পরিবেশ দূষণে করছে সিমেন্ট কারখানাগুলো

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
বন্দর উপজেলার মদনগঞ্জ সহ বন্দরের বিভিন্ন সিমেন্ট কারখানাগুলো লাগামহীনভাবে পরিবেশ দূষণ ও শব্দ দূষণে জনজীবন বসবাসের অযোগ্য করে তুলছে। ফলে ওইসব এলাকা বসবাসরতরা ফুসফুসে ক্যান্সার, শ^াসকষ্ট সহ বিভিন্ন রোগে ভুগছে। এর জন্য একমাত্র দায়ী বিভিন্ন সিমেন্ট কারখানাগুলো। আইন অনুযায়ী বায়ুতে ভাসমান বস্তুর গ্রহণযোগ্য মাত্রা ২০০ পিপিএম কিন্তু এর চেয়ে অনেক বেশি মাত্রার ধূলিকণা বায়ুতে প্রবাহিত হচ্ছে। কোনো ক্ষেত্রে তা গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে ৩ গুণেরও বেশি। ধুলোকনা কিংবা শব্দ দুষনের প্রতিরোধক বিকল্প কোন ব্যবস্থাও নাই। এতে করে ক্লিংকারের গুঁড়া, চুনাপাথর, ফ্লাইঅ্যাশ, মাটিতে থাকা ধূলিকণা ও পারদ মিশে যাচ্ছে বায়ুতে। মারাত্মক দূষণ ঘটাচ্ছে পরিবেশের। জনজীবন হচ্ছে বিপর্যস্ত। সিমেন্ট কারখানার ক্ষতিকর ধূলিকণা বায়ুর মাধ্যমে পরিবেশের সঙ্গে মিশে কাঁচামাল মিশ্রণের ফলে সিমেন্ট তৈরি হয়। তাই এসব ধূলিকণা বিষাক্ত হয়ে থাকে। আশপাশের পরিবেশ, জীববৈচিত্র, কৃষিজমি ও ফসলের মারাত্মক ক্ষতি করে। প্রতিদিন কারখানাগুলোয় শত শত ট্রাক সিমেন্টের মূল কাঁচামাল ক্লিংকার আনা হয়। এসব ক্লিংকার ট্রাক থেকে নিচে ফেলার সময় চারদিক ধুলায় পরিপূর্ণ হয়ে যায়। ট্রাক থেকে সরাসরি প্লান্টে ফেলা হলে এ ধুলার সৃষ্টি হতো না। প্যাকিং যেখানে হয়, সেখানে ধুলা হয় বেশি। বড় বড় পাথর আকৃতির ক্লিংকার ভাঙিয়ে গুঁড়াকরণ প্রক্রিয়ায়ও ধুলার সৃষ্টি হয়। এসব ধূলিকণা শ্বাসনালী দিয়ে প্রবেশ করলে হাঁপানীসহ ফুসফুসে ক্যান্সার পর্যন্ত হতে পারে। এ ব্যাপারে পরিবেশ অধিদপ্তরের নিয়মনীতি তোয়াক্কা না করে যে সব সিমেন্ট কারখানা পরিবেশ দুষণ করে মানুষের ক্ষতি সাধন করে যাচ্ছে অনতিবিলম্বে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নাসিক মেয়র সেলিনা হায়াত আইভির সুদৃষ্টি কামনা করছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

About ডান্ডিবার্তা

View all posts by ডান্ডিবার্তা →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *