আজ : মঙ্গলবার: ১১ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪ এপ্রিল ২০১৮ ইং | ৭ শাবান ১৪৩৯ হিজরী | সকাল ৯:০৬
BADAL
শিরোনাম
ডিএনডি’র জলাবদ্ধতায় পঞ্চাশ বিঘা জমির ধান পানির নিচে-❋-আওয়ামীলীগে কোন্দল সৃষ্টিকারীদের কেন্দ্রীয় হুশিয়ারি...-❋-হকার ইস্যুতে আবারও অশান্ত হওয়ার পথে নারায়ণগঞ্জ !-❋-ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের বেহাল দশা রোদে ধুলা-বৃষ্টিতে কাদায় জনভোগান্তি-❋-লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের উন্নয়ন নিয়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুলের সাথে আলোচনা-❋-সকল মানুষেরই প্রাণের মায়া আছে :লিপি ওসমান-❋-নারায়ণগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধনীতে ডিসি : ফাস্টফুড আমাদের দেহের জন্য ক্ষতিকর-❋-সাড়ে চার কোটি টাকার মাদক ধ্বংস !-❋-মাঠে নামার প্রস্তুতিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি-❋-ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত পানি ব্যবহারের অযোগ্য ॥ সীমাহীন ভোগান্তিতে নারায়ণগঞ্জবাসী

জাপানে নীটপণ্য রপ্তানি করবে বাংলাদেশ

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

বিকেএমইএ, এনসিসিআই ও বিসিসিআইজে আলোচনার মাধ্যমে জাপানে নীটপণ্য রপ্তানি করার কথা বলেছেন বিকেএমইএ সভাপতি ও সদর-বন্দর আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। গতকাল শনিবার বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি (বিসিসিআই) ইন জাপান কর্তৃক সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানকে সংবর্ধনা প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তিনি জাপানী ব্যবসায়ীদের নারায়ণগঞ্জের বন্দরে মদনগঞ্জে শান্তিরচরে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদিত নীটপল্লীতে বিনিয়োগের আমন্ত্রন জানিয়েছেন। বিসিসিআই ইন জাপান এর সভাপতি বাদল চাকলাদার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা পূর্বক আলোচনা সভায় জাপানে বাংলাদেশী নীটপণ্য রপ্তানি বৃদ্ধিতে করণীয় এবং তাতে জাপানে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের সহায়ক ভূমিকা পালনের কর্মপন্থা নির্ধারণ ছিল আলোচনা সভার মূল আলোচ্য বিষয়। সভায় বিকেএমইএ সভাপতি ও সদর-বন্দর আসনের সংসদ সদস্য বলেছেন, রাজনীতি হবে দেশ  উন্নয়নের রাজনীতি। আপনারা জেনে খুশি হবেন যে জাপানে বাংলাদেশের অনেক পণ্য বিভিন্ন দেশের হয়ে আমদানী হয়ে আসছে। আমরা জাপানে ব্যবসা করতে চাই। জাপানে অনেক বাংলাদেশী ব্যবসায়ী রয়েছেন আমরা তাদের সাথে ব্যবসা করতে চাই। জাপানে ৩ লাখ বাংলাদেশীদের সাথে ১২ হাজার জাপানী ব্যবসায়ী রয়েছে। আমরা তাদের সাথে বাণিজ্যিক বন্ধুত্ব গড়ে তুলতে চাই। জাপানে প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ীদের প্রতি অনুরোধ রেখে সেলিম ওসমান বলেন, আপনাদের  রাজনৈতিক পরিচয়ের উর্ধ্বে দেশপ্রেমিক হওয়ার সুযোগ রয়েছে। ভিয়েতনামের চেয়ে বাংলাদেশের পোশাকের মান অনেক বেশি ভাল। আমাদেরকে সব সময় উন্নয়নের ধারা বজায় রাখতে হবে। জাপানে বিকেএমইএ এর কার্যালয় করা হবে। জাপানে ব্যবসারত বাংলাদেশী ভাইদের নিয়ে প্রয়োজনে যৌথ অংশীদারিত্বে ব্যবসা করবো। বিকেএমইএ, এনসিসিআই ও বিসিসিআইজে আলোচনার মাধ্যমে জাপানে নীটপণ্য রপ্তানি করবে। সেই প্রত্যাশা রেখে আমি নারায়ণগঞ্জে শান্তিরচরে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদিত নীটপল্লীতে জাপানের ব্যবসায়ীদের বিনিয়োগ করার আমন্ত্রন জানাচ্ছি।

সভায় বাংলাদেশে নিযুক্ত জাপানের সাবেক রাষ্ট্রদূত হরিগোচি বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরে নীটশিল্প অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশ দূতাবাসের কমাশির্য়াল কাউন্সিলর হাসান আরিফ বলেন, জাপানে নীটপণ্য হচ্ছে এক নাম্বার রপ্তানিতব্য পন্য। গত ১০ বছরে এখানে প্রায় ২৭ দশমিক ৫ শতাংশ রপ্তানি বৃদ্ধি পেয়েছে। জাপানের সিটিপিপি স্বাক্ষর করার পরও বাংলাদেশ থেকে নীটপণ্য রপ্তানিতে কোন সমস্যা হবে না বলে জানিয়েছেন মিনিস্ট্রি অব ইকোনমি ট্রেড অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি। ইতোমধ্যে জাপান চেম্বার, টোকিও চেম্বার ও জাপান টেক্সটাইলস ইনপোটার্স অ্যাসোসিয়েশন বিকেএমইএ এর সাথে গঙট স্বাক্ষর করতে সক্ষম হয়েছে। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, ফজর আলী, এস ইসলাম নান্নু, আব্দুর রাজ্জাক, জিয়াউল ইসলাম জিয়া, রেজাউল করিম, কাজী ইনসান, জাপান আওয়ামীলীগ এর সভাপতি সালেহ মোহাম্মদ সহ অন্যান্য ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দরা।

 

জাপানে সাংসদ সেলিম ওসমানকে সংবর্ধনা দেবে আজ

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

বাংলাদেশের গন্ডি পেরিয়ে এবার সূর্যোদয়ের দেশ জাপানে শাখা অফিস খুলতে যাচ্ছে নীট গার্মেন্টস ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন বিকেএমইএ। গতকাল শুক্রবার জাপান সময় রাত ৮টায় বাংলাদেশ অ্যাম্বাসির আয়োজনে নৈশ ভোজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিকেএমইএ এর সভাপতি ও নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান এ ঘোষণা দেন। এদিকে গতকাল শুক্রবার সফল ভাবে শেষ হয়েছে ফ্যাশন ওয়াল্ড টোকিও-২০১৮ মেলা । ৩দিন ব্যাপী আয়োজিত এ মেলায় বিকেএমইএ এর নেতৃত্বে অংশ নেওয়া বাংলাদেশী নীট ব্যবসায়ীরা বায়াদের আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে। মেলায় আসা বায়ারদের কাছ থেকে ২৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের অর্ডার পেয়েছে বাংলাদেশী নীট ব্যবসায়ীরা। বিকেএমইএ এর সিও সুলভ চৌধুরী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরো জানান, গতকাল শুক্রবার জাপান সময় বেলা ১১টায় বিকেএমইএ ও জাপান এক্সটার্নাল ট্রেড অর্গানাইজেশন এর একটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান সভায় প্রতিনিধিত্ব করেন। এ সময় তিনি জেট্রো প্রতিনিধিদের কাছে বাংলাদেশে বিনিয়োগ অব্যাহত রাখা, নারায়ণগঞ্জের মদনগঞ্জে শান্তিরচরে নীটপল্লীতে বিনিয়োগ এবং বাংলাদেশের নীটওয়্যার শিল্পকে আরো উন্নত ও শক্তিশালী করতে জেট্রো’র সহযোগীতা প্রত্যাশা করে প্রস্তাব রাখেন। বিকেএমইএ এর সভাপতির দেওয়ার প্রস্তাব গুলো বিবেচনায় নিয়ে জেট্রো প্রতিনিধি দল বাংলাদেশের ঢাকায় অবস্থিত জেট্রো’র কার্যালয়ের মাধ্যমে দাপ্তরিক ভাবে প্রস্তাবনা দেওয়ার কথা বলেছেন। অপরদিকে জাপান সময় বিকেল সাড়ে ৩টায় বিকেএমএই এর সভাপতি সেলিম ওসমানের নেতৃত্বে জাপান মিনিস্ট্রি অব ইকোনমি, ট্রেড এবং ইন্ডাস্ট্রি (এমইটিআই) এর সাথে বিকেএমইএ এর আরেকটি আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আলোচনা সভায় বিকেএমইএ সভাপতি জাপান সরকারের সহযোগীতা কামনা করে বেশ কয়েকটি প্রস্তাব রাখেন। যার মধ্যে বাংলাদেশে জাপানী বিনিয়োগ বৃদ্ধি , বাংলাদেশে নীট কারখানা গুলোতে যৌথভাবে বিনিয়োগ সহ জেএসপি সুবিধা বহাল রাখার প্রস্তাব করেন। পরিপ্রেক্ষিতে এমইটিআই কর্মকর্তারা বলেন, সম্প্রতি বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হয়েছে। জেএসপি সুবিধা একটি পলিসির মাধ্যমে চলে। আমরা চেষ্টা করবো পলিসির সাথে সমন্বয় করে সকল কার্যক্রম চালিয়ে যেতে।  এছাড়াও এমইটিআই এর পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে জাপানে অ্যাপারেল মার্কেট সুবিধা( ট্যাক্স ফ্রি রপ্তানি) অব্যাহত থাকবে বলে জানানো হয়েছে। এদিকে ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও-২০১৮ মেলা শেষে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত রাবাবা ফাতেমা বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমানের সম্মানে অ্যাম্বাসির পক্ষ থেকে নৈশ ভোজের আয়োজন করেন। যেখানে বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমানকে প্রধান অতিথি করা হয়। নৈশ ভোজে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত রাবাবা ফাতেমা, বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান, তাঁর সহধর্মিনী মিসেস নাসরিন ওসমান বিকেএমইএ সকল নেতৃবৃন্দ এবং বাংলাদেশ অ্যাম্বাসি, জাপানের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা ও বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। আজ শনিবার জাপান সময় সন্ধ্যা ৬টায় জাপানে প্রবাসী বাংলাদেশীদের উদ্যোগে বিকেএমইএ সভাপতি ও সদর-বন্দর আসনের সাংসদ সেলিম ওসমানকে সংবর্ধনা দেয়া হবে।

জাপান মাতালো বাংলাদেশী নীটপন্য

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

জাপানে অনুষ্ঠিতব্য ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও-২০১৮ মেলায় সাড়া ফেলেছে বাংলাদেশের নীটওয়্যার পন্য। বিকেএমইএ এর নেতৃত্বে মেলায় অংশ নেওয়া বাংলাদেশী নীটওয়্যার ব্যবসায়ীদের দেওয়া মেলায় ৩০টি স্টল ইতোমধ্যে বায়ার টানতে সক্ষম হয়েছে। এ মেলার অংশ গ্রহনের মধ্য দিয়ে আগামীতে জাপানে বাংলাদেশী নীটওয়্যার পন্য রপ্তানি ২৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে প্রত্যাশা করছেন সংগঠনটির সভাপতি ও সদর-বন্দর আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমান। এছাড়াও জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এর পক্ষ থেকে জাপানে বসবাসরত বাংলাদেশী প্রবাসী ব্যবসায়ীরা নারায়ণগঞ্জের শান্তিরচরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুমোদিত নীটপল্লীতে বিনিয়োগ করার সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। আগামী নভেম্বর মাসে জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির একটি প্রতিনিধি দল নারায়ণগঞ্জের শান্তিরচর নীটপল্লী এলাকা পরিদর্শনে আসবেন বলে বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমানকে আশ্বস্ত করেছেন। গত বুধবার দুপুরে বিকেএমইএ এর সভাপতি সেলিম ওসমান জাপানে গিয়ে পৌছেন। পরে গতকাল বৃহস্পতিবার জাপান সময় বিকেল ৪টায় নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম ওসমানের নেতৃত্বে বিকেএমইএ এর সাথে জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি এবং জাপান টেক্সটাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাথে পৃথক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। জাপানে সেলিম ওসমানের মেলায় যোগ দেওয়ার পর পরই জাপানে অবস্থানরত বাংলাদেশের প্রবাসী ব্যবসায়ীদের মাঝে উদ্দীপনা শুরু হয়েছে। মত বিনিময় সভায় বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিকে নারায়ণগঞ্জের নীটপল্লীর ভবিষ্যত সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে নীটপল্লীতে বিনিয়োগের প্রস্তাব রাখেন। প্রস্তাবের পরিপ্রেক্ষিতে জাপান চেম্বার অব কমার্সের পক্ষ থেকে শান্তিরচরে নীটপল্লীতে বিনিয়োগে আগ্রহ প্রকাশ করেন এবং আগামী নভেম্বর মাসে জাপান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির একটি প্রতিনিধি দল নীটপল্লী পরিদর্শনে আসবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন। অপরদিকে জাপান টেক্সটাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের নেতৃবৃন্দদের এমপি সেলিম ওসমান বাংলাদেশের যৌথ বিনিয়োগে নীট কারখানার স্থাপনের প্রস্তাব রাখেন। পাশাপাশি পুরনো কারখানা গুলোতেও যৌথভাবে বিনিয়োগ করার প্রস্তাব করেন সেলিম ওসমান। তাঁর প্রস্তাবে সম্মতি প্রকাশ করেছেন জাপান টেক্সটাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন। জাপানে অনুষ্ঠিতব্য ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও-২০১৮তে বাংলাদেশের নীটশিল্পকে উপস্থাপনে নেতৃত্ব দিতে জাপানে অবস্থানরত বিকেএমইএ সভাপতি সেলিম ওসমান জানিয়েছেন, ইতোমধ্যেই জাপানে আমাদের স্টল গুলো বায়ার টানতে সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশী পণ্য মেলায় আগত বায়ারদের আস্থা অর্জনে সক্ষম হয়েছে। যার ফলে আশা করছি আগামী জাপানে নীটপন্য রপ্তানি ২৫ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে। সেই সাথে জাপান চেম্বার অব কমার্স নারায়ণগঞ্জের নীটপল্লীতে বিনিয়োগের আশ্বাস প্রদান করেছেন। জাপান টেক্সটাইল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন বাংলাদেশে নীট কারখানা গুলোতে যৌথ বিনিযোগে উৎসাহিত হয়েছেন। আমরা দেশে ফিরে ঢাকায় বিদেশী বায়ারদের সাথে আলোচনা করে একটি বায়ারর্স অ্যাসোসিয়েশন গঠন করার চিন্তা করছি। এ গুলো বাস্তবায়িত হলে বাংলাদেশের নীট পন্য রপ্তানিতে একটি নতুন দিগন্তের সূচনা হবে। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহম্মেদ, জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত এবং জাপান সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে সেলিম ওসমান বলেন, আমি বিকেএমইএ এবং বাংলাদেশের নীটব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে সকলের কাছে কতৃজ্ঞতা প্রকাশ করছি আমাদের এমন একটি মেলায় অংশ গ্রহনের সুযোগ করে দেওয়ায়। যার ফলে সূদুর জাপানে আমরা আমাদের দেশীয় পন্য উপস্থাপন করে বিদেশী ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে পেরেছি। যার ফলে বাংলাদেশের নীট পণ্যের বাজার আরো সম্প্রসারিত হবে বলে আমি মনে করছি। জিএসপি সুবিধা অব্যাহত রাখতে জাপান সরকারের প্রতি অনুরোধ রেখে সেলিম ওসমান বলেন, বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে প্রবেশ করলেও জাপান সরকারের প্রতি আমাদের বিশেষ ভাবে অনুরোধ থাকবে যাতে করে জাপানে পন্য রপ্তানিতে জিএসপি সুবিধা অব্যাহত রাখা হয়। এদিকে গত বুধবার সকালে ফ্যাশন ওয়ার্ল্ড টোকিও ২০১৮ মেলার উদ্বোধন হয়। উদ্বোধন শেষে জাপানে নিযুক্ত বাংলাদেশী রাষ্ট্রদূত রাবাবা ফাতেমা বাংলাদেশের প্রায় ৩০ টি স্টলই পরিদর্শন করেছেন।

 

 

 

অস্ট্রেলিয়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত দুই পরিবারে শোকের মাতম

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

অস্ট্রেলিয়ার উত্তরাঞ্চলীয় কাকাডু ন্যাশনাল পার্কের কাছে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম দিনার ও সাদেকা কামাল নিপা। সড়ক দুর্ঘটনার খবরে সোনারগাঁয়ে দিনার ও নিপা উভয়ের বাড়িতে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। গতকাল রবিবার বিকেলে সোনারগাঁয়ের বাড়িমজলিশ গ্রামে দিনার ও দমদমা গ্রামে নিপার বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে হৃদয় বিদারক দৃশ্য। মা-বাবা ও তাদের আত্মীয় পরিজনদের করুন আহাজারিতে ভারি হয়ে ওঠেছে পরিবেশ। সাইফুল ইসলাম দিনারের বাল্যবন্ধু রুবেল জানান, দিনার ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে বিবিএস পাশ করে ২০১৩সালে অস্ট্রেলিয়ার চার্লস ডারউইন বিশ্ববিদ্যালয়ে এমবিএ ভর্তি হন। চার মাস আগে সে দেশে এসে স্ত্রী সায়মা আক্তার সেতুকে অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যায়। আগামী মে তে তাদের দেশে আসার কথা ছিল। দেশে বিবাহোত্তর ঝমকালো অনুষ্ঠান করারও কথা ছিল। কিন্তু তা আর হলো না। গত শনিবার ছিল দিনারের জন্মদিন আর গতকাল রোববার ছিল স্টার সান ডে তাই তারা সব বন্ধুরা মিলে বেড়াতে বের হয়েছিল। গাড়িটি দিনার নিজেই ড্রাইভ করছিল কে জানতো জন্মদিনেই সে চলে যাবে না ফেরার দেশে। তিনি আরো জানান, অস্ট্রেলিয়ায় তাদের নাগরিকত্বের কাগজপত্র প্রায় চূড়ান্ত হয়ে গেছে। দিনার সেখানে একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে পার্ট টাইম চাকরি করতো। দুর্ঘটনার সময় দিনারের সাথে থাকা তার স্ত্রী সায়মা মারাক্তক আহত হন। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন আছেন। তার একটি পায়ে মারাত্মক জখম হওয়ায়  কেটে ফেলার সম্ভাবনা রয়েছে। দিনার সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বাড়িমজলিশ গ্রামের মাজারুল ইসলামের ছোট ছেলে। অপর দিকে একই ইউনিয়নের দমদমা গ্রামের মেয়ে সাদেকা কামাল নিপাও এ দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে। তিনিও ওই গাড়িতেই ছিলেন। নিপার স্বামী সোহান হোসেন এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন। ২০০৯ সালে সোহাগ অস্ট্রেলিয়ার চার্লস ডারউইন বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে যান সাড়ে তিন বছর আগে স্ত্রী নিপাকে অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যান। নিপার নিহতের খবরে তার পরিবার শোকে স্তব্ধ হয়ে গেছে। তার বাবা মোস্তফা কামাল বাবুল কারো সাথে কথা বলছে না। শুধু চুপচাপ চোখের পানি ফেলছেন। তার তিন ছেলে মেয়ের মধ্যে সবচেয়ে ছোট ছিল নিপা। আদরের মেয়েকে হারিয়ে পুরো পরিবার শোকে পাথর হয়ে গেছে।

 

প্রবাসেও সোনারগাঁয়ের তানভীনার সাফল্য

 

ডান্ডিবার্তা ডেক্স

সফলতার জন্য প্রয়োজন দৃঢ় মনোবল এবং কঠোর পরিশ্রম। আর এসবের মাধ্যমেই একজন মানুষ হয়ে ওঠে সেরাদের সেরা। তেমনি একজন হচ্ছেন তানভীনা মহসিন। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ এর মেয়ে তানভীনা ১২ বছর বয়সে পারিবারিক সূত্রে পাড়ি জমান সুইডেনে। সেখানের একটি কলেজে পড়াশোনা শেষ করে যোগদান করেন ইনসুরেন্স কোম্পানিতে। বছর দেড়েক সেখানে কাজ করলেও নিজের মধ্যে একটি অস্থিরতা কাজ করতো সবসময়। কারণ কলেজে পড়াকালীন সময় থেকেই নিজে কিছু করতে চাইতেন। এরই মধ্যে বিয়ে করেন সিলেটের ছেলে করিম রেজাউলকে। নতুন সংসারে ভালোই সময় কাটছিল দুজনের। সেসময় স্বামী করিম রেজাউল কাজ করতেন একটি হোটেলে। হঠাৎ তানভীনা ভাবলেন, নিজেই একটা রেস্টুরেন্ট দিলে কেমন হয়? সেই ভাবনা থেকেই ইনসুরেন্স কোম্পানির চাকরি ছেড়ে দেন তিনি এবং ‘থ্রি ইন্ডিয়া’ নামক একটি রেষ্টুরেন্টে স্বামীসহ যোগ দেন অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য। সেই সঙ্গে খুঁজতে থাকেন পছন্দমত জায়গা, যেখানে রেস্টুরেন্ট করতে পারবেন।অভিজ্ঞতা অর্জনের দেড় বছরের মাথায় পেয়ে যান পছন্দমত জায়গাসহ চলমান একটি রেস্টুরেন্ট। কিন্তু মালিকের শর্ত একটাই, রেস্টুরেন্ট নাম পরিবর্তন করা যাবে না। তবেই তিনি বিক্রি করবেন। শর্ত মতে সুইডেনের রাজধানী স্টকহোমে ২০০১ সালে ‘ইন্ডিয়ান গার্ডেন’ নামের সেই রেস্টুরেন্টটি ক্রয় করে আবার নতুনভাবে চালু করেন তানভীনা ও রেজাউল। এটিই ছিল তাদের প্রথম রেস্টুরেন্ট।‘ইন্ডিয়ান গার্ডেন’ শুরুর দিকে খুব একটা ভালো করে উঠতে পারেনি। সেসময় অনেকটা ধৈর্যের পরিচয় দিতে হয়েছে তানভীনাকে। বছর দেড়েক বাদে ঘুরে দাঁড়ায় ইন্ডিয়ান গার্ডেন। নাম অপরিবর্তিত থাকলেও নিজস্ব ধাঁচে পরিবেশন করা ও মান বজায় রেখে তৈরি করা হয় খাবার। রেস্টুরেন্টে সুইডিশ কাস্টমারদের গুরুত্ব দিয়ে বিশেষভাবে সুইডিশ পরিবেশ তৈরি করেছিলেন তিনি।

এরপর আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি তানভীনা-রেজাউলকে। বর্তমানে স্টকহোমেই ইন্ডিয়ান গার্ডেন নামে তাদের রয়েছে মোট ছয়টি রেস্টুরেন্টসহ একটি ফুড ইন্ডাস্ট্রি। এই ফুড ইন্ডাস্ট্রি থেকেই মূলত তাদের ছয়টি রেস্টুরেন্টের প্রয়োজনীয় কাচাঁমালের সরবরাহ করা হয়।এই সতের বছরের রেস্টুরেন্ট পরিচালনায় তানভীনা অর্জন করেছেন বেশ কয়েকটি পুরস্কার। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য গোল্ড ড্রাগন পুরস্কার, ব্রিটিশ অ্যাওয়ার্ড, সেরা ইউরোপিয়ান কারি শেফ পুরস্কার, লন্ডনে সেরা ইউরোপিয়ান কারি শেফ পুরস্কার। তিনি বর্তমানে সুইডেনে বাঙালি সফল নারীদের আইডল হিসেবে পরিচিত। বর্তমানে তাদের ছয়টি রেস্টুরেন্টে সাড়ে চার’শ মানুষ কাজ করে। এর মধ্যে বাঙালি আছেন ২০০ জন।এই সফল নারীর মাতৃভূমি বাংলাদেশকে নিয়ে সামনে আছে একটি বড় পরিকল্পনা। আগামী দুই-তিন বছরের মধ্যে বাংলাদেশে সুইডিশ স্টাইলে বড় একটা রেস্টুরেন্ট প্রতিষ্ঠা করবেন তিনি। যেখানে কেবল মাত্র শিক্ষিত মেয়েরাই কাজ করবে। তার রেষ্টুরেন্টের শেফদের নিয়ে আসবেন সুইডেন থেকে। আর রেষ্টুরেন্টের নামকরণ করবেন অবশ্যই বাংলাতেই।

 

কফিনবন্দি হয়ে দেশে ফিরলেন তারা

নেপালে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহতদের মধ্যে ২৩ বাংলাদেশির মরদেহ কফিনবন্দি হয়ে দেশে ফিরেছে। সোমবার বিকেল ৪টার দিকে কফিনবন্দি লাশগুলো নিয়ে ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে কাঠমান্ডু থেকে ছেড়ে আসা বিমানবাহিনীর উড়োজাহাজটি। সেখানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিহতদের মরদেহ আনুষ্ঠানিকভাবে গ্রহণ করবেন।

এর আগে নেপালের ত্রিভুবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ দুর্ঘটনায় নিহত যাত্রীদের স্বজনরা সোমবার বেলা ২টা ৪০ মিনিটের দিকে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। এতে হতাহত যাত্রীর ৫১ স্বজন ছিলেন। ছিলেন দুই আহতও। তারা হলেন- কবীর হোসেন ও আব্দুল্লাহ (মালদ্বীপ)। ইউএস-বাংলা এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ইউএস-বাংলার ফ্লাইট বিএস২১১ গত ১২ মার্চ ঢাকা থেকে রওনা হয়েছিল চার ক্রুসহ ৭১জন আরোহী নিয়ে, সেদিনও ছিল সোমবার। কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন বিমানবন্দরে অবতরণের সময় উড়োজাহাজটি বিধ্বস্ত হলে ২৬ জন বাংলাদেশিসহ ৪৯ আরোহীর মৃত্যু হয়।

নিহতদের মধ্যে ২৩ জনের মরদেহ শনাক্ত করার পর নেপালি কর্তৃপক্ষ কাঠমান্ডুতে বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃপক্ষের কাছে মরদেহ হস্তান্তর করে। সোমবার সকালে দূতাবাস প্রাঙ্গণে প্রবাসী বাংলাদেশি, বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং ইউএস-বাংলার উপস্থিত কর্মকর্তারা তাদের জানাজায় অংশ নেন।

জানাজা শেষে ২৩টি কফিন পাঠানো হয় সেই ত্রিভুবন বিমানবন্দরে। সেখান থেকেই ঠিক এক সোমবার পর দেশের পথে তাদের ফিরতি যাত্রা শুরু হয় বেলা আড়াইটায়, বিমানবাহিনীর কার্গো ফ্লাইটে চড়ে।

এই ২৩ জনের মধ্যে ইউএস-বাংলার পাইলট আবিদ সুলতান, কো-পাইলট পৃথুলা রশীদ এবং কেবিন ক্রু খাজা হোসেন মো. শফি ও শারমিন আক্তার নাবিলা রয়েছেন।

আর যাত্রীদের মধ্যে আছেন- ফয়সাল আহমেদ, বিলকিস আরা, বেগম হুরুন নাহার বিলকিস বানু, আখতারা বেগম, নাজিয়া আফরিন চৌধুরী, রকিবুল হাসান, হাসান ইমাম, আঁখি মনি, মিনহাজ বিন নাসির, ফারুক হোসেন প্রিয়ক, তার মেয়ে প্রিয়ন্ময়ী তামারা, মতিউর রহমান, এস এম মাহমুদুর রহমান, তাহিরা তানভিন শশী রেজা, বেগম উম্মে সালমা, মো. নুরুজ্জামান, রফিক জামান, তার স্ত্রী সানজিদা হক বিপাশা, তাদের ছেলে অনিরুদ্ধ জামান।

আর ঢাকায় আর্মি স্টেডিয়ামে চলছে জানাজার প্রস্তুতি; সেখানেই আত্মীয়, বন্ধু, স্বজনদের সঙ্গে শেষবার মিলিত হবেন না ফেরার দেশের এই ২৩ যাত্রী।

আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. আলমগীর কবির জানান, বিমানবন্দর থেকে কফিন নিয়ে যাওয়া হবে আর্মি স্টেডিয়ামে। সেখানে বিকেলে হবে জানাজা। ওই দুর্ঘটনায় নিহত ২৬ বাংলাদেশির মধ্যে আলিফুজ্জামান, পিয়াস রায় ও নজরুল ইসলামের মরদেহ রোববার পর্যন্ত শনাক্ত করা বাকি ছিল।

মালয়েশিয়ায় আওয়ামী লীগের উদ্যোগে বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ নিয়ে আলোচনা

 

গৌতম রায় : কুয়ালালামপুর থেকে

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ই মার্চ ভাষন ইউনেস্কো স্বীকৃত বিশ্ব ঐতিহ্যের দলিল হিসাবে দিনটি পালন করেছে মালয়েশিয়া আওয়ামী লীগ। এ উপলক্ষ্যে গত ১০ মার্চ কুয়ালালামপুর একটি হোটেলে সংগঠনের যুগ্ম আহ্বায়ক অহিদুর রহনানের সভাপতিত্বে প্রবাসীদের মাঝে ৭ই মার্চের বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরা হয়। শফিক চৌধুরী ও এড. মিনহাজ উদ্দিন মিরানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের বিভিন্ন শাখা কমিটি ও সহযোগী সংগঠনসমূহের নেতা কর্মীবৃন্দ। বক্তব্য রাখেন এ, কামাল হোসেন চৌধুরী, মোঃ হাবিবুর রহমান হাবিব, মোঃ হুমায়ূন কবির, আলমগীর হোসেন, অনির্বাণ চক্রবতী, মোঃ মওদুদ মোল্লা, মোঃ মুস্তাফিজুর রহমান, মোঃ জাকির হোসেন ও প্রবীন সাংবাদিক ও কলামিষ্ট গৌতম রায় প্রমুখ।  পবিত্র কুরআান তেলওয়াত ও পবিত্র গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। বক্তারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জীবনী ও আদর্শ অনুসরন করে ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ নির্মানে প্রধানমন্ত্রী ও জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরো শক্তিশালী করতে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। তথ্য প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে শত্রুর অপপ্রচার এবং যেকোন ষড়যন্ত্র ও মিথ্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর প্রত্যয় ঘোষনা করেন বক্তারা। অনুষ্ঠানে দূর দূরান্ত থেকে আগত প্রবাসীরা উপস্থিত ছিলেন। সবশেষে দেশ ও জাতির শান্তি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুস্বাস্থ্য কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত করা হয়।

গ্রিসে যথাযথ মর্যাদায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদ্‌যাপিত

ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে গ্রিসের বাংলাদেশ দূতাবাসে মহান শহীদ দিবস এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালিত হয়েছে। একুশের প্রথম প্রহরে গ্রিসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন এথেন্স শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত কুমুদ্র পার্কে বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রিসের উদ্যোগে স্থাপিত অস্থায়ী শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পুষ্পস্তবক অর্পণের সময় প্রবাসী বাংলাদেশিদের সমবেত কণ্ঠে গাওয়া ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটি সমগ্র কুমুদ্র পার্কে অনুরণিত হয়। এরপর গ্রিসের বাংলাদেশ কমিউনিটি এবং এথেন্সে বসবাসরত রাজনৈতিক, ব্যবসায়ী, সামাজিক, দোয়েল এবং দোয়েল একাডেমির শিশুরা ও জেলা ভিত্তিক আঞ্চলিক সংগঠনসমূহ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে। কুমুদ্র পার্কে রাত ১২টার সময় শত শত বাংলাদেশির স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ পার্কে বয়ে আনে এক প্রাণচঞ্চল পরিবেশ।

একুশে ফেব্রুয়ারি দিনভর দূতাবাস প্রাঙ্গণে কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করেন। দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও এথেন্সে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশিরা এসময় উপস্থিত ছিলেন। জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত করার পর শহীদদের আত্মার মাগফিরাত এবং দেশের উত্তরোত্তর উন্নয়ন কামনা করে বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত করা হয়। মহান একুশে এবং আন্তর্জাতিক মার্তৃভাষা দিবস উপলক্ষে দূতাবাস প্রাঙ্গণে সকাল থেকেই মহান ভাষা আন্দোলন বিষয়ক ও দেশাত্ববোধক সংগীত পরিবেশিত হয়।

বিকেলে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত এবং পবিত্র গীতা পাঠের মধ্য দিয়ে দূতাবাসের অনুষ্ঠানসূচির দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়। ভাষা শহীদদের স্মরণে ১ মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কর্তৃক প্রেরিত বাণী পাঠ করা হয়।এবছর অমর একুশে এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে দূতাবাসের উদ্যোগে নির্মিত হয়েছে একটি ইংরেজি গানের ভিডিও। গানের শিরোনাম ‘মাদার ল্যাংগুয়েজ ডে’। গানটি লিখেছেন গ্রিসে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব সুজন দেবনাথ এবং সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন গ্রিক শিল্পী স্টাভরোস পাপাস্টাভরো। গ্রিক শিল্পীর সঙ্গে সহশিল্পী হিসেবে কণ্ঠ দিয়েছেন নিবেদিতা নাথ, ক্রিস মারাগোডাকিস এবং জো মাইলোগ। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের ওপর সম্ভবত এটিই প্রথম ইংরেজি গান।

রাষ্ট্রদূত জসীম উদ্দিন আনুষ্ঠানিকভাবে ভিডিওটির মোড়ক উন্মোচন করেন। এথেন্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের উদ্যোগে এবং একজন প্রবাসী বাংলাদেশির সহযোগিতায় এক গ্রিক নাগরিক গত এক বছর ধরে বাংলা ভাষা শিখছেন। অমর একুশের অনুষ্ঠানে গ্রিক নাগরিক বাংলায় ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি’ গানটির প্রথম কয়েকটি চরণ লিখে ও গেয়ে দর্শকদের মুগ্ধ করেন। এরপর দিবসটির তাত্পর্যের ওপর আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়।

বক্তারা একুশের শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে মহান একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ গড়ার কাজে একযোগে কাজ করার ওপর জোর দেন এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের চেতনা সারা বিশ্বে ছড়িয়ে দেয়ার আহ্বান জানান। আলোচনায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রদূত মো. জসীম উদ্দিন তার বক্তব্যে গভীর শ্রদ্ধার সঙ্গে ভাষা আন্দোলনের শহীদদের অমূল্য ভূমিকা এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বের কথা কৃতজ্ঞতার সঙ্গে স্মরণ করেন।

তিনি বলেন, কয়েক প্রবাসী বাংলাদেশির উদ্যোগে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বতঃস্ফূর্ত আগ্রহ ও ঐকান্তিক উদ্যোগের ফসল আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পৃথিবীর শতাধিক দেশ পালন করছে। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অবদান রাখার জন্য প্রবাসী বাংলাদেশিদের ঐক্যের ওপর জোর দেন।

এরপর বাংলাদেশ দূতাবাস পরিবার, শিশু-কিশোর ও স্থানীয় বাংলাদেশি সংগঠন দোয়েল ও দোয়েল একাডেমির অংশগ্রহণে একটি মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে একুশের কবিতা, ছড়া, আবৃত্তি, নৃত্য এবং সংগীত পরিবেশন করা হয়। মহান একুশের অনুষ্ঠানে দূতাবাসে উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশিদের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ ও উদ্দীপনা লক্ষ্য করা গেছে।এছাড়া, রাষ্ট্রদূত দূতাবাসের ক্রিকেট কূটনীতিকে সামনে এগিয়ে নিতে বাংলাদেশ সরকারের যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সৌজন্যে প্রাপ্ত দুটি ক্রিকেট সামগ্রীর সেট গ্রিসে বসবসকারী ক্রিকেট অনুরাগী বাংলাদেশি তরুণদের হাতে দূতাবাসের উপহার হিসেবে তুলে দেন।

ফক্স নিউজ উপস্থাপিকাকে জোর করে চুমু খেতে চেয়েছিলেন ট্রাম্প

ডান্ডিবার্তা ডেক্স
মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প নিয়ে অভিযোগের শেষ নেই। সম্প্রতি আবারো তাকে নিয়ে যৌন হয়রানির অভিযোগ তুলেছেন জুলিয়েট হাডি নামক এক নারী। জুলিয়েট হাডি, জনপ্রিয় সংবাদ মাধ্যম ফক্স নিউজের সাবেক উপস্থাপিকা এবং ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি অভিযোগ আনার পূর্বে মার্কিন সাংবাদিক বিল ও’রেইলির দিকেও যৌন অভিযোগ করেছিলেন তিনি। পরবর্তীতে বিলের সঙ্গে মামলা নিষ্পত্তি করেন হাডি। স¤প্রতি ডব্লিউএবিসি নামক একটি রেডিওতে আকস্মিক ভাবেই ট্রাম্পের কথা তোলেন হাডি। হাডি বলেন, ২০০৫ সালে ট্রাম্প টাওয়ারে দুপুরের ভোজে অংশগ্রহনের পর লিফটে তাকে চুমু খেতে চেয়েছিলো ট্রাম্প। হাডি বলেন, ‘সে (ট্রাম্প) আমাকে ট্রাম্প টাওয়ারে নিয়ে গিয়েছিলো লাঞ্চের জন্য। সেখানে আমরা দুজনই ছিলাম। খাবারের পর সে আমাকে বিদায় দেওয়ার জন্য লিফটের কাছে এসেছিলো। সেখানে একজন নিরাপত্তাকর্মীও ছিলো। সে সময় সে আমাকে চুমু দিতে আসে এবং আমি তাকে আটকাই।’ হাডি আরো বলেন, ‘আমি অনেক অবাক হয়েছিলাম তবে আমি ভয় পাইনি। এরপরও সে আমাকে লাঞ্চের জন্য ডেকেছে। সে আমার শো নিয়মিত দেখতো। যদিও এরপর আর কখনো সে এমন কিছু করেনি এবং আমিও একা তার সঙ্গে দেখা করিনি।’ ২০০৫ সালের জানুয়ারিতে বর্তমান ফার্স্ট লেডি মেলানিয়ার সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন ট্রাম্প। হাডির ভাষ্য মতে, বিয়ের পরই তাকে চুমু খেতে চেয়েছিলের ট্রাম্প। এতোদিন ট্রাম্পের প্রতি কোন ক্ষোভ ছিলো না হাডির। তবে বিল ও‘রেলির সঙ্গে হাডির লড়াইয়ে ট্রাম্প বিলের পক্ষ নিয়েছিলেন। সেই থেকেই ট্রাম্পের প্রতি নেতিবাচক মনোভাব নিয়ে রয়েছেন হাডি। যদিও এ সকল ঘটনায় এখনো ট্রাম্প কোন মতামত প্রকাশ করেননি।

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে হত্যাচেষ্টায় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুবক অভিযুক্ত

ডান্ডিবার্তা ডেক্স
ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী তেরেসা মে’কে হত্যার ষড়যন্ত্র করার অভিযোগে নাইমুর জাকারিয়া রহমান নামে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত যুবককে গতকাল লন্ডনের এক আদালতে হাজির করা হয়। উত্তর লন্ডনের বাসিন্দা ২০ বছরের ওই যুবক লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নিজেকে ব্রিটিশ-বাংলাদেশি বলে পরিচয় দেন। তার বিরুদ্ধে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার ষড়যন্ত্র করার অভিযোগ রয়েছে। তার পরিকল্পণা ছিলো ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর ডাউনিং স্ট্রীটের নিরাপত্তা গেটে বোমা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ঢুকে পড়ে ছুরি, পেপার স্প্রে এবং সুইসাইড ভেস্ট ব্যবহার করে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মেকে হত্যা করা। তবে, এ ক্ষেত্রে নিজেকে নির্দোষ বলে দাবি করেছেন জাকারিয়া। আদালত তাকে পুলিশ হেফাজতে পাঠিয়েছে। আগামী ২০ ডিসেম্বর তাকে আবারো উচ্চতর আদালতে হাজির করা হবে। লন্ডনে সন্ত্রাস-বিরোধী পুলিশ গত মাসে এই বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত এই যুবককে গ্রেফতার করে। এই যুবকের বিরুদ্ধে আরো একটি সন্ত্রাসের অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ওই অভিযোগ অনুযায়ী সে পাকিস্তানী বংশোদ্ভূত এক তরুণকে লিবিয়ায় কট্টর ইসলামপন্থীদের হয়ে যুদ্ধ করতে যেতে সহযোগিতা করছিলো। আদালতে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত যুবককেও কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার স্কাই নিউজ এক প্রতিবেদনে জানায়, পুলিশ অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’কে হত্যার পরিকল্পনা সম্পর্কে জানতে পেরেছে। পুলিশ ধারণা করছে, তারা ডাউনিং স্ট্রিটে বিশেষ উপায়ে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে আতঙ্ক তৈরি এবং থেরেসা মে এর উপর হামলা চালিয়ে হত্যার পরিকল্পনা করেছে। হত্যার পরিকল্পনার বিষয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর দফতর থেকে তাৎক্ষণিকভাবে কিছু জানানো না হলেও পরবর্তীতে স্কাই নিউজে সংবাদ প্রকাশের পর মে’র এক মুখপাত্র বলেন, ব্রিটেনে বিগত ১২ মাসে ৯ বার থেরেসা মে’কে হত্যার পরিকল্পনা নস্যাৎ করেছে মেট্রোপলিটন পুলিশ। কর্তৃপক্ষ জানায়, বুধবার অভিযুক্তদের ওয়েস্টমিনস্টার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে হাজির করা হবে। ব্রিটিশ গোয়েন্দা কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা গত ১২ মাসে ৯টি সন্ত্রাসী হামলার ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে দিয়েছেন। রয়টার্স