Home » শেষের পাতা » সোনারগাঁয়ে এক হাজার পরিবারের জন্য বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকা

কথা রাখছেন না জনপ্রতিনিধিরা

১৯ জানুয়ারী, ২০২১ | ৭:৩০ পূর্বাহ্ন | ডান্ডিবার্তা | 171 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দুই বছরের অধিক সময় পাড় হলেও এখনো সাধারণ ভোটারদের দেয়া আশ^াস পূরণ করতে পারেনি স্থানীয় সাংসদগণ। নির্বাচনের আগে বর্তমান জনপ্রতিনিধিরা আধুনিক নারায়ণগঞ্জ গড়তে বিভিন্ন প্রকল্পের কথা বললেও তা এখনো বাস্তব রূপ নিতে পারেনি। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়রকাউন্সিলর, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানগণ জন সাধারণদের যে আশার বানি শুনিয়েছেন তা বাস্তবায়ন হয়নি। ইতিমধ্যে সিটি কর্পোরেশন জেলা পরিষদের মেয়াদ শেষ হতে চলছে। কিন্তু ভোটারদের উন্নয়ণের পরিবর্তে নারায়ণগঞ্জে জনপ্রতিনিধিরা উন্নয়ণের চেয়ে নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে বেশি সময় পার করছেন। আর জনপ্রতিনিধিদের অনৈক্যে কাঙ্খিত উন্নয়ণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারন মানুষ। ভোটারদের ভোটে প্রত্যক্ষ ভাবে নির্বাচিত জন প্রতিনিধিরা জনস্বার্থে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ না করায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে জনপ্রতিনিধিদের দ্বন্দ্বের খেসারত দিচ্ছেন সাধারণ ভোটারা। জনপ্রতিনিধিরা একে অপরকে ছাড় না দিয়ে উল্টো ঘায়েল করতে মরিয়া হয়ে উঠার কারণে উন্নয়ণে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে। পাশাপাশি রাজনীতির সঠিক চর্চার অভাব রয়েছে জনপ্রতিনিধিদের মধ্যেএমন মন্তব্য বিশ্লেষকদের। তাদের মতে, নারায়ণগঞ্জে প্রভাবশালী জনপ্রতিনিধিরা উন্নয়ণের আগ্রহ থাকলেও শুধুমাত্র অহমিকার কারণে অনৈক্যে সাধারণ মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। শিল্পনগরী নারায়ণগঞ্জ হারিয়ে ফেলছে তার ঐতিহ্য। এছাড়াও বার বার কলঙ্কের তিলকে প্রশ্নবিদ্ধ হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ। আর এরজন্য দাবী জনপ্রতিনিধিরাই। জনপ্রতিনিধিরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করলেও নারায়ণগঞ্জ উন্নয়নের দিক দিয়ে কোন অংশে পিছিয়ে থাকবে না। এছাড়া বিগত দিনে নারায়ণগঞ্জের যে সুনাম ছিল তাও ফিরিয়ে আনা সম্ভব বলে মনে করছেন নারায়ণগঞ্জে সচেতন মহল। তারা বলছেন, নারায়ণগঞ্জে সাংসদ সেলিম ওসমানের মত একজন ব্যবসায়ী নেতা জনপ্রতিনিধি, সাংসদ শামীম ওসমানের মতো একজন দক্ষ রাজনীতিক রয়েছে সেখানে কেন উন্নয়ণ হবে না। একই সাথে আইভীর মতো সাহসী একজন মেয়র রয়েছে সেই নারায়ণগঞ্জ পিছিয়ে থাকতে পারে না। এছাড়াও একজন মন্ত্রীয় রয়েছেন নারায়ণগঞ্জে। রূপগঞ্জ আসনের সাংসদ এবং পাট বস্ত্র মন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজীর মত একজন অভিজ্ঞ নেতা থাকা সত্বেও শুধু মাত্র অনৈক্যের কারণে নারায়ণগঞ্জে কাঙ্খিত উন্নয়ণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সাধারণ মানুষ। তবে কাঙ্খিত উন্নয়ণের জন্য জনপ্রতিনিধিদের প্রয়োজন কেবল ঐক্যমত্যের রাজনৈতিক চর্চা। জন্য নারায়ণগঞ্জের জনপ্রতিনিধিদের এখনি একত্রিত হয়ে নারায়ণগঞ্জের উন্নয়নে এক টেবিলে বসা প্রয়োজন। অন্যথায় নারায়ণগঞ্জের কাঙ্খিত উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত হবে নারায়ণগঞ্জবাসী। সূত্রমতে, নারায়ণগঞ্জের হারানো ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে এখনই উত্তম সময়। আওয়ামী লীগ সরকার টানা তৃতীয়বারের ন্যায় ক্ষমতায় থাকার কারণে প্রচ্যের ডান্ডি নারায়ণগঞ্জের পূর্বেও সেই অবস্থান ফিরে পাওয়ার বিষয়টি অনেকটা সহজ হয়ে গেছে। বর্তমানে নারায়ণগঞ্জে যে জন জনপ্রতিনিধি রয়েছে তাদের বেশীর ভাগই উন্নয়নের ব্যাপারে আগ্রহী। সাংসদ থেকে শুরু করে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ার মেম্বার পর্যন্ত সকলেই উন্নয়ণের পক্ষে কাজ করছেন। তবে তাদের অনৈক্যের কারণে উন্নয়ণ ব্যাহত হচ্ছে।

Comment Heare

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।