News

অগ্নিকান্ড বৃদ্ধিতে শহরজুড়ে আতঙ্ক

ডান্ডিবার্তা | 24 June, 2019 | 6:07 pm

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
গত এক সপ্তাহে নারায়ণগঞ্জ শহরের পাঁচটি স্থানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। যার দুইটি অগ্নিকান্ডের ঘটনায় ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এসব অগ্নিকান্ডের ঘটনায় নারায়ণগঞ্জ শহরে আবারো আগুন আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। অগ্নিকান্ড থেকে বাঁচতে নগরবাসীকে আরো সচেতন থাকতে বলেছেন ফায়ার সার্ভিস। গত শুক্রবার মধ্য রাতে বৈদ্যুতিক শক সার্কিট থেকে মিনা বাজারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। পরে সঙ্গে সঙ্গে ফায়ার সার্ভিসের ৬টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ শুরু করে। প্রায় ১ ঘণ্টা পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আর রাত সাড়ে ৩টায় আগুন নিভিয়ে ফেলা হয়। এতে কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি। তবে আগুনে ৬টি দোকানে ব্যপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। গত শনিবার সারাদিনে শহরের দুইটি জায়গায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। পপুলারের সামনে বৈদ্যুতিক ট্রান্সফর্মারে আগুন লাগে। এরপর সন্ধার দিকে শিতলক্ষ্যা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন সেন্টারে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। ফায়ার সাভিসের ১ ঘন্টার চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। অগ্নিকান্ডের ঘটনায় কয়েক ঘন্টা শহরে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ ছিল। এতেকরে পুরো শহর অন্ধকারে ডুবে থাকে। এর আগে গত ১৬ জুন দুপুরে চাষাঢ়ার সমবায় মার্কেটে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। মার্কেটের পাঁচ তালার সিঁড়ির কোনায় রাখা প্লাস্টিকের ডলে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। তবে মার্কেটের কর্মীদের তৎপরতায় কোনো ক্ষয়ক্ষতি ছাড়াই আগুন নেভানো সম্ভব হয়। একইদিন মধ্যরাতে ফতুল্লা বাজারের পশ্চিম পাশের প্রাইমারী স্কুল সংলগ্ন একটি মার্কেটে অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। মার্কেটের কোন একটি দোকান হতে শনিবার রাত আনুমানিক পৌনে ১টায় অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে। এতে আশে পাশের দোকানগুলোতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এর ফলে মিজানের মালিকানাধীন মুদি দোকান, সুজনের ফোন ফ্যাক্সের দোকান, শরীফের কনফেকশনারী ও খোকন চন্দ্র শীলের সেলুন পুড়ে ছাই হয়ে যায়। পরে সংবাদ পেয়ে ফতুল্লার বিসিক ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তবে অগ্নিকান্ডে কি পরিমাণ ক্ষতি হয়েছে তা তাৎক্ষনিকভাবে জানা যায়নি। এছাড়াও অগ্নিকান্ডে কোন হতাহতের সংবাদ পাওয়া যায়নি।

[social_share_button themes='theme1']

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *