মীর জুমলা সড়কের জঞ্জাল উচ্ছেদ পুলিশের পাশে আছে নগরবাসী

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
শহর যখন হকার ইস্যুতে উত্তপ্ত ঠিক তখনই আরেক দফায় চালানো হলো হকার উচ্ছেদ অভিযান। বঙ্গবন্ধু সড়ক, সলিমুল্লাহ রোড, হাবিব সরণীর পর এবার হকারমুক্ত বিতর্কিত মীর জুমলা রোড। নাসিকের এই উচ্ছেদ অভিযানের মধ্য দিয়ে মীর জুমলা সড়ক নিয়ে চলা বিতর্কেরও যেমন অবসান হলো তেমনি এই ইস্যুতে মেয়র আইভীর কঠোর অবস্থান আরো স্পষ্ট হয়ে উঠেছে বলে মনে করছেন নগরবাসী। গতকাল রবিবার ২ ঘন্টা উচ্ছেদ অভিযান চলে। অভিজানে নেতৃত্ব দেন সদর থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) জয়নাল আবেদিন ও টানবাজার ফাঁড়ির ইনচার্জ আজহারুল ইসলাম। এসময় সিটি কর্পোরেশনের পক্ষ থেকে প্রতিষ্ঠানটির পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা আলমগীর হিরন উপস্থিত ছিলেন। গত ২৫ ডিসেম্বর থেকে শুরু হওয়া হকার উচ্ছেদ অভিযান সপ্তম দিনের মতো অব্যাহত আছে। এই নিয়ে শহর হয়ে উঠেছে উত্তপ্ত। হকার ইস্যুতে একই ব্যানারে আন্দোলন করছে আওয়ামীলীগ, সিপিব, বাসদ নেতারা। হকারদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন নারায়ণগঞ্জ- ৪ আসনের সংসদ সদস্য শামিম ওসমান। আন্দোালনকারী হকারদের সঙ্গে একাত্বতা পোষণ করেছেন বিএনপি নেতা তৈমুর আলম খন্দকার। গত শুক্রবার রাইফেল ক্লাবে হকারদের সঙ্গে কথা বলেছেন শামীম ওসমান। হকারদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছিলেন সেলিনা হায়াৎ আইভীর চাপেই পুলিশ হকার উচ্ছেদ করছে। তিনি আরও বলেন, এটা সত্য যে যারা আজকে মারধর করে আপনাদের ব্যবসা তুলে দিয়েছে তারাও দুদিন আগে আপনাদের কাছ থেকে টাকা খেয়েছেন। মীর জুমলা সড়ক হকার মুক্ত না হওয়ায় সমালোচনা করে শামীম ওসমান বলেছিলেন, চকি বসাইলে কতো টাকা নেয় কারা নেয় সবটাই জানি। ওই দিগুবাবু বাজারের মীর জুমলা রোডে সকালের চকি ৮শ’ টাকা আর রাতের চকি ১ হাজার টাকা। ওই যে এতোবড় রাস্তা মীর জুমলা রোড, ওই রোড থেকে তো কেউ হকার তাড়ায় না। ছোট একটা চকি দৈনিক ১৮শ’ টাকা চাঁদা দেয়। এরাও তো টাকা দিয়েই ব্যবসা করে। শামিম ওসমানের এমন বক্তব্যের ১ দিন পরেই হকারমুক্ত করা হয়েছে মীর জুমলা সড়কটি। আর এর মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের সবগুলো সড়কই হকারমুক্ত হয়েছে। মীর জুমলা সড়ক নিয়ে দৈনিক ডান্ডিবার্তা কয়েক দফা স্বচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশ করে। সর্বশেষ গত ৬ আগষ্ট মীর জুমলা সড়ক নিয়ে বিস্তারিত সংবাদ প্রকাশ করা হয়। দেরীতে হলেও মীর জুমলা সড়কে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করায় প্রশাসনকে দৈনিক ডান্ডিবার্তার পক্ষ থেকে সাধুবাদ জানানো হলো। তবে এ অবস্থা বিরাজমান রাখতে হলে এ সড়ক দিয়ে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল রাখতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *