Home » প্রথম পাতা » সামসুলের বিরুদ্ধে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ

আইভী কথিত উন্নয়নের প্রচার করছেন

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১ | ৬:২৬ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 31 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

জাতিসংঘের উন্নয়ন মানদ- অনুযায়ী, মাথাপিছু আয় (মোট অভ্যন্তরীণ উৎপাদন), প্রত্যাশিত আয়ুষ্কাল, স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধি হাওয়াই মানুষের উন্নয়ন। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনে যে উন্নয়নের কথা বলা হচ্ছে, সেখানে স্বাক্ষরতার হার বৃদ্ধি, স্বাস্থ্য আর দারিদ্র্য বিমোচনে কী অবদান রয়েছে? সে প্রশ্নের উত্তর নগরবাসীই ভালো বলতে পারবে। এমনটাই বলছিলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বেশ কিছু নেতা। তাদের ভাষ্য মতে, ‘হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যয় হয়েছে ঠিকই, কিন্তু নগরবাসীর জীবনমানে কোন পরিবর্তনই এসেনি। বরং উন্নয়ন হয়েছে সিটি করপোরেশন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, ঠিকাদার ও নাগরীক প্রতিনিধিদের। তারা লাভবান হয়ে মেয়রকে টিকিয়ে রাখতে কথিত উন্নয়ন প্রচার করছেন।’ নগরীর অনেক সমস্যারই সমাধান ও নাগরীক অধিকার নিশ্চিত করতে ২০১১ সালে সিদ্ধিরগঞ্জ, কদম রসূল ও নারায়ণগঞ্জ পৌরসভাকে সিটি করপোরেশন করা হয়। সিটি করপোরেশন করার পর ১০ বছরে এই নগরীতে ৫ হাজার কোটি টাকার বেশি ‘উন্নয়ন প্রকল্পের নামে ব্যয় করা হয়েছে’। নারায়ণগঞ্জের উন্নয়ন নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খোকন সাহা সম্প্রতি বলেছেন, ‘জনগণের টাকায় করা এই নগরীর প্রতিটি কাজে লাগে কমিশন, ১০ টাকার কাজ হলে ৫ টাকা কমিশন লাগে। আর সেই কমিশনের টাকা যায় হোয়াইট হাউজে। ফলে টেন্ডার ভিত্তিক উন্নয়ন প্রকল্পে বেশি নজর সিটি মেয়রের। তিনি নগরবাসীর সেবার মান নিয়ে ভাবে না।সম্প্রতি নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সেই উন্নয়ন নিয়ে মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ্ নিজাম জানান, ‘ময়লা আবর্জনায় পরিপূর্ণ আমাদের এ নগরী। স্বাস্থ্যসেবা পাইনি। একটা আধুনিক হসপিটাল করা হয়নি সুচিকিৎসার জন্য। মশার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ নারায়ণগঞ্জবাসী। আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থা পায়নি আমাদের সন্তানেরা। যাতায়াত ব্যবস্থার কোন উন্নয়ন হয়নি, বিশেষ করে নারায়ণগঞ্জ শহরে। রিক্সার জন্য হাটাই যায় না এ শহরে। একটা কি ফ্লাইওভার করা যেত না সিটির মধ্যে? আমি ব্যাক্তিগত ভাবে মনে করি, আমরা আমাদের নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত।’ নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মহানগর বিএনপির এক নেতা জানান, গৃহকরের সাথে ময়লা অপসারণ করও পরিশোধ করে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের বাসীন্দারা। কিন্তু তারপরেও টাকার বিনিময়ে গৃহের বর্জ্য অপসারণ করতে হয়। স্বাস্থ্য ও শিক্ষা খাতেও তেমন কোন পরিবর্তন আসেনি। সিটি কর্পোরেশনের করা নতুন রাস্তায় উঠছে পানি। নিজের নানান উন্নয়নের কথা তুলে ধরেন মেয়র আইভী। তবে সেই উন্নয়নের পরেও হওয়া সমস্যার বিষয়ে জানতে চাইলে দেখান নানান অজুহাত। অমুকের জন্য করতে পারছিনা, অমুক করতে দেন নাই এসকল কথাই তার মুখে বেশি থাকে। তার এরকম উন্নয়নে সন্তেুাষ্ট নন সিটির জনগনসহ নিজ দলের বেশির ভাগ নেতাকর্মী। এ বিষয়ে কথা বললে নিজ দলের নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করতেও এক মিনিট ভাবেন না তিনি। তাই আমরা কিছু বলি না। সূত্র: লাইভ নারায়ণগঞ্জ

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *