Home » প্রথম পাতা » ফতুল্লার কাশিপুরে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারন মানুষ

অলি-গলি সর্বত্র শ্লোগানে উৎসব

১৫ জানুয়ারি, ২০২২ | ৮:২০ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 141 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

গতকাল শুক্রবার ছিল নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনের প্রচারণার শেষ সময়, তাই দিনটিকে ঘিরে মিছিল মিটিংয়ের নগরীতে পরিনত হয়েছে নারায়ণগঞ্জ। প্রতিটি প্রার্থীই নগরবাসীকে তাঁর অবস্থান জানান দিয়েছেন বিশাল মিছিল আর গণসংযোগের মাধ্যমে। মিছিল নিয়ে চষে বেড়িয়েছে রাজপথ থেকে শুরু করে মহল্লার অলিগলিও। অনেক প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী মিছিল নিয়ে মুখমুখি হলেও ছিলেন শান্তিপূর্ণ অবস্থানে। সারাদিনই যেন ছিল উৎসবের আমেজ। সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ওয়ার্ড আর নগরীর মূল সড়কে ঘুরে ঘুরে এমন চিত্রই দেখা গেছে নারায়ণগঞ্জ সিটি করর্পোরেশনে। তৃতীয়বারের মতো নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন হতে যাচ্ছে। ২৭টি কাউন্সিলর পদে ১৪৮ জন, ৯টি সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৪ জনসহ ১৮৯ জন প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। সকাল থেকেই ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থীরা মিছিল ও গণসংযোগ করছিলেন। দুপুরে বন্দরের ২৩নং ওয়ার্ডের কাবিলের মোড় থেকে বিশাল মিছিল বের করেন স্বতন্ত্রী প্রার্থী তৈমূর আলম খন্দকার। জুম্মার নামাজের পরপরই নগরীর বঙ্গবন্ধু সড়কে বিশাল মিছিল নিয়ে বের হন বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলনের হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মাওলানা মাসুম বিল্লাহ, বিকালে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে বিশাল জনসভার আয়োজন করে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নারায়ণগঞ্জের নেতারা। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরাও। এছাড়া বিকালে নগরীর ১২নং ওয়ার্ডে কয়েক হাজার নারী পুরুষের অংশ গ্রহণে গণসংযোগ ও দোয়া চেয়েছেন লাটিম প্রতীকের প্রার্থী শওকত হাসেম শকু, ১৪নং ওয়ার্ডে মিছিল নিয়ে ভোট ও দোয়া চেয়েছেন শফিউদ্দিন প্রধান ও ঘুড়ি প্রতীকের মনিরুজ্জামান মনির, ১৮নং ওয়ার্ডে হাজারও মানুষ নিয়ে টিফিন ক্যারিয়ার মার্কা নিয়ে গণসংযোগ করেছেন মো. হান্নান মামুন। ২৩নং ওয়ার্ডে বিশাল গণসংযোগ করতে দেখা গেছে লাটিম প্রতীকের প্রার্থী দুলাল প্রধানকে। পাশাপাশি প্রতিটি ওয়ার্ডেই গণসংযোগ করার খবর এসেছে। মনোনয়নপত্র দাখিল, যাচাই-বাছাই, প্রত্যাহারের পর গত ২৮ ডিসেম্বর মার্কা নিয়ে প্রচারণায় নামেন এসব প্রার্থীরা। দীর্ঘ ১৬ দিন প্রচারণা শেষে গত শুক্রবার মধ্যরাত থেকে প্রচারণা শেষ হলো। আগামী ১৬ জানুয়ারি নগরীর ৫ লাখ ১৭ হাজার ৩৬১ জন ভোটার মূল্যমান ভোট প্রয়োগের মধ্যদিয়ে পছন্দের প্রার্থীকে বেছে নিবে।

 

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *