মঙ্গলবার | ২০ নভেম্বর, ২০১৮ | ৬ অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ | ১১ রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ | রাত ১১:৩২

একক সংবাদ

ভোটারদের আকৃষ্ট করতে নেতাদের নতুন কৌশল

Habib Badal | নভেম্বর ০৭, ২০১৮

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

‘সামনে ভোটতো তাই নেতাগো মাথায় টুপি উঠছে।’ নিজেদের মধ্যে আলাপচারিতায় কথাগুলো বলছিলেন রফিকুল ইসলাম ও দেলোয়ার হোসেন দু’জন অবসরপ্রাপ্ত বেসরকারী চাকুরীজীবি। গত সোমবার দুপুরে জোহর নামাজ শেষে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার সামনের দেয়ালে সাটানো পত্রিকার খবরগুলোতে চোখ বুলাতে গিয়ে নিজেদের মধ্যে আলাপচারিতায় এহেন মন্তব্য করতে শোনা যায় তাদের। মন্তব্যের কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, হঠাৎ করে কিছু নেতাকে দেখা যাচ্ছে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশায় সক্রিয় হয়ে উঠান বৈঠক কিংবা সভা সমাবেশ করছেন। আগে ওই সকল নেতাদেরকে কখনোই টুপি মাথায় দিয়ে সভা সমাবেশ করতে দেখা যায়নি। অথছ নির্বাচনের পূর্বে মনোনয়ন প্রত্যাশায় তারা আকস্মিক সক্রিয় হয়ে নিজেকে ধার্মিক প্রমাণের চেষ্টা করছেন। জানা গেছে, নারায়ণগঞ্জ জেলার ৫টি সংসদীয় আসনের আওয়ামীলীগ জাতীয় পার্টি ও বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন অর্ধশতাধিক। সদর-বন্দর আসনে আওয়ামীলীগ থেকে নির্বাচন করতে সম্ভাব্য প্রার্থীর তালিকায় আছেন জাতীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু হাসনাত মোহাম্মদ শহীদ বাদল, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি ও আওয়ামীলীগ জাতীয় কমিটির সদস্য আনিসুর রহমান দীপু, মহানগর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাত, জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আরজু রহমান ভঝইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম আবু সুফিয়ান, জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি ও জেলা যুবলীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদির। জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে অত্র আসনের বর্তমান জাতীয় পার্টি দলীয় সংসদ সদস্য বিকেএমইএ’র সভাপতি সেলিম ওসমান, তার বড় ভাই প্রয়াত সংসদ সদস্য নাসিম ওসমানের সহধর্মিনী পারভীন ওসমান, জয়নাল আবেদীন ওরফে আল জয়নাল রয়েছেন। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী তিনজন হলেন মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, মহানগর বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি ও জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও মহানগর যুবদলের আহবায়ক নাসিকের ১৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ। জেলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক পদ থেকে পদত্যাগকারি ও মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্যে যোগ দেয়া সাবেক সংসদ সদস্য এস এম আকরাম জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী হতে পারেন এমন গুঞ্জনও রয়েছে। ফতুল্লা-সিদ্ধিরগঞ্জ আসনটি ফতুল্লা ও সিদ্ধিরগঞ্জ থানা নিয়ে গঠিত। এ আসনের  বর্তমান সংসদ সদস্য আওয়ামীলীগের প্রভাবশালী নেতা শামীম ওসমানের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মনোনয়ন প্রত্যাশায় সক্রিয় রয়েছেন জাতীয় শ্রমিকলীগের শ্রমিক উন্নয়ন ও কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কাউসার আহাম্মেদ পলাশ। অপরদিকে বিএনপি থেকে এ আসনে সম্ভাব্য প্রাথী হিসেবে তালিকায় রয়েছেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির ১ নং সহ-সভাপতি শিল্পপতি মো. শাহ আলম। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হিসেবে রয়েছেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা বিএনপির সদস্য এ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মোহাম্মদ গিয়াসউদ্দিন সোনারগাঁ আসনে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে অন্যতম হলেন অত্র আসনের সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ কায়সার ওরফে কায়সার হাসনাত। এছাড়া কায়সারের চাচা সাবেক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোশারফ হোসেন, সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান কালাম, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের (স্বাচিপ) কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডা. আবু জাফর চৌধুরী বিরু, কেন্দ্রীয় আওয়ামীলীগের উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক এ এইচ এম মাসুদ দুলাল, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা এবং পুঁজিবাজার বিশেষজ্ঞ আনোয়ারুল কবির ভূঁইয়া, আওয়ামীলীগের উপ-কমিটির সদস্য লন্ডন প্রবাসী শফিকুল ইসলাম, ড. সেলিনা ইসলাম সক্রিয় রয়েছেন। কিছুদিন পূর্বে নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী অত্র আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অধ্যাপক রেজাউল করিমের ভাই শিল্পপতি বজলুর রহমান আকস্মিক নৌকা প্রতীকে মনোনয়ন প্রত্যাশার ঘোষণা দেয়ায় সোনারগাঁও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। মনোনয়ন নিয়ে সোনারগাঁয়ে আওয়ামীলীগের ন্যায় বিএনপিতেও রয়েছে বিভাজন। বর্তমানে এ আসন থেকে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী রয়েছেন ৬ জন। তারা হলেন এ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ও জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য অধ্যাপক মো: রেজাউল করিম, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও সোনারগাঁ উপজেলা বিএনপির সভাপতি খন্দকার আবু জাফর, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য, জেলা বিএনপির সহসভাপতি ও সোনারগাঁও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজহারুল ইসলাম মান্নান, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবকদলের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়াহিদ বিন ইমতিয়াজ বকুল ও যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের সাবেক মহাপরিচালক ওয়ালিউর রহমান আপেল। রাজনৈতিকভাবে  বেকায়দায় থাকা দলটির মনোনয়ন প্রত্যাশিরা মাঠের রাজনীতিতে সুবিধা করতে না পারলেও নিজ নিজ বলয় নিয়ে প্রচারনায় রয়েছেন বেশ সক্রিয়। সকলেই দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর লবিং চালিয়ে যাচ্ছেন। জাতীয় পার্টির মধ্যেও রয়েছে বিভাজন। সোনারগাঁ আসনের বর্তমান জাতীয় পার্টি দলীয় সংসদ সদস্য লিয়াকত হোসেন খোকার পাশাপাশি এরশাদের পালিত কন্যা ও কেন্দ্রীয় মহিলা পার্টির সাধারণ সম্পাদক অনন্যা হোসাইন মৌসুমীও সক্রিয় রয়েছেন। আড়াইহাজার আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের মধ্যে রয়েছেন বর্তমান সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, সাবেক এমপি এমদাদুল হক ভূঁইয়া, কেন্দ্রীয় যুবলীগের তথ্য ও যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক এবং জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ইকবাল পারভেজ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাবেক বিশেষ সহকারিও ছিলেন এবং কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মমতাজ হোসেন, বাংলাদেশ ভেটেরিনারি এসোসিয়েশন মহাসচিব (বিভিএ) এবং বাংলাদেশ কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির কৃষি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ড. মুহাম্মদ হাবিবুর রহমান মোল্লা। এছাড়া জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন জাতীয় পার্টির ভাইস চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় যুবসংহতির সভাপতি আলমগীর সিকদার লোটন। বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা হলেন, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নজরুল ইসলাম আজাদ, বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির প্রয়াত নেতা বদরুজ্জামান খসরুর পুত্র সুমন, সাবেক এমপি আতাউর রহমান আঙ্গুর। রূপগঞ্জ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে বর্তমান এমপি গোলাম দস্তগীর গাজী বীরপ্রতীক ছাড়াও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাই, সাবেক সংসদ সদস্য ও সাবেক সেনাপ্রধান কে এম সফিউল্লাহ, রূপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সেক্রেটারী ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ শাহজাহান, কায়েতপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলামের নাম শোনা যাচ্ছে। রূপগঞ্জ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে রয়েছেন জেলা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান, সাবেক সভাপতি ও বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার এবং জেলা বিএনপি নেতা ও যুবদলের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান দিপু ভূইয়া। এদিকে আর কয়েকদিন পরেই ঘোষিত হতে যাচ্ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল। ইতিমধ্যে জাতীয় পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের মধ্যে চলছে পারস্পরিক সংলাপ। তবে প্রধান বিরোধী দল বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা মামলায় গ্রেফতার আতঙ্কে আত্মগোপনে থাকলেও নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানেই চলছে আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের গণসংযোগ ও উঠান বৈঠক। নারায়ণগঞ্জের ৫ টি সংসদীয় আসনে আওয়ামীলীগ, বিএনপি ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে সক্রিয় রয়েছেন অর্ধশতাধিক শীর্ষ নেতা। তবে রাজপথের বিরোধী দল বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশীরা অসংখ্য মামলায় গ্রেফতার আতঙ্কে পলাতক কিংবা আত্মগোপনে থাকায় বর্তমানে ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ ও জাতীয় পার্টির মনোনয়ন প্রত্যাশীরাই গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন। তবে গণসংযোগ কিংবা উঠান বৈঠকের সময়ে অনেক মনোনয়ন প্রত্যাশীরা নিজেদেরকে ধার্মিক প্রমাণের চেষ্টা হিসেবে মাথায় টুপি দিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন। এ বিষয়টি সাধারণ ভোটাররাও নেতিবাচক হিসেবে দেখছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

কপিরাইট © দৈনিক ডান্ডিবার্তা, ওয়েব ডিজাইন: মো: নাসিরউদ্দিন-০১৭১২৫৭৪৯৯০

top