আজ : মঙ্গলবার: ১১ বৈশাখ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ | ২৪ এপ্রিল ২০১৮ ইং | ৭ শাবান ১৪৩৯ হিজরী | সকাল ৯:০৭
BADAL
শিরোনাম
ডিএনডি’র জলাবদ্ধতায় পঞ্চাশ বিঘা জমির ধান পানির নিচে-❋-আওয়ামীলীগে কোন্দল সৃষ্টিকারীদের কেন্দ্রীয় হুশিয়ারি...-❋-হকার ইস্যুতে আবারও অশান্ত হওয়ার পথে নারায়ণগঞ্জ !-❋-ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের বেহাল দশা রোদে ধুলা-বৃষ্টিতে কাদায় জনভোগান্তি-❋-লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের উন্নয়ন নিয়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুলের সাথে আলোচনা-❋-সকল মানুষেরই প্রাণের মায়া আছে :লিপি ওসমান-❋-নারায়ণগঞ্জে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধনীতে ডিসি : ফাস্টফুড আমাদের দেহের জন্য ক্ষতিকর-❋-সাড়ে চার কোটি টাকার মাদক ধ্বংস !-❋-মাঠে নামার প্রস্তুতিতে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি-❋-ওয়াসার দুর্গন্ধযুক্ত পানি ব্যবহারের অযোগ্য ॥ সীমাহীন ভোগান্তিতে নারায়ণগঞ্জবাসী

ডিএনডি’র জলাবদ্ধতায় পঞ্চাশ বিঘা জমির ধান পানির নিচে

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ডিএনডি’র অভ্যন্তরে প্রবল বৃষ্টির পানিতে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় দেলপাড়া নাসিরনগর এলাকায় পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে ৫০ বিঘা জমির ২০০ টন ধান। ওই এলাকার ২০-২৫ জন কৃষক বাঁধ দিয়ে ধান চাষ করলেও বৃষ্টির পানিতে খালের পানি উপচে প্রবেশ করে তলিয়ে গেছে ধানের জমি। এতে করে ব্যপক ক্ষতির আশঙ্কা করছেন কৃষকরা। জানা গেছে, ডিএনডি’র অভ্যন্তরে নারায়ণগঞ্জের দেলপাড়া নাসিরনগর এলাকায় এসবি গার্মেন্ট সংলগ্ন এলাকায় প্রায় ৫০ বিঘা জমিতে বাঁধ দিয়ে ধান চাষ করছেন ২০-২৫ জন কৃষক। তবে গত কয়েকদিন ধরে প্রবল বৃষ্টির কারণে গত শনিবার ওই এলাকার খালগুলো ভরাট হয়ে উপচে পানি প্রবেশ করে ডুবে গেছে ওই ৫০ বিঘা জমির ধান। প্রতি বিঘা জমিতে ৪ টন করে ধরলে প্রায় ২০০ বিঘা জমির ধান বর্তমানে পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে। কৃষক রাকিবুল ইসলাম শরীফ জানান, বৃষ্টির পানিতে তাদের ক্ষেতের ধান নিমজ্জিত হয়ে পড়েছে। তারা এখন চরম লোকসানের আশঙ্কায় রয়েছেন। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা আব্দুল গাফফার জানান, বৃষ্টির পানিতে ওই এলাকার ৫ হেক্টর জমির ধান পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে বলে শুনেছি। তবে যদি সোমবার ও মঙ্গলবার বৃষ্টি না হয় তাহলে জমির ধানগুলো রিকভার করবে। এছাড়া বৃষ্টির পানি যাতে খালগুলো থেকে দ্রুত নিস্কাশন করা হয় এজন্য পাম্প হাউস কর্তৃপক্ষকে তাগিদ দিয়েছি।

ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ পুরাতন সড়কের বেহাল দশা রোদে ধুলা-বৃষ্টিতে কাদায় জনভোগান্তি

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ঢাকা-পাগলা-নারায়ণগঞ্জ (পঞ্চবটি-ফতুল্লা) পুরাতন সড়কটি বৃষ্টিতে কাদা আর রোদে ধুলার রাজ্যে পরিণত হয়। এর সাথে নিত্যদিনের যানজট তো রয়েছেই। আর একটু বৃষ্টিতেই সড়কের পাশে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়। এ সব মিলিয়ে চরম দুর্ভোগে রয়েছে যাত্রীরা। সম্প্রতি এই সড়কের নানা দুর্ভোগ নিয়ে যাত্রীদের অভিযোগের পাওয়া যাচ্ছে। আর দিন দিন পাগলা, ফতুল্লা, পঞ্চবটি, আলীরটেক সহ বিভিন্ন স্থানের এই সড়েকের বেহাল দশা মহামারী রুপ ধারণ কারছে। এমনিতে বায়ু দূষণে সারা দেশের মধ্যে নারায়ণগঞ্জ শহর রেকর্ড করে শীর্ষে অবস্থান করছে। যে কারণে এই শহর ধীরে ধীরে বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়ছে।তবুও এ নিয়ে কারো কোন মাথা ব্যথা নেই। স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ‘এই সড়কে একটু বৃষ্টি নামলে কোথাও বৃষ্টির পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয় আবার কোথাও কর্দমাক্ততায় একাকার অবস্থা। আবার বৃষ্টি শেষে রোদ দেখা দিতেই পুরো সড়ক ধুলার রাজ্যে পরিণত হয়। এতে করে এই সড়ক দিয়ে যাতায়াতে বিড়ম্বনার শিকার হতে হয়। এছাড়া যানজটের মত চরম দুর্ভোগ এই সড়কের যাত্রীদের নিত্য দিনের সঙ্গী হয়ে গেছে। যাত্রীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলছে, ‘দীর্ঘদিন ধরে এই সড়কের বেহাল দশা সৃষ্টি হয়েছে। দিন যত অতিক্রম হচ্ছে এই সড়কের অবস্থা আরো খারাপ হচ্ছে। বৃষ্টি কিংবা রোদ সব সময়েই দুর্ভোগ লেগে থাকে এই সড়কে। বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা ও কাদা দিয়ে একাকার অবস্থা। আর বৃষ্টি শেষে রোদে সেই কাদা শুকিয়ে চারদিক ধুলার রাজ্যে পরিণত হয়। এছাড়া যানজটের কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যাত্রীদের দুর্ভোগে পোহাতে হয়। এভাবে চলতে থাকলে সড়কে চলাচল মুশকিল হয়ে পড়বে। ৯ম শ্রেণির শিক্ষার্থী রোকসানা জানায়, ‘এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন স্কুলে যেতে হয় কিন্তু ধুলাবালির কারণে মুখে মাস্ক বেঁধেও রেহাই পাওয়া যায়না। কিন্তু তবুও বাধ্য হয়ে যেতে হয়। আর বৃষ্টি নামলে কাদা-মাটিতে রাস্তার অবস্থা যাচ্ছে তাই হয়ে যায়। এ সময় রাস্তা দিয়ে চালাচল করা মুশকিল হয়ে পড়ে। তাই এসব দুর্ভোগে এড়াতে রিকশা কিংবা অটোরিকশাতে উঠলে যানজটের কবলে পড়তে হয়। তাই এই সড়ক দিয়ে যাতায়াতে খুব কষ্ট হয়। গার্মেন্ট শ্রমিক শিলা আক্তার জানায়, ‘ গার্মেন্টে কাজ করতে প্রতিদিন পাগলার এই সড়ক দিয়ে চলাচল করতে হয়। কিন্তু ধুলাবালির কারণে মুখে কাপড় চেপে ধরেও চালাচল করা যায়না। আর একটু বৃষ্টি নামলে কর্দমাক্ত অবস্থাতে সড়কের নাজেহাল অবস্থার সৃষ্টি হয়। এর উপরে যানজটের মত নিত্যদিনের দুর্ভোগতো রয়েছে। তাই এসব সমস্যার মধ্য দিয়ে ধুকে ধুকে জীবনযাপন করতে হচ্ছে।

 

 

 

লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সোনারগাঁয়ের উন্নয়ন নিয়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুলের সাথে আলোচনা

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সোনারগাঁয়ে আওয়ামী রাজনীতিতে নতুন মেরুকরণ শুরু হয়েছে। লন্ডনে প্রধানমন্ত্রীর সাথে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলামের আলোচনার পর নেতা-কর্মীদের মধ্যে নতুন চাঙ্গাভাব দেখা দিয়েছে। আসন্ন সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পাওয়া নিয়ে সোনারগাঁয়ের অনেকের ঘুম হারাম হয়েগেছে। সোনারগাঁয়ের মাঠ পর্যায়ের অনেক নেতা-কর্মী ইতিমধ্যে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলামের দিকে ঝুঁকতে শুরু করেছে। ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম প্রবাসে আওয়ামীলীগের রাজনীতি চাঙ্গা করে এবং সোনারগাঁয়ে এসে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে তিনি আলোচনায় এসেছেন। তিনি এখন সোনারগাঁয়ের জন্য ফ্যাক্টর। মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের দাবি ইঞ্জিয়িার শফিকুলকে মনোনয়ন দিলে সোনারগাঁয়ের রাজনীতি নতুন মোড় নিবে এবং ঝিমিয়ে পড়া আওয়ামীলীগের রাজনীতি অনেকটা চাঙ্গা হবে। সম্প্রতি লন্ডনে প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা  ব্যস্ত সময়ের মধ্যেও ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রবাসীদের সাথে মতবিনিময় এবং বাংলাদেশকে উন্নয়ণশীল রাষ্ট্রের মর্যাদা পাওয়ায় যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা গ্রহণ করেন। গত শনিবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগের বিভিন্ন নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সংবর্ধনা শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলামের সাথে সোনারগাঁয়ের আওয়ামী রাজনীতি ও এলাকার উন্নয়ন নিয়ে কথা বলেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন বিশিষ্ট কলামিষ্ট ও সাংবাদিক আব্দুল গাফ্ফার চৌধুরী। প্রধানমন্ত্রী হোটেল কর্টেজে আসার সময় যুক্তরাজ্য বিএনপি ও জামাতের ক্যাডাররা স্থানীয় সাংবাদিকদের উপর হামলা ও ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়ার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান যুক্তরাজ্য আওয়ামীলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম। ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম আসন্ন সংসদ নির্বাচনে সোনারগাঁ আসন থেকে আওয়ামীলীগের সম্বাব্য মনোনয়ন প্রত্যাশী। ইতিমধ্যে তার নেতৃত্বে সোনারগাঁয়ে নেতা-কর্মীরা আওয়ামীলীগের রাজনীতি আরও গতিশীল হওয়ার জন্য কাজ করছে। নেতা-কর্মীদের মাঝে নতুন করে স্বপ্ন দেখা শুরু হয়েছে। নেতা-কর্মীরা জানান, তিনি মনোনয়ন পেলে সোনারগাঁয়ের অনেক উন্নয়ন হবে। বর্তমানে তিনি প্রবাস থেকে সোনারগাঁয়ের আওয়ামীলীগের খোজঁ খবর রাখছেন।  আমরা তার নেতৃত্বে নৌকা প্রতীকে ভোট দিতে চাই।

 

 

সকল মানুষেরই প্রাণের মায়া আছে :লিপি ওসমান

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

বিগত ২০০১ সালে জোট সরকারের আমলে কেন স্বপরিবারে দেশত্যাগ করেছিলেন, এবার তারই ব্যাখা দিলেন জাতীয় মহিলা সংস্থা নারায়ণগঞ্জ জেলা চেয়ারম্যান ও সংসদ সদস্য শামীম ওসমানের সহধর্মিনী সালমা ওসমান লিপি। সদর উপজেলা পরিষদের তাসনীম জেবিন বিনতে শেখের বিদায় ও নবাগত উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসনে আরা বেগমের বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন। গতকাল সোমবার দুপুর ১২ টায় সদর উপজেলা মিলনায়তনে উপজেলা চেয়ারম্যান এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাতেমা মনির, গোগনগর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নওশেদ আলী, এনায়েত নগর ইউপি চেয়ারম্যান মো: আসাদুজ্জামান, কুতুবপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুল আলম সেন্টু, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সুরাইয়া আশরাফী, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো: মনিরুল হক, ফতুল্লা ইউপি চেয়ারম্যান লুৎফর রহমান স্বপন, সহকারী কমিশনার ভুমি (ফতুল্লা) মো: তরিকুল ইসলাম, বিআরডিবি কর্মকর্তা বেলাল হোসেন, উপজেলা মৎস্য অফিসার মামুনুর রশিদ চৌধুরী, উপজেলা কৃষি অফিসার আব্দুল গফফার, জেলা পরিষদের সদস্য মো: মোস্তফা হোসেন চৌধুরী প্রমুখ। লিপি ওসমান বলেন, ‘অনেকে প্রশ্ন তোলেন ২০০১ সালে কেন আমরা দেশ ছেড়ে পালিয়েছিলাম। তখন আমার স্বামীকে (শামীম ওসমান) ফোন করে দেশ ছাড়ার হুমকি দেয়া হতো। দেশত্যাগ না করলে মেরে ফেলার হুমকি দিত। তখন ছোট ছোট দুই সন্তানকে নিয়ে দু:শ্চিন্তায় পড়ে যাই। কিন্তু আমি তাদের উদ্দেশ্যে প্রশ্ন রাখতে চাই, যখন আমরা দেশত্যাগ করার পর দুবৃর্ত্তরা আমাদের বাড়ী বুলেটের গুলিতে ঝাজরা করে দিয়েছিল তখন আপনারা কোথায় ছিলেন? ঐ বাড়ীতে একজন নারী কেয়ারটেকারকেও নির্যাতন করতে কার্পণ্য বোধ করেনি তারা।’ তিনি বলেন, আমি বলতে চাই সকল মানুষেরই প্রাণের মায়া আছে। উন্নয়ণ বেশী করায় আমার স্বামী তাদের শত্রু হয়ে গিয়েছিলেন। মহানবীও ধর্মের প্রয়োজনে হিজরত করেছিলেন। তেমনি জণগণের স্বার্থে তিনি তখন দেশত্যাগ করেছিলেন। লিপি ওসমান আরো বলেন, জ্ঞান, বুদ্ধি ও বিবেক দিয়ে সরকারী কর্মকর্তা কর্মচারীরা কাজ করে থাকে। একজন মানুষ পরিপূর্ন তখন হয় যখন সততা ও ন্যায় নিষ্ঠা নিয়ে কাজ করে থাকে। যারা সরকারী কর্মকর্তা আছেন তারা স্বাধীন নন, তারা দায়বদ্ধ থাকেন। আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছিলেন শ্রেষ্ঠ হিসেবে। যতদিন পর্যন্ত মানুষের মনমানসিকতার পরিবর্তন হবেনা ততদিন দেশ উন্নত হবেনা। দেশ এগিয়ে নিতে সবাইকে সৎ সাহসিকতা নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। প্রধানমন্ত্রী দেশকে এগিয়ে নিতে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন। আপনারা তার পাশে থাকবেন, দেশকে বিশ্ব দরবারে উচ্চ আসনে যেন অধিষ্ঠিত করতে পারেন। নবাগত ইউএনও হোসনে আরা বেগম বলেন, আমি সবার সহযোগিতা চাই। নারায়ণগঞ্জে এটা নিয়ে আমার তৃতীয় বারের মত পোষ্টিং। সদর উপজেলাকে সাধ্যমত সাজানোর চেষ্টা করবো। সভাপতির বক্তব্যে আজাদ বিশ্বাস বলেন, উপজেলা পরিষদের কাজ স্থানীয় এমপি শামীম ওসমানের পরামর্শে করে থাকি। এর আগে বিদায়ী ও নবাগত ইউএনওকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়।

 

 

সাড়ে চার কোটি টাকার মাদক ধ্বংস !

 

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সাড়ে চার কোটি টাকার মাদক ধ্বংস করেছে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ। সোমবার বিকেলে নারায়ণগঞ্জ আদালত প্রাঙ্গণে অতিরিক্ত চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের উপস্থিতিতে মাদক ধ্বংস করা হয়। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আশেক ইমাম, মেহেদী হাসান, জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আহমেদ হুমায়ুন কবীরসহ প্রশাসনের লোকজন। ধ্বংসকৃত মাদকের মধ্যে রয়েছে ৩৯০৭ বোতল ফেন্সিডিল, ১৭৬৪ ক্যান বিয়ার, ১৫৪ লিটার চোলাই মদ, ৩৯২ কেজি গাঁজা, ৫৮০ পুরিয়া হেরোইন ও ১লাখ ২২ হাজার ৯৫০ পিস ইয়াবা।

 

 

 

হেফাজতের আমীরসহ বিএনপি নেতাদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

 

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ জেলা হেফাজত ইসলামের আমির মাওলানা আব্দুল আউয়াল ও জেলা বিএনপির সহ সভাপতি খন্দকার আবু জাফর সহ বিএনপি এবং হেফাজতের ৬২ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছে নারায়ণগঞ্জের একটি আদালত। ২০১৩ সালের হেফাজতের অবরোধ কর্মসূচিতে নাশকতার মামলায় গতকাল রবিবার সকালে নারায়গঞ্জ জেলার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট অশোক কুমার দত্তের আদালতে চার্জ শুনানির দিন আসামিরা উপস্থিত না থাকায় আসামিদের বিরুদ্ধে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২০১৩ সালে ১১ মে কাঁচপুর পুলিশ ফাঁড়িতে ভাঙচুর অগ্নি সংযোগের ঘটনায় সোনারগাঁও থানা পুলিশ বাদি হয়ে ৮২ জন বিএনপি ও হেফাজতের নেতাকর্মীর নামে সোনারগাঁও থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় গতকাল রবিবার সকালে ৮২ জন আসামীর মধ্যে ২০ জন আসামী আদালতে হাজির হয়ে সময় আবেদন করলে আদালত তাদের সময় আবেদন মঞ্জুর করে বাকি ৬২ জনের সময় আবেদন খারিজ করে তাদের বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করেন।

 

 

মেয়র আইভী ও এসপিকে হকারদের চ্যালেঞ্জ

 

 

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ জেলা পুলিশ সুপার ও মেয়র আইভীকে হকারদের ফুটপাতে বসার আবারও হুংকার দিলেন জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদ। হকার নারায়ণগঞ্জে আলোচনা সমালোচনার একটি নাম। এদের উচ্ছেদ ও পুর্নবাসন নিয়ে আইভী বনাম শামীম ওসমান গ্রুপ সংর্ঘষের ঘটনায়ও জড়িয়ে পরেছিলো। এনিয়ে ক্ষমতাশীন দলের হাই কমান্ড ভেবে ছিলেন অনেক কিছু। বেশ কিছু দিন বিষয়টি ধামাচাপা অবস্থায় উপনিত হলেও নতুন করে মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা হকার্স সংগ্রাম পরিষদের নামে একটি সংগঠন। গতকাল রোববার সকাল ১১টায় চাষাড়া শহিদ মিনারে বিক্ষোভ মিছিল পূর্বক সমাবেশে এই হুশিয়ারী দেন কথিত এই সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা। যে কোন মূলে হউক রমজান মাসে নগরীর ফুটপাত আবারও দখল করবেন তারা। অপর দিকে শুরু থেকে জেলা পুলিশ সুপার ও মেয়র আইভী স্পষ্ট ভাষায় বলে দিয়েছেন কোন অবস্থাতেই ফুটপাতে হকারদের বসতে দেয়া হবে না। সংগঠনটির দাবী দীর্ঘ ৪-৫ মাস যাবৎ ধৈর্য্যের সাথে অধিকার আদায়ে আন্দোলন করছেন তারা। সেই সাথে মেয়র আইভী বরাবর প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন সংগঠনটির নেতৃবৃন্দরা। তারা দাবী করে বলেন, আমাদের মালামাল নাসিক কর্মকতারা নিয়ে গিয়ে তাদের আত্মিয় স্বজনদের কাছে টেন্ডারে বিক্রি করে দিয়েছে কোন আইনের বলে। তাদের এই প্রশ্নের জবার নাসিক কর্তপক্ষ আজও দিতে পারবে কিনা সেই ধুম্রজালে আবদ্ধ রয়েছেন তারা। আর এই দুর্বলতা বা স্বচ্ছতা যাই বলা হউক না কেন এটাকে ইস্যু করে আবারও নিজেদের পুর্নবাসন দাবী করেন। সেই সাথে রমজান মাসে তারা আবারও ফুটপাতে বসবে বলে হুংকার প্রদান করেন। বেশ কিছু দিন যাবৎ নগরীর ফুটপাত গুলো হকারদের দখল মূক্ত থাকাতে সাধারণ মানুষের চলাচল করতে অনেকটাই সুবিধা ভোগ করেছেন। ছিলো না ফুটপাতে চাঁদা আদয়ের মহড়া কিন্তু হকারদের এই হুশিয়ারী স্পষ্ট হয়ে উঠছে আবারও দখলে যেতে পারে জনগনের নিরাপদ পায়ে চলার পথ ফুটপাত। এখন দেখার বিষয় মেয়র আইভী ও জেলা পুলিশ সুপার নিচ্ছেন জনস্বার্থে কি ব্যবস্থা। এমনই মন্তব্য করেন নারায়ণগঞ্জবাসী। নারায়ণগঞ্জবাসী মনে করেন হকারদের স্থায়ী পূর্নবাসন করা হউক।

 

 

প্রধানমন্ত্রীর সাথে সোনারগাঁয়ের রাজনীতি নিয়ে ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলামের আলোচনা

 

 

 

সোনারগাঁ প্রতিনিধি

প্রধানমন্ত্রী শেখহাসিনা লন্ডনে ব্যস্ত সময়ের মধ্যেও লন্ডন প্রবাসীদের সাথে মতবিনিময় এবং বাংলাদেশকে  উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদায় স্থান পাওয়ায় ইউকে আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে সংবর্ধনা গ্রহন করেন। গত বৃহস্পতিবার সন্ধায় হোটেল লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ইউকে আওয়ামলীগের বিভিন্ন নেতা কর্মীরা উপস্থিত ছিলে। অনুষ্ঠান শেষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাথে লন্ডনের কার্টেজ হোটেলে সোনারগাঁয়ের রাজনীতি ও উন্নয়ন বিষয়ে কথা হয় বলে প্রতিবেদককে জানান লন্ডন প্রবাসী আওয়ামলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম। তিনি জানান এসময় সাথে ছিলেন প্রখ্যাত কলামিস্ট ও সাংবাদিক আব্দুল গাফ্ফার চৌদুরী। অন্যদিকে কার্টেজ হোটেলের সামনে উপস্থিত সাংবাদিকদের উপর হামলা চালায় লন্ডন বিএনপি ও জামাতের লোকজন। সাংবাদিকদের ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে যায়। সাংবাদিকদের উপর বিএনপি জামাতের হামলার তীব্র নিন্দা জানান লন্ডন প্রবাসী আওয়ামীলীগ নেতা ইঞ্জিনিয়ার শফিকুল ইসলাম। তিনি আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সোনারগাঁ সোনারগাঁ আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সম্ভাব্য মনোনয়ন প্রার্থী।

হৃদয় হত্যাকারী মোমেন গ্রেফতার

 

 

আড়াইহাজার প্রতিনিধি

আড়াইহাজারের তৃতীয় শ্রেণির ছাত্র হৃদয়কে পুড়িয়ে হত্যার মূল হোতা রাশেদুল ইসলাম মোমেনকে ঘটনার ৯ দিন পর গ্রেফতার করতে পারেছে পুলিশ। ৪৮ ঘন্টার অভিযানে গত শনিবার রাতে ময়মনসিংহের নান্দাইল এলাকার থেকে তাকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হন পুলিশ। মামলার তদন্তাকারী কর্মকর্তা আড়াইহাজার থানার এসআই কাসেম জানান, ঘটনার পর থেকেই শেফালির কথিত প্রেমিক রাশেদুল ইসলাম মোমেন পলাতক ছিল। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে প্রযুক্তির ব্যবহারের মাধ্যমে গত শনিবার গভীর রাতে ময়মনসিংহ নান্দাইল এলাকার ৪৮ ঘন্টার অভিযানে এক দুসম্পর্কের আত্মীয়ের বাড়িতে আত্মগোপনে থাকাবস্থায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। সে স্থানীয় বিল্লাল হোসেনের ছেলে। গতকাল রোববার সকালে তাকে ৭ দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। আড়াইহাজার থানার ওসি এম এ হক গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  এদিকে মামলার বাদী বিল্লাল হোসেন বলেন, হত্যা কান্ডের মূল আসামিকে পুলিশ গ্রেফতার করায় আমি খুশি হয়েছি। তবে দ্রুত তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানাচ্ছি। এর আগে ঘটনাস্থল থেকে গ্রেফতার হন নিহত হৃদয়ের মা শেফালি। এরই মধ্যে নারায়ণগঞ্জ চীফ জুডিশিয়ার ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আদালতে ১৬৪ ধারায় তিনি কথিত প্রেমিক মোমেনকে দায়ি করে জবানবন্দিও দিয়েছেন।  গত ১৩ এপ্রিল রাত সাড়ে তিনটায় ঘরে ঢুকে মা শেফালির সঙ্গে পরকীয়া প্রেমের জের ধরে মনমালন্যের এক পর্যায়ে শেফালিকে এ্যালার্জির ট্যাবলেট কৌশলে সেবন করিয়ে অজ্ঞান করে ঘুমন্ত দুই সহোদর হৃদয় ও জিহাদের গায়ে কাঁথা পেঁিচয়ে আগুন ধরিয়ে পালিয়ে যায় রাশেদুল ইসলাম মোমেন। ভাগ্যক্রমে ওই রাতে বেঁচে যায় ছোট ছেলে স্থানীয় ৩৫ নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রথম শ্রেণির পড়–য়া জিহাদ। তবে দগ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলেই মর্মান্তিক মৃত্যু হয় একই বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণিতে পড়ুয়া বড় ছেলে হৃদয়ের। এ ঘটনার এরই মধ্যে দোষিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করে হৃদয়ের বিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও অভিভাবক মহল বিদ্যালয়ের চত্বরে মানববন্ধনও করেছেন।

না’গঞ্জ ক্লাবে চেম্বার অব কমার্সের উদ্যোগে ভ্যাট বিষয়ক মতবিনিময় সভায় ভ্যাট কমিশনার : ভ্যাট দিয়ে দেশের উন্নয়ণে অংশ নিন

 

 

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ঢাকা দক্ষিনের কাষ্টমস, এক্রাইজ ও ভ্যাট কমিশনার কাজী মোস্তাফিজুর রহমান বলেছেন, ভ্যাট হলো ভোক্তাদের জন্য কর। ব্যবসায়ীদের নিজেদের পকেট থেকে কর দেওয়ার কোন ধরনের বাধ্য বাধকতা নেই। আপনারা রিয়েল কর পরিশোধ করুন। ভ্যাটের মাধ্যমেই ব্যবসা বান্ধব পরিবেশ তৈরী করা সম্ভব হয়। গতকাল শনিবার নারায়ণগঞ্জ ক্লাব মিলনায়তনে নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্স (এনসিসি) এর উদ্যোগে ঢাকা (দক্ষিন) কাষ্টমস, এক্রাইজ ও ভ্যাট কমিশনারদের সাথে নারায়ণগঞ্জ জেলার ব্যবসায়ীদের ভ্যাট বিষয়ক মতবিনিময় সভার প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, আপনি নিজে ভ্যাট দিবেন এবং অপর ব্যবসায়ীদের ভ্যাট দিতে উৎসাহ যোগাবেন। মনে রাখবেন ভ্যাটের এই চিন্তা ধারনা এসেছে ব্যবসায়ীদের মাথা থেকেই। অনকেই নিয়মনীতি মেনে ভ্যাট প্রদান করেন না। আর এ কারনেই কিছু নিয়মনীতি তৈরী করা হয়েছে। ব্যবসায়ী সংগঠনগুলো পাশে থাকলে আমরা ভ্যাটের সুষ্ট ও সুন্দর একটি পরিবেশ ধরে রাখতে পারবো। অচিরেই নারায়ণগঞ্জে ভ্যাটের একটি প্রশিক্ষন কেন্দ্র চালু করা করা হবে যাতে করে আপনারা সুন্দভাবে আপনাদের ভ্যাট প্রদান করতে পারেন। প্যাকেজ ভ্যাট তো আপনাদের জন্য। প্যাকেজ ভ্যাটগুলো আমরা ভোক্তাদের কাছ থেকে নিতে পারি না। তাই প্যাকেজ ভ্যাট আপনারা দিতে না পারলে রিয়েল ভ্যাট মানে আসল ভ্যাটতি আপনি দিবেন। নিজেরা ্যভাট দিয়ে দেশের উন্নয়নে শরীক হন। অনেকে ভাবেন ৪% ভ্যাট দিলে আপনারা লাভবান আর ১৫% ভ্যাট দিলে আপনাদের ক্ষতি এ কথাটা সঠিক নয়। হিসাব নিকাশ করলেই আপনি বুঝতে পারবেন লভ ক্ষতির হিসাব। নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি খালেদ হয়দার খান কাজলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা দক্ষিনের কাষ্টমস, এক্রাইজ ও ভ্যাটের অতিরিক্ত কমিশনার শামসুল ইসলাম, বীর মুক্তিযোদ্ধা ও বাংলাদেশ রি-রোলিং মিলস এসিসোয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, সাধারন সম্পাদক মাহবুবুর রহমান জুয়েল, বাংলাদেশ ইয়ান মার্চেন্ট এর সভাপতি দেবনাথ সাহা, বাংলাদেশ স্টীল কর্পোরেশনের সাধারন সম্পাদক মোঃ শাহজাহান, নারায়ণগঞ্জ চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি মোখলেছ সারোয়ার সহ প্রমূখ।