আজ: শুক্রবার | ২৯শে মে, ২০২০ ইং | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৬ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সকাল ৭:১৭
শিরোনাম: স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১মে থেকে ব্যাংকে স্বাভাবিক লেনদেন চলবে     না’গঞ্জে ৩১মে থেকে বিপনীবিতানসহ সকল দোকানপাট স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলছে     আড়াইহাজারে ঝোপে যুবতির লাশ উদ্ধার     দেশে একদিনে করোনা শনাক্ত ছাড়ালো ২ হাজার২৯, মৃত্যু ১৫     গত ২৪ ঘন্টায় না’গঞ্জে করোনা আক্রান্ত ৬৫জন, মোট আক্রান্ত ২৪৯০     কাশিপুরে চিকিৎসার নামে মানসিক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ,ধর্ষক আটক     বিশেষ ব্যবস্থায় সীমিত আকারে পাসপোর্ট বিতরণ শুরু করেছে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস     যুক্তরাষ্ট্রে ৪৪ বছরের যুদ্ধের প্রাণহানীর রেকর্ড ভাঙ্গলো     কথা রাখল না নেপাল,খুলে দেওয়া হলো এভারেস্টের দরজা     আইসিসি ও বিসিসিআইয়ের মধ্যে বিভেদ,কর না দিতে পারলে ভারত থেকে বিশ্বকাপ সরে যাবে    

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

অবৈধ অভিবাসীদের বৈধতা নিয়ে আলোচনা স্পেনের সিনেটে

ডান্ডিবার্তা | ২২ মে, ২০২০ | ২:৪৫

করোনাভাইরাসের কারণে বিরাট অর্থনৈতিক সংকটের আশঙ্কার সম্মুখে পুরো বিশ্ব। সেদিক থেকে ব্যতিক্রম নেই ইউরোপের উন্নত দেশগুলো। তবে সংকট মোকাবিলায় ইতোমধ্যে বিভিন্ন দেশ নানা ধরনের প্রস্তুতি ও পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। করোনার এই ক্রান্তিকালে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোতে সাধারণ নাগরিকদের পাশাপাশি বিশেষ করে অবৈধভাবে বসবাসকারীরা আছেন চরম বিপাকে। আর তাদের কথা মাথায় রেখেই ইতালি এবং পর্তুগাল-ইউরোপের প্রথম সারির এই দেশ দুটি তাদের অভিবাসী নাগরিক আইনে কিছুটা শিথিল এনে বিশেষ সুবিধার ঘোষণা দিয়েছে। এরই ধারাবাহিকতা মঙ্গলবার (১৯ মে) স্পেনের সংসদ অধিবেশনে অবৈধ অভিবাসীদের বৈধকরণে একটি প্রস্তাব উঠেছে।সিনেটর পিকরনেল গ্রেন্সনা দেশটির অভিবাসীবিষয়ক মন্ত্রীর উদ্দেশে এই প্রস্তাবটি আনেন। তিনি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি শুরু হওয়ার পর সরকার জোর দাবি দিয়ে বলে যাচ্ছে, এই ভাইরাস আমরা সবাই একত্রে মিলে প্রতিহত করব এবং এ থেকে কাউকে পিছনে পড়ে থাকতে দেবে না। সরকার যদি আসলেই তা মনে করে তাহলে স্পেনে যত অবৈধ অভিবাসী আছে তাদের সকলকেই এখন বৈধতা প্রদান করা উচিত। যদি বৈধ কাগজ না থাকে তাহলে তারা তাদের অধিকার ঠিকমতো আদায় করতে পারে না। এটা আসলে এই সময় খুবই ভাবনার বিষয়, বিশেষ করে কোভিড-১৯-এর মহামারির এই সময়।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদি কাগজ না থাকে তাহলে কাজ থাকে না, কাজ না থাকলে থাকে না একটা ভালো বেতন, কোনো ভালো বাসা থাকে না, না থাকে একটা মর্যাদাপূর্ণ জীবনব্যবস্থা। যা সমাজ থেকে তাদের আলাদা করে দেয়, তাই আমাদের এদের প্রয়োজনে যা কিছু করা দরকার তা করা উচিত।’

বর্তমান এই সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবিলায় ইতালি ও পর্তুগালের সরকার তাদের দেশের অভিবাসীদের জন্য কী কী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে এ সময় তা উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরে সিনেটর।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *