সোনারগাঁয়ে বালু ভরাট করে চলছে মেঘনা দখল

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বালু ভরাট করে সোনারগাঁয়ে মেঘনা নদী দখলের অভিযোগ উঠেছে সোনারগাঁ রিজোর্ট সিটি নামের একটি কোম্পানির বিরুদ্ধে। ব্যবসায়ী শাহজালালের নেতৃত্বে এ নদী দখল চলছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ করেছেন এলাকাবাসী। সরেজমিনে জিয়ানগর এলাকায় মেঘনার তীরে গিয়ে দেখা যায়, কয়েকটি শক্তিসালী ড্রেজার বসিয়ে বালু ভরাট কাজ করছেন। জানা গেছে, পিরোজপুর এলাকার কাঠ ব্যবসায়ী শাহজালাল প্রায় ৮ বছর আগে হাই স্পীড নামের একটি শীপইয়ার্ড কোম্পানিকে ওই এলাকায় প্রায় ১০ একর সম্পত্তি কিনে দেন। সেসময় তিনি ওই কোম্পানির পক্ষে বালু ফেলে অবৈধভাবে মেঘনা নদী ভরাট করতে শুরু করলে স্থানীয় প্রশাসন বালু ভরাটের কাজ বন্ধ করে দেয়। পরে সোনারগাঁ রিজোর্ট সিটি নামের একটি কোম্পানি এ জায়গা কিনে নেয়। সম্প্রতি পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কবির হোসেন, আফজাল ও ব্যবসায়ী শাহজালালের নেতৃত্বে ৩০-৩৫জনের একটি সিন্ডিকেট সোনারগাঁ রিজোর্ট সিটির পক্ষে পুনরায় বালুর ভরাটে মেঘনা নদী দখল করে করছেন। গ্রামবাসী এতে বাঁধা দিয়েও কোন প্রতিকার পাচ্ছেনা। ভালু ভরাট কারীরা এলাকাবাসী হওয়ায় কে মুখ খুলতে সাহ পয়না। জিয়ানগর গ্রামের মোবারক হোসেন বলেন, কবির মেম্বার ও আফজাল হোসেন যেভাবে নদীর জায়গা দখল করে বালু ভরাট করছে তাতে করে আমরা মেঘনা নদীতে নেমে কোন ধরনের কাজকর্ম করার সুযোগ পাব না। নদীর জায়গা ভরাটের বিষয়ে বাঁধা দিতে গেলে চাঁদাবাজির মামলা দিবে বলে তারা হুমকি দেয়। এ ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি। বালু ভরাটের সাথে জড়িত পিরোজপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য কবির হোসেনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, এ ভরাট কাজের সাথে তিনি জড়িত নয়। তবে স্থানীয় ব্যবসায়ী শাহজালাল কোম্পানির পক্ষে এ ভরাট কাজ করছেন। এ ব্যাপারে স্থানীয় ব্যবসায়ী শাহজালালের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। সোনারগাঁ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহিনুর ইসলামের মুঠু ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *