নারায়ণগঞ্জ বিএনপি কর্মসূচি পালনে ব্যর্থ

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

দলীয় কর্মসূচি পালনে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের অনীহা লক্ষ্য করা গেছে। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী প্রথম কর্মসূচিতে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির কয়েকজন নেতার রাজপথে দেখা মিললেও নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপি ও তাদের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের কোন পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকেই রাজপথে দেখা মিলেনি। একই সাথে মহানগর বিএনপির কয়েকজনকে দেখা গেলেও সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালামের দেখা মিলেনি। ফলে তাদের এসকল কর্মকান্ডে দলীয় কর্মসূচি পালনে অনীহার প্রমাণ মিলছে। সূত্র বলছে, ক্ষমতার হারানোর প্রথমদিকে কিছু সময়ের জন্য রাজপথে নেতাকর্মীদের দেখা মিললেও ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির নতুন কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকে পুলিশের ভয়ে রাজপথ থেকে হারিয়ে যান নেতাকর্মীরা। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একের পর এক হামলা মামলায় নেতাকর্মীরা হয়ে পড়েন ঘরছাড়া। নেতাকর্মীদেরকে বেশিরভাগ সময় আদালতমুখী থাকতে হয়। গ্রেফতারের ভয়ে শীর্ষ নেতাকর্মীদের থাকতে হয় কর্মসূচির বাইরে। কর্মসূচি পালনকালে তাদের নেতাকর্মীর সংখ্যাও কমে যায়। ফলে তাদের আন্দোলন সংগ্রামও তেমন জোরদার হয়ে উঠে না। যার সূত্র ধরে এবার দলীয় কর্মসূচি পালনে নারায়নগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের অনীহা লক্ষ্য করা যাচ্ছে। জানা যায়, গত বছরের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে রয়েছেন। প্রথমে দুর্নীতি মামলায় কারাগারে গেলেও বর্তমানের তার বিরদ্ধে অনেকগুলো মামলা রয়েছে। একটি মামলায় জামিন পেয়ে গেলেও অন্য একটি মামলায় ফের তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে বেগম জিয়া কারাবাস এক বছর পূর্ণ হলো। আর এই এক বছরে আন্দোলন সংগ্রামে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের জোড়ালো ভূমিকা লক্ষ্য করা যায়নি। পাশাপাশি গত ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হয়ে যাওয়া একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীরা জোড়ালো ভূমিকা রাখতে পারেনি। সেই নির্বাচন কারচুপির অভিযোগ ও বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়াসহ সারাদেশের বিএনপির নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে ফের আন্দোলন সংগ্রামে সরব হওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। তারই ধারাবাহিকতায় ৯ ফেব্রুয়ারি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াসহ ও সারাদেশে বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে দেশব্যাপী প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছিল বিএনপি। কিন্তু এক্ষেত্রে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ও তাদের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের রাজপথে দেখা মিলেনি। প্রতিবাদ কর্মসূচি পালনে মহানগর বিএনপির গুটি কয়েক নেতার দেখা মিললেও সভাপতি অ্যাডভোকেট আবুল কালাম অনুপস্থিত। আর নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির কোন পর্যায়ের নেতাকর্মীকেই রাজপথে পাওয়া যায়নি। একই সাথে যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল, কৃষকদল, মহিলাদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদেরও রাজপথে দেখা পাওয়ার যায়নি। তাদের এই ভূমিকাকে কেন্দ্র করে বিএনপির তৃনমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা কর্মসূচি পালনে অনীহাকেই দায়ী করছেন। এর আগে কর্মসূচি পালনের বিষয়ে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মামুন মাহমুদ বলেছিলেন, আমাদের বিভিন্ন থানা থেকে কর্মীদের যোগা দিতে হয়। কিন্তু আমাদের অনেক নেতাকর্মী এখন পর্যন্ত বিভিন্ন রাজনৈতিক হয়রানিমূলক মামলায় কারাগারে রয়েছে। তারা এখনও জামিন পায় নাই। আর এসব কারণে কর্মসূচি পালন করার ব্যাপারে নেতাকর্মীদের তেমন একটা প্রস্তুতি নেই।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *