আজ: বুধবার | ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | রাত ৮:৩৩

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

অবসর ভেঙে ফিরতে চেয়েও পারেননি ভিলিয়ার্স

ডান্ডিবার্তা | ০৮ জুন, ২০১৯ | ৯:৪৯

চলতি বিশ্বকাপে এখন পর্যন্ত সবচেয়ে অসহায় দল বলা যায় দক্ষিণ আফ্রিকাকে। অথচ টুর্নামেন্ট শুরুর আগেও হট ফেভারিট ছিল প্রোটিয়ারা। কিন্তু মাঠের লড়াইয়ে ফেভারিটের তকমাটা ধরে রাখতে পারেনি অটিস গিবসনের শিষ্যরা। বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের কাছে হারে ১০৪ রানের বিশাল ব্যবধানে। দ্বিতীয় ম্যাচে ২১ রানে হারায় টাইগাররা। আর বুধবার তৃতীয় ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে হারে ৬ উইকেটে। বলা চলে এক প্রকার বিশ্বকাপের পরের রাউন্ডে খেলার স্বপ্নই শেষ প্রোটিয়াদের।

বারবার এমন পরাজয়ে বোলারদের থেকে ব্যাটসম্যানদের দিকে আঙ্গুল উঠছে বেশি। দলের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান এবি ডি ভিলিয়ার্স অবসরে যাওয়ার পর থেকেই ব্যাটিং নিয়ে ভুগছে প্রোটিয়ারা। এ দিকে জনপ্রিয় ক্রিকেট ওয়েব সাইট ইসপিএন ক্রিকইনফোর মারফৎ দিয়ে জানা যায় বিশ্বকাপের ঠিক আগেই অবসর ভেঙে জাতীয় দলে আবারও ফিরতে চেয়েছিলেন ভিলিয়ার্স। তবে তাকে সেই সুযোগ দেয়নি দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ড।

বিশ্বকাপের ১৫ সদস্যের চূড়ান্ত স্কোয়াড ঘোষণার ঠিক আগ মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলে ফেরার ইচ্ছা পোষণ করেন এই ডি ভিলিয়ার্স। কিন্তু তার ইচ্ছাকে গুরুত্ব না দিয়ে বরং ফিরিয়ে দিল প্রোটিয়া ক্রিকেট বোর্ড।

সূত্র মতে জানা যায়, ডি ভিলিয়ার্স দক্ষিণ আফ্রিকার বর্তমান অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি, কোচ অটিস গিবসন এবং নির্বাচক লিনডা জন্ডির কাছে তার অবসর ভেঙে ফেরার ইচ্ছার কথা জানান। তবে তারা তার এই ইচ্ছাকে একেবারেই আমলে নেয়নি।

এর আগে গেল বছরে বিশ্বকাপের সময়সূচি প্রকাশের ঠিক আগ মুহূর্তে দক্ষিণ আফ্রিকা জাতীয় দলকে বিদায় জানায় ভিলিয়ার্স। আর এরপর থেকে প্রোটিয়া জাতীয় দল কিংবা ঘরোয়া লিগে কোনো ম্যাচে অংশগ্রহণ করেননি তিনি।

যদিও ভারতীয় এক টেলিভিশন সাক্ষাতকারে ভিলিয়ার্স বলেন, আমি বিশ্বকাপ খেলতে চাই কিন্তু আমি সেটার সুযোগ হারিয়েছি। কারণ আমি অবসর নিয়ে ফেলেছি।

তিনি বলেন, আমি যখন অবসরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করি সেটা অনেক আবেগপ্রবণ সিদ্ধান্ত ছিল। আমার ক্যারিয়ারের শেষ তিন বছরে দক্ষিণ আফ্রিকার দর্শকদের কাছে আমি অনেক সমালোচিত ছিলাম। আর দ্রুত অবসরের পেছনে এটিও বড় ভূমিকা রেখেছে।

দলের এমন বিপর্যের সময় ডি ভিলিয়ার্সকে হয়তো চাইছে প্রোটিয়া সমর্থকরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর দক্ষিণ আফ্রিকার জার্সি গায়ে দেখা যাবে না তাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *