আজ: বুধবার | ৮ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৪শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৭ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | সন্ধ্যা ৭:৫০

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

আলীগঞ্জ মাঠ রক্ষার দাবিতে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ

ডান্ডিবার্তা | ২৭ মে, ২০১৯ | ৭:১৫

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
ফতুল্লার পাগলায় আলীগঞ্জ খেলার মাঠ রক্ষার দাবিতে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে অবরোধ করেছে এলাকাবাসী। গতকাল রবিবার দুপুরে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কের পাগলা আলীগঞ্জ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এর আগে দুপুর ১২টায় আলীগঞ্জ মাঠটিতে দখল অভিযান চালাতে এসে এলাকাবাসীর তোপের মুখে অভিযান না চালিয়ে ফিরে যায় গণপূর্ত অধিদপ্তর। বিরতির পর দ্বিতীয় দফায় অভিযান পরিচালনার চেষ্টা করলে এলাকাবাসী বিক্ষোভ শুরু করে। এক পর্যায়ে ঢাকা-মুন্সিগঞ্জ সড়কের পৃথক তিনটি স্থানে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করে রাখে। এছাড়া সড়কের উপর আড়াআড়িভাবে ট্রাক ফেলে অবরোধ করা হয়। সড়ক অবরোধ করে মাঠ রক্ষার দাবিতে মিছিল করতে থাকে বিক্ষোভকারীরা। এ সময় পাশ্ববর্তী স্কুল, মাদারাসা ও কিন্ডার গার্টেনের শিক্ষার্থীরাও বিক্ষোভে অংশ নেয়। মাঠ দখল হবে না, মমতাময়ী মা প্রধানমন্ত্রী খেলার মাঠ ভিক্ষা দেও ও খেলার জন্য মাঠ চাই উল্লেখিত প্ল্যাকার্ড হাতে নানা স্লোগান দিতে থাকে বিক্ষোভকারীরা। তবে প্রথম দফায় অভিযান বন্ধ রাখলেও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী ফের অভিযান চালাবে বলে জানিয়েছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজোয়ান আহমেদ। সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, পাঁচ দশমিক সাত একর আয়তনের শতাধিক বছরের পুরনো আলীগঞ্জ মাঠ ফতুল্লা-পাগলা এলাকার একমাত্র টিকে থাকা মাঠ। সরকার এখানে সরকারি কর্মকর্তাদের আবাসনের জন্য বহুতল ভবন নির্মানের পরিকল্পনা করেছে। তবে এলাকাবাসীর দাবি মাঠ বর্তমান অবস্থায় রেখে এলাকার শিশুদের জন্য খেলার সুযোগ করে দেওয়া। স্থানীয় বাসিন্দা ও আলীগঞ্জ ক্লাবের সহ সভাপতি ফরিদউদ্দিন আহমেদ বলেন, এই মাঠ আমাদের প্রাণের মাঠ, মাঠ রক্ষা করা আমাদের প্রাণের দাবি। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, প্রতিটা উপজেলায় একটা করে খেলার মাঠ থাকতে হবে। আমরা সেই কথার বাস্তবায়ন চাই। তিনি আরো বলেন, পোস্তগোলা থেকে পঞ্চবটি পর্যন্ত এটা ছাড়া উন্মুক্ত কোন মাঠ নেই। এই মাঠ ঐতিহ্যবাহী একটি মাঠ। এ মাঠ আমার সন্তানের জন্য, এটা দখল করতে দেয়া যাবে না। উচ্ছেদ অভিযানে জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রট ফতুল্লার এসিল্যান্ড রেদোয়ান আহমেদের নেতৃত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন গণপূর্ত অধিদপ্তরের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ক সার্কেল) মেহেদী ইমরান সিদ্দিকী, ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আসলাম হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *