Home » শেষের পাতা » স্কুল ছাত্র ধ্রুব হত্যায় খুনিদের গ্রেপ্তার দাবিতে মানববন্ধন

আলীগঞ্জে ফুটবল টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণকালে: আইভী ষড়যন্ত্রকারীরা আমাকে থামাতে পারবে না

০১ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৯:৫৫ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 60 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সিটি কর্পোরেশনের বিদায়ী মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছেন, এই আলীগঞ্জের মাঠ যতদিন থাকবে, ততদিন আপনারা পলাশের কথা মনে রাখবেন। এখানে খেলা হচ্ছে, কথা বলছি এ সব কিছুর অবদান পলাশের ও আলীগঞ্জবাসীর। এই পলাশ যদি না থাকতো তাহলে আমি মনে করি এ মাঠটা থাকতো না। ভুমিদস্যুদের হাতেই চলে যেতো এই মাঠ। দিপু ভাই সত্য কথা বলেন এবং বলছেন এ জন্য তাকে অভিনন্দন। সত্য ছাড়া আমাদের কোন উপায় নাই। আশা করি ভবিষ্যতেও দিপু ভাই আমাদের পথেই থাকবেন। আমরাও তার জন্য নিবেদিত প্রান থাকবো। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে ফতুল্লার আলীগঞ্জ ক্লাবের উদ্যোগে উইনার কাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণকালে তিনি এসব কথা বলেন। শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও আলীগঞ্জ ক্লাবের সভাপতি কাউসার আহমাদ পলাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক খবরের পাতা’র সম্পাদক এড. মাহাবুবুর রহমান মাসুম, আওয়ামী লীগ জাতীয় কমিটির সদস্য ও নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি এড. আনিসুর রহমান দিপু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম, আলীগঞ্জ ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল ইসলাম মেম্বার, টুর্নামেন্ট কমিটির আহবায়ক মো. আব্দুল হান্নান, সদস্য সচিব হাজী মো. রফিকুল ইসলাম শামীম প্রমুখ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র আইভী আরও বলেন, আল্লাহ আমাদের ধৈর্য পরিক্ষা করেন। এর পরেই আল্লাহ আমাদের বিপদ আপদ সব কিছু দূর করে দেন। যে শহরে এক সময় কেউই কথা বলতো না, সেই শহরে আজ অনেকেই কথা বলছে। এর চেয়ে বড় ব্যাপার আর হতেই পারে না। বড় ভাইয়েরা সব সময় আওয়ামী লীগের মানুষকে নির্যাতন করেছে সবচেয়ে বেশি। আপনারা নিশ্চই ভুলে যান নাই আপনাদের নেতাকে ডান্ডাবেড়ি পরিয়েছে, তখনকি মনে হয়েছে না যে এই সব শেষ হয়ে গেলো? কিন্তু শেষ কিন্তু হয় নাই। এই কারনে যারা সত্যের পথে থাকে, যারা মানুষের জন্য কাজ কওে, যারা দলের প্রতি আস্থা রাখে, তাদের বিজয় হয়। যারা কাউসারকে আলীগঞ্জে আবদ্ধ করতে চেয়েছিলো, সে কিন্তু আজ পুরো বাংলাদেশের নেতা হয়েগিয়েছে। ডান্ডাবেড়ি তো স্বার্থক হয়েগিয়েছে। আশা করি এই নেতার নেতৃত্বে আপনারা একত্রীত থাকবেন। যে কোন ধরণের অন্যায় কে রূখে দিবেন। আইভী বলেন, নতুন ষড়যন্ত্র হচ্ছে, আপনাদের এই ফতুল্লাকে নিয়ে। কিছুদিন আগেই তো দেখেছেন এমন একজনের হাতে নৌকা তুলে দেয়া হলো যে জিবনে মুখে নৌকার নামও নেয় নাই। তার পরেও তাকে স্বাগত জানাই, সে যাতে মনে প্রানে জননেত্রী শেখ হাসিনার কর্মী হতে পারে। আর যদি হইতে না পারে, তাহলে ভবিষ্যতে সে বিচার হবে। কাউসারকে আশ^স্ত করেছিলাম যে, তোমার পাশে থাকবো, শেষ দিন পর্যন্ত। এই মাঠের খুব সুন্দর একটি ছবি তুলে কাউসার আমাকে দিয়েছিলো। এটা নিয়ে যখন পরিকল্পনা মন্ত্রীর কাছে দেখালাম, উনি সাথে সাথে ওনার সেক্রেটারিকে ডেকে এটার পুনরায় তদন্ত করার নির্দেশ দেন। হ্যা, হুমকী-ধামকি অনেক কিছু আছে, আমরাও শেখ রাসেল পার্ক করতে গিয়ে অনেক হুমকীর শিকার হয়েছি। পার্ক নাকি করতে দিবে না। সেদিন বলেছিলাম শত চেষ্টা করেও রুখতে পারবেন না। কিন্তু দুঃখের বিষয় আমরা আদমজির মাঠটা ধরে রাখতে পারলাম না। এতো বড় একটি মাঠ আমাদের হাত থেকে চলে গেলো। স্থানীয় সংসদ সদস্য কিছুই করেন নাই। আমি সেই সময় পৌরসভার চেয়ারম্যান ছিলাম। আমাকে ওই বিষয়ে কেউ ডাকেও নাই। আপনারা জানেন, যে কোন ষড়যন্ত্রই আমাকে রুখতে পারবে না। আপনাদের এই ফতুল্লা নিয়ে আমি বলেছিলাম নতুন করে পৌরসভা গঠন করেন। দেখেন ফতুল্লা ও সদরের নির্বাচন হতে দিচ্ছে না। ওইখানে আজাদ বিশ্বাসকে বসিয়ে রেখেছে, হতের পুতুল, যা বলবে তাই। আওয়ামী লীগের কোন নেতাকে বিকশিত হতে দিবে না। কারন তাদের কমান্ড কেউ মানবে না। এজন্যই তারা নারায়ণগঞ্জে নেতা তৈরি করতে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে। কতো সু-পরিকল্পিত ভাবে পলাশকে কিভাবে সরানো যায়, সব কিছু ধ্বংস করা যায়, ভবিষ্যতে সে যেনো এমপি টিকেট না চাইতে পাওে, এ জন্য বিভিন্ন ধরণের ছক আকাঁ হচ্ছে। আমি আপনাদের অনুরোধ করবো মাঠ যেভাবে রক্ষা করেছেন, আপনাদের নেতাকেও সেইভাবেই রক্ষা করুন। নির্বাচনের তারিখ ঘোষনা করা হয়েছে। দল যদি আমাকে নমিনেশন দেয়, তাহলে আমি আপনাদের দোয়া নিয়ে নির্বাচনে অংশগ্রহন করতে চাই। তখন হাটে ঘাটে মাঠে দেখা হবে। সকলে আমার জন্য দোয়া করবেন।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *