) এলাকায় গড়ে উঠা অবৈধ ট্রাক স্ট্যান্ড ১০ দিনের মধ্যে অপসারণের নির্দেশ দেন হাইকোর্ট। একই সঙ্গে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারসহ সংশ্লিষ্ট বিবাদীদের এই নির্দেশনা কার্যকর করতে বলেন হাইকোর্টের বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ। ম-লপাড়া থেকে নিতাইগঞ্জসহ বৈধ স্ট্যান্ডের বাইরে অসংখ্য ট্রাক স্ট্যান্ড উচ্ছেদে ২০১৫ সালের ২৮ ডিসেম্বর নাসিক প্রশাসনকে চিঠি দেয়া দেয়। কিন্তু সিটি কর্পোরেশনের নোটিশের জবাব না দেয়ায় হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। আদালতে নাসিকের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার নুর-উস সাদিক। তাকে সহযোগিতা করেন সাইফুজ্জামান তুহিন। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন সাজু। এদিকে ২০১৭ সালের ২৩ জুলাই নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের বাজেট অনুষ্ঠানে বক্তৃতায় এমপি সেলিম ওসমানের দৃষ্টি আকর্ষণ করে শহরের নিতাইগঞ্জে ট্রাক স্ট্যান্ড উঠানো ও ফুটপাত হকারমুক্ত রাখার দাবী করেন সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী। তিনি বলেন, এমপি সেলিম ওসমান চাইলেই নিতাইগঞ্জ এলাকাটি স্ট্যান্ডমুক্ত রাখতে পারে। কারণ এসব ট্রাকের কারণে প্রচন্ড যানজট সৃষ্টি হচ্ছে। তাছাড়া সিটি করপোরেশনের নগর ভবনও অবরুদ্ধ হয়ে যায় যানজটের কারণে। এর পরিপ্রেক্ষিতে সেলিম ওসমান ব্যবসায়ীদের উদ্দেশ্যে দিনের বেলায় ট্রাক না রাখার নির্দেশনা দেন। দিনের বেলায় ট্রাক রাখতে না পারলে প্রয়োজনে ব্যবসায়ীদের ব্যবসা ছেড়ে দেয়ারও কথা বলেন সেলিম ওসমান। পরে ৩১ জুলাই নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে এমপি সেলিম ওসমানের উপস্থিতিতে নিতাইগঞ্জের ট্রাকস্ট্যান্ড নিয়ে ব্যবসায়ী ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। যাতে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসন, পুলিশ প্রশাসন ও সিটি করপোরেশনের উর্ধ্বতনরা। যাতে সিদ্ধান্ত হয় ১ আগষ্ট থেকে নিতাইগঞ্জের বোটখালের উপরে লোড আনলোড করবে ব্যবসায়ীরা। এদিকে নিতাইগঞ্জ, ডাইলপট্টি, নিমতলী, শীতলক্ষ্যা ও শহীদ বাপ্পী সড়কটি আবারো ট্রাকস্ট্যান্ডে পরিণত হওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে গলির সড়কগুলোতে অবাধে ট্রাক কাভার্ডভ্যানে লোড আনলোড করার কারণে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগে পড়ছেন সাধারণ মানুষ। গেল বছরে সমন্বিত উদ্যোগের কারণে নিতাইগঞ্জ ট্রাক স্ট্যান্ডটি একটি শৃঙ্খলার মধ্যে আসলেও বছর ঘুরতে না ঘুরতেই আবারো বিশৃঙ্খলা ব্যপক আকার ধারণ করায় জনগণের মধ্যে চরম ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। গেল বছরে সমন্বিত উদ্যোগের পরে বেশ কয়েক মাস প্রশাসন, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন, ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ ও শ্রমিক নেতারা সম্মিলিতভাবে নিয়ন্ত্রন করে আসলেও সাম্প্রতিক সময়ে তাদের সেই ধরনের কোন তৎপরতা নেই বললেই চলে। বরং সমন্বয়হীনতায় যে যেভাবে পারছে সেখানেই লোড আনলোড করে আসছে। এতে করে নিতাইগঞ্জে বিরাজ করছে চরম বিশৃঙ্খলা। এর আগে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী ও সদর-বন্দর আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানকে যেধরনের তৎপর থাকতে দেখা যেতো বর্তমানে তাদেরকে আগের মতো তৎপর দেখা যায়না।

Copyright © Dundeebarta.com. ওয়েব ডিজাইন: মো: নাসির উদ্দিন, বন্দর, নারায়ণগঞ্জ। ০১৭১২৫৭৪৯৯০