জামাতের মতই না’গঞ্জে বিএনপির অস্তিত্ব হুমকির মুখে

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে জামাতের অস্তিত্ব নেই বললেই চলে। গত কয়েক বছর ধরেই প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের কারণে জামাত-শিবিরের নেতারা আত্মগোপনে চলে গেছে। তবে একাদশ সংসদ নির্বাচনকে ঘিরে জামাত নেতারা গোপনে গোপনে নিজেদের অবস্থান শক্ত করার চেষ্টা করলেও তারা ব্যর্থ হয়েছেন। তার জামাতের মতই নারায়ণগঞ্জে বিএনপির অস্তিত্ব এখন হুমকির মুখে পড়েছে। জানাগেছে, বিগত দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর সরকার বিরেধী আন্দোলনে ২০ দলীয় জোটের সরকার বিরোধী আন্দোলনের নামে অনিদিষ্টকালের অবরোধসহ হরতালে রাজপথে ছিল না ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের। ঐসময থেকেই নারায়ণগঞ্জে জামাত-শিবিরের নেতারা আত্মগোপনে চলে যায়। যারফলে একাদশ সংসদ নির্বাচনেও প্রকাশ্যে জামাত-শিবিরের নেতাদের নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে দেখা যায়নি। স্থানীয় জামাত শিবিরের নেতারা শুধু মাত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকেই সক্রিয় রয়েছেন। আর জামাতের পথ অনুসরন করেই নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতারা এখন শুধুমাত্র ফেসবুকেই সক্রিয় রয়েছেন। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ভরাডুবির পর বিএনপির নেতারা রাজপথ ভুলে গিয়েছেন। নেতারা আত্মগোপনে চলে যাওয়ায় কর্মীরা এখন হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। নেতৃত্ব সংকট থাকায় নারায়ণগঞ্জে বিএনপিকে সাংগঠনিক কর্মকান্ডে দেখা যাচ্ছে না। নির্বাচনের পরে বিএনপির প্রথম কর্মসূচী পালনেও মাটে নামতে দেখা যায়নি জেলা বিএনপিকে। তবে ১১জন মিলে ফটোসেশনের মধ্যদিয়ে কর্মসূচী পালন করেছে মহানগর বিএনপি। তবে রাজপথে না থাকলেও স্থানীয় বিএনপির বেশ কযেকজন শীর্ষ নেতা ফেসবুকে আপত্তিকর স্ট্যাটাস দিয়ে রাজনীতিতে সক্রিয় থাকার চেষ্টা করছেন। তবে বিএনপির মাঠ পর্যায়ের ত্রাগী নেতারা বলছেন, ফেসবুকে সক্রিয় না থেকে রাজপথে আন্দোলন না করলে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির অস্তিত্ব থাকবে না। একাদশ সংসদ নির্বাচনে ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলা নারায়ণগঞ্জে বিএনপির অবস্থা নিয়েও প্রশ্নও দেখা দিয়েছে রাজনৈতিক মহলে। কেননা বিএনপির অনেক নেতা দলীয় প্রার্থীর পক্ষে কাজ না করে প্রতিপক্ষের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করেছেন। সূত্রে জানা যায়, বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের পতনের দাবিসহ বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির লক্ষ্যে একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেয় বিএনপি তথা ঐক্রফ্রন্ট। নির্বাচনে ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের ভরাডুতিতে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির নেতারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। তবে বিএনপির নেতারা দাবী করছেন, রাজপথে থাকাতো দূরের কথা বিএনপির নেতৃবৃন্দ তাদের বাড়ী ঘরেও থাকতে পারছে না। নির্বাচনের আগে জেলার সাতটি থানায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় নেতারা কর্মীরা এখনো আত্মগোপনে রয়েছেন। কেউ বা জামিনে আসলেও অনেকে জামিন পেতে আদালতপাড়ায় দিন কাটাচ্ছেন। আর যারা জামিন পেয়েছেন তারা পুনরায় গ্রেফতারের ভয়ে রাজপথে নামতে অনীহা প্রকাশ করছেন। তাই রাজপথে না নামায় নারায়ণগঞ্জে জামাতের পতে হেটেই নিজেদের অস্তিত্ব সংকটে ফেলছে বিএনপির নেতারা।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *