Home » প্রথম পাতা » রূপগঞ্জ ভ’মি অফিসে অনিয়মই যেন নিয়ম

আইভী বিএনপির ভোটে তিন বার মেয়র হয়েছেন

২৫ ডিসেম্বর, ২০২১ | ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 55 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

‘আমরা বিএনপি করি, তারপরেও আপনাকে ভোট দিয়েছি। আপনি ভোট নিতেও সক্ষম হয়েছেন। আমাদের ভোটে পরপর ৩ বার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচিত হওয়ার পর সেই আমাদেরই আঘাত করেছেন। বিএনপির পার্টি অফিস ভেঙ্গে দোকান বানিয়ে বিক্রি করছেন। মসজিদ-মাদ্রাসা পর্যন্ত ছাড়ছেন না। কাদের স্বার্থে, কাদেরকে খুঁশি করতে চেয়েছেন আপনি।’ নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীকে ইঙ্গিত করে শুক্রবার গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টায় এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল। নগরীর মাসদাইর এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এড. তৈমুর আলম খন্দকারের নিজ বাসভবন মজলুম মিলনায়তনে ওই মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশে কওমী মাদ্রাসা-ভিত্তিক সংগঠন হেফাজতে ইসলামের নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটির সভাপতি মাওলানা ফেরদাউসুর রহমানের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে মেয়র পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী এডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার। এটিএম কামাল বলেন, আমরা আজকে সকলেই ঐক্যেবদ্ধ, নারায়ণগঞ্জবাসীর আকাঙ্খা একটি সুন্দর নির্বাচন। একটি অংশ গ্রহণ মূলক ভোট উৎসবের মাধ্যমে, নারায়ণগঞ্জবাসী একজন মেয়রকে নির্বাচিত করবেন। যে দল, মত নিবিশেষে নারায়ণগঞ্জের মানুষের আকাঙ্খার নারায়ণগঞ্জের পৌরপিতা হতে পারবেন। আমাদের দৃষ্টিতে এখন একজনই রয়েছে, সেটা হলো তৈমূর আলম খন্দকার। এটিএম কামাল আরও বলেন, ‘২০১১ সালে এডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার বেগম খালেদা জিয়ার নির্দেশে বসে পড়েছিলেন। সেদিন যদি সিটি করপোরেশন নির্বাচন থেকে সড়ে না যেতেন, তাহলে নারায়ণগঞ্জের ইতিহাস অন্যরহম হতো। তিনি সরে যাওয়াতেই বিএনপিসহ ওলামাদের সকলের ভোট আপনার বক্সে গিয়ে পড়েছিল। সেই সুযোগেই আপনি মেয়র হয়েছেন। মেয়র হওয়ার পর মাদ্রাসা পর্যন্ত ছাড় দেননি। মাদ্রাসার জমি নিয়েও আপনি বিভিন্ন ধরণের কথা বর্তা বলে সেই জায়গা গুলোকে আপনি উচ্ছেদ করেছেন। আপনি মসজিদের ব্যাপারেও বিভিন্ন ধরণের ফতুয়া দিয়েছেন। আপনার আগে যারা মেয়র ও কাউন্সিলর ছিল, তারাও কিন্তু কোনো দিন ধর্মের বিরুদ্ধে গিয়ে এই কাজটি করেনি। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মাদ্রাসার মতোই অন্যান্য ধর্মালম্বীদের মন্দিরের যে জায়গা, সেখানেও আপনি হাত দিয়েছেন। কাধের স্বাথে, কাদেরকে খুশি করতে চেয়েছেন। হেফাজত ইসলামের নারায়ণগঞ্জ মহানগর কমিটির সহ সাধারণ সম্পাদক মুফতি রুহুল আমিনের সঞ্চালনায় আরও উপস্থিত ছিলেন মহানগরের সহ-সাধারণ সম্পাদক রহমতুল্লাহ বুখারী, শিক্ষা ও সাংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক মুফতি আনিছুল আনছারী, জেলা বিএনপির সহ সভাপতি এড. আবুল কালাম আজাদ বিশ্বাস, নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপি সাংগঠনিক সম্পাদক এড. আবু আল ইউসুফ টিপু, মহানগর বিএনপির কার্যকরী সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ সোসাইটির সভাপতি সুলতান মাহমুদ, আড়াইহাজার থানা বিএনপি ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহমুদুর রহমান সুমন, মহানগর বিএনপি যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ইসমাইল হোসেন, জেলা যুবদলের নেতা মো. শহীদ ভূঁইয়া, আড়াইহাজার উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক জোবায়ের রহমান জিকু প্রমুখ।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *