নারায়ণগঞ্জ বিএনপি অভিভাবকহীনতায় হতাশা গ্রস্থ তৃনমূল নেতাকর্মীরা

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিকাঙ্গন থেকে পিছিয়ে পিছিয়ে পড়ছে বিএনপি। এক দিকে জাতীয় সংসদ নির্বাচন অন্যদিকে নারায়ণগঞ্জ বারের নির্বাচনÑ এই দুই নির্বাচনে ভরাডুবিতে এর প্রভাব পড়েছে তৃণমূলে। এছাড়াও দলের সাংগঠনিক কর্মকান্ড না থাকা এবং সঠিক নেতৃত্বের অভাবে দলটির তৃণমূলকে ঝেঁকে ধরেছে হতাশায়। তৃণমূল বলছে, মষ্টিমেয় কিছু স্বার্থান্বেষী মহলের হাতে জিম্মি হয়ে পড়েছে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি। কেন্দ্রীয় কিছু অসাধু নেতার বাণিজ্যের কারণে জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃত্বে চলে যায় অযোগ্য ও অর্থবদের হাতে। ফলশ্রুতিতে এখানে দলটির সাংগঠনিক কর্মকান্ডে মন্থরগতি এসে যায় আর এর প্রভাব পড়তে শুরু করে তৃণমূলে।
শুধু তাই নয়, এখানে নেতৃত্বদানকারীরা নিজ বলয় বাড়ানোর মানসে দলটির এমন দুর্দিনেও বিভাজনের রাজনীতিতে অভ্যস্ত হয়ে পড়ায় দলটির প্রতিটি ইউনিটেই এখন হ-য-ব-র-ল অবস্থা বিরাজ করছে। সর্বশেষ ফতুল্লা থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি গঠন কার্যক্রমে এখানকার বিএনপি নেতাদের দৈন্যদশা স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। একই সাথে স্পষ্ট হয়ে উঠেছে বিভক্তি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরা বলছে, বিএনপির এখন চরম ক্রান্তিকাল চলছে। এ সময়ে মান অভিমান, দ্বিধা-বিভক্তি ঘুচিয়ে সবাইকে একটি প্লাটফর্মে নিয়ে এসে কাজ করা দরকার। কিন্তু সেদিকে এখানকার নেতৃত্বদানকারীরা না গিয়ে পূর্বের মতো বিভেদ আরও বেশি করে উস্কে দিচ্ছে। কমিটি গঠনের ক্ষেত্রে পূর্বেকার সেই মাইনাস ফর্মূলাতেই আবদ্ধ রয়েছে তারা। যার উৎকৃষ্ট উদাহারণ ফতুল্লা থানা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটি। তারা বলছেন, এসময় অত্যন্ত যোগ্যতা সম্পূর্ণ ব্যক্তিকে দলটির নেতৃত্বে আনা দরকার ছিলো কিন্তু সে না করে কর্মীহীন অথর্ব ব্যক্তিকে এর নেতৃত্বে আনা হয়েছে। একই ভাবে এই কমিটির আরও যারা রয়েছে তারাও ফতুল্লা থানা বিএনপির কমিটিতে স্থান পাওয়ার কোনো যোগ্যতাই রাখে না। তবে, বিএনপির একটি গ্রুপকে মাইনাস করার লক্ষ্যেই এ কাজটি করা হয়েছে বলেই তারা মনে করছেন। একই সাথে বোদ্ধারা আরও বলছেন, ফতুল্লা শুধুমাত্র একটি উদাহরণ। একই অবস্থা প্রতিটি থানা এলাকাতেই। এমনকি জেলা মহানগরের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা বিরজ করছে। এর থেকে উঠে আসতে হলে যোগ্য ব্যক্তিদের হাতে নেতৃত্ব তুলে দিতে হবে। অন্যথায় নারায়ণগঞ্জ বিএনপি কিতাবে থাকলেও গোয়ালে খুঁজে পাওয়া যাবে না। তৃণমূল প্রত্যাশা করছে, নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে এর থেকে তুলে আনতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উদ্যোগ গ্রহণ করবে। আর সেটি অবশ্যই যতদ্রুত সম্ভব করা প্রয়োজন বলে তারা দাবি করছেন।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *