অস্থিত্ব নেই নারায়ণগঞ্জ যুবদলের

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
প্রায় ৫ মাসের অধিক সময় পার হলেও কেন্দ্র ঘোষিত জেলা ও মহানগর যুবদলের আংশিক কমিটির নেই তেমন কোনো সাংগঠনিক কর্মকান্ড। এছাড়াও বিএনপির সহযোগী সংগঠনের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী এই যুব সংগঠনটির নেতাদের মধ্যে ঐক্যের চেয়ে বিভাজনের আচরন বেশী লক্ষ্যণীয়। কেন্দ্র ঘোষিত মূলদলের কর্মসূচিগুলোতে দ্বন্দ্বের কারনে তাদের উপস্থিতি যেন অসাধ্য হয়ে দাঁড়িয়েছে। এছাড়াও নিজেদের সাংগঠনিক কর্মকান্ড থেকে শুরু করে তৃনমূল পর্যায়ে নেতাকর্মীদের নিয়ে ঘর গোছানোর পরিবর্তে নিজেরাই বদ্ধ ঘরে আবধ্য হতে বেশী সাছন্দ্যবোধ করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে তৃনমূল পর্যায় থেকে। কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে লবিং করে গুরুত্বপূর্ন পদ পদবি বাগিয়ে আনতে পারদর্শীতার প্রমান দিতে সক্ষম হলেও সাংগঠনিক দক্ষতার ক্ষেত্রে দিচ্ছে ব্যর্থতার পরিচয়। অভিযোগ উঠেছে, নির্বাচন থেকে শুরু করে খালেদা জিয়ার কারাবারণ এবং দলীয় নানা কর্মসূচিতেও কোনো রকম ভূমিকা রাখতে পারেনি জেলা ও মহানগর কমিটির নেতাকর্মীরা। বিশেষ করে নির্বাচনের মাঠে এই দুই কমিটির দায়িত্বশীলরা ছিলেন একেবারেই অনুপস্থিত। বলা হয়ে থাকে, বিশেষ একটি পরিবার থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়ে নির্বাচনী মাঠ থেকে দূরে সরেছিলেন মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। শুধু তাই নয়, উভয় কমিটি আংশিক গঠনের পাঁচ মাস অতিবাহিত হলেও এখনও পর্যন্ত তা পূর্ণাঙ্গ রূপ দিতে পারেনি দায়িত্বশীল নেতারা। এ নিয়েও ক্ষোভ বিরাজ করছে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে। পাশাপাশি বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ড কমিটি গঠনেরও কোনো উদ্যোগ নেই তাদের। প্রসঙ্গত, ২০০৭ সালে বর্তমান জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক মামুন মাহামুদকে সভাপতি ও আশরাফুল আলম রিপনকে সাধারণ সম্পাদক করে ১৫১ সদস্য বিশিষ্ট নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়। পরবর্তীতে ২০১২ সালের সভাপতি মোশারফ হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি সালাউদ্দীন মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম মুকুল, সাংগঠনিক সম্পাদক একরামুল কবির মামুনকে দিয়ে নারায়ণগঞ্জ জেলা যুবদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়। তবে সেই কমিটিতেও দায়িত্বে থাকা নেতারা নিজেদের মধ্যে দ্বন্দ্বের কারনে সাংগঠনিক ভাবে এগিয়ে যেতে পারেনি। এর ঠিক কয়েক বছর পরই মহানগর যুবদলের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষনা করেন কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ। এদিকে, দীর্ঘ ৬ বছর পর ফতুল্লা থানা যুবদল সভাপতি শহীদুল ইসলাম টিটুকে সভাপতি ও রূপগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সভাপতি গোলাম ফারুক খোকনকে সাধারণ সম্পাদক করে জেলা যুবদলের কমিটি ঘোষনা করা হয়। এই কমিটিতে সালাউদ্দিন চৌধুরী সালামত, একেএম আমিরুল ইসলাম ইমন ও হারুন অর রশিদ মিঠুকে সহ-সভাপতি, শহীদুর রহমান স্বপন ও রফিকুল ইসলাম ভূইয়াকে যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এবং জিয়াউল ইসলাম চয়নকে সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব প্রদান করা হয়। অপরদিকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর যুবদলের আহবায়ক কমিটি ভেঙ্গে মাকছুদুল আলম খন্দকার খোরশেদকে সভাপতি ও মনতাজ উদ্দিন মন্তুকে সাধারণ সম্পাদক করে আংশিক কমিটি ঘোষনা করা হয়েছে। এ কমিটিতে মনোয়ার হোসেন শোখন সহ-সভাপতি, সাগর প্রধান যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও রশিদুর রহমান রশুকে সাংগঠনিক সম্পাদক পদে দায়িত্ব প্রদান করা হয়।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *