Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

এবার স্বস্তিতে ঘরমুখো মানুষ

০১ মে, ২০২২ | ৪:২৩ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 40 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ঈদে ঘরমুখো যাত্রীবাহী যানবাহনের চাপ বেড়েছে । তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে যাত্রীদেরও উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা যায়। এ কারণে মহাসড়কে যানবাহনের চাপ কয়েকগুণ বেড়ে গেছে। তবে  যানবাহনের চাপ থাকলেও যান চলাচল রয়েছে স্বাভাবিক। এছাড়া এখন পর্যন্ত  যানজটের কোনো খবর পাওয়া যায়নি। ফলে ভোগান্তি ছাড়াই স্বস্তিতে গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছেন ঘরমুখো মানুষ। গত শুক্রবার সরেজমিনে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সাইনবোর্ড থেকে কাচপুর ব্রীজের পশ্চিম অংশ র্প্যন্ত এ চিত্র দেখা গেছে। একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মচারী আসাদ হোসেন  জানান,  ঈদ এলেই সড়কে জ্যাম লেগেই থাকে তাই জন-দুর্ভোগ  এড়াতে  আমার মেয়ের স্কুল ছুটি হওয়ার পর পর আমি আমার পরিবারকে গ্রামের বাড়ী পাঠিয়ে দিয়েছি। অফিস থেকে বেতন বোনাস দিয়ে আজ দুপুরে ছুটি দেয় তাই আমি আজ বাড়ী চলে যাচ্ছি। বাস চালক  হাসেম ফকির  জানান,  প্রতি ঈদের টিপে ফ্লাইওভারেরত্তে নাইম্মা আস্তে আস্তে সাইনবোর্ড আইলেই আমি জ্যামে জ্যামে চিটাংরোড আহি কিন্তু এইবার রাস্তা পুরা ফাকা এই মনে করেন তিন থেইক্কা চাইর মিনিট লাগছে আমার সাইনবোর্ড থিকা  চিটাগাংরোড আইতে। এর আগে ঈদের সময় এই টুকু রাস্তা পার হইতেই আমার ২০-২৫ মিনিট লাইজ্ঞা যাইতো, তাও অনেক সময় যাইতে পারতাম না। একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের মালিক নেও্য়াজ উদ্দিন মোল্লা। তিনি বলেন গতকাল সব কর্মচারীদের বেতন বোনাস দিয়ে ছুটি দিয়েছি। তাই আজ বিকেলে ব্যক্তিগত গাড়ী নিয়ে পরিবার সহ গ্রামে যাচ্ছি ঈদ করতে। তবে গতবারের  তুলনায়  মহাসড়কের  এবারের  অবস্থা  তুলনামূলক  ভালো।  মহাসড়কে কোথাও আগের মত কোনো  ভাঙ্গাচোরা না থাকায়  আমি পরিবার নিয়ে স্বাচ্ছন্দেই বাড়ী যেতে পারছি  পারছি। এদিকে ঈদ যাত্রায় গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের নারায়ণগঞ্জের অংশ দিয়ে ৫২ হাজার ১২৬ টি যানবাহন চলাচল করেছে। গত শুক্রবার ভোর ৬টা থেকে গতকাল শনিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত ছোট-বড় বিভিন্ন ধরনের যানবাহন এ মহাসড়ক যানবাহন চলাচল করেছে। কাঁচপুর হাইওয়ে থানা সূত্রমতে জানা যায়, মহাসড়কে চলাচল করা ৫২ হাজার ১২৬ টি যানবাহনের মধ্যে ৫ হাজার ৫৩৬ টি প্রাইভেটকার, ৪ হাজার ৫৫২টি মাইক্রো গাড়ি, ১ হাজার ২ টি মিনিবাস, ৭৯০ টি পিক-আপ গাড়ি, ৬৫৪ টি মিনি ট্রাক, ৩ হাজার বড় বাস, ৭ হাজার বড় ট্রাক, ১ হাজার ৬৫০ টি মিডিয়াম ট্রাকসহ ছোট বড় বিভিন্ন ধরনের গাড়ি চলাচল করেছে। তবে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কে গত কয়েকদিনের তুলনায় গাড়ির চাপ বাড়লেও  মহাসড়কে এখনো পর্যন্ত কোনো যানজট সৃষ্টি হয় নি। এতে করে কোনো রকমের ভোগান্তি ছাড়াই গন্তব্যে পৌঁছাতে পারছেন যাত্রীরা। এছাড়া মহাসড়কের প্রতিটি পয়েন্টে পর্যাপ্ত পরিমাণে পুলিশ মোতায়েন করার ফলে ঘরমুখো যাত্রীরা স্বস্থিতেই গ্রামে যাচ্ছে। তবে ঘরমুখো মানুষের ভোগান্তি নিরসনে প্রতিটি পয়েন্টে আমাদের পর্যাপ্ত পুলিশ ফোর্স মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশের পাশাপাশি হোন্ডা পার্টি, মোবাইল টিম, সাদা পোশাকে পুলিশ থাকছে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *