আজ: রবিবার | ১২ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ২১শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | সন্ধ্যা ৭:০৩

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

করোনায় চিকিৎসা ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়েছে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের

ডান্ডিবার্তা | ০৪ জুন, ২০২০ | ১২:৩৮

বন্দর প্রতিনিধি
করোনা ভাইরাসে চিকিৎসা অবকাঠামো ভেঙ্গে পড়েছে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালের। যেখানে প্রতিদিন সকাল ৯টা হতে দুপুর ১ টা পর্যন্ত সাড়ে ৪শ’ থেকে ৫ শ’ রোগী টিকেট ক্রয় পূর্বক ডাক্তার দেখাতেন এবং সরকারী ঔষধ নিয়ে যেতেন। করোনা ভাইরাসের সংক্রমনের পর থেকে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে টিকেট কাউন্টারে পূর্বের মত রোগী আসে না। বর্তমানে ৫০জন রোগীও হাসপাতালে আসে না। রোগী না আসার কারন খুঁজতে গিয়ে জানা যায়, ৩ মাস পূর্বে হাসপাতালে যে চিকিৎসার মান ছিল ও প্রয়োজনী ঔষধ পাওয়া যেত তা এখন পাওয়া যায় না। গতকাল বুধবার সকালে বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা আছিয়া (৩৫) নামের রোগীর সাথে কথা বললে তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমি মিনারবাড়ী এলাকা হইতে রিক্সা দিয়ে টিকেট নিলাম ৩ টাকা দিয়ে আর ঔষধ পেলাম পেরাসিটামল, হিসটারসিন ট্যাবলেট। গ্যাষ্টিকের ঔষধও নেই এখন। আবার ডাক্তারও পাওয়া যায় না। রিক্সা ভাড়া দিয়ে হাসপাতালে গিয়ে কি লাভ। বলে ঔষধ নাই। জরুরী বিভাগের অবস্থা আরো নাজুক, বন্দর উপজেলার একমাত্র সরকারী হাসপাতাল হলেও না থাকার মত। হাত, পা বা মাথায় সামান্য আঘাত জনিত কোন রোগী নিয়ে গেলেও নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়। বন্দর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালটি ৫০ শয্য বিশিষ্ট হলেও চিকিৎসা সেবার মান সবচেয়ে নি¤œ মানের বলে বন্দর ইউনিয়নের ৯ নং ওর্য়াড মেম্বার ইয়াকুব ইমরান জানান। হাসপাতালের চিকিৎসা অবকাঠামো ভেঙ্গে পড়েছে এমন প্রশ্ন করলে মেডিকেল অফিসার ডাঃ মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন এটা ভুল। বর্তমান প্রেক্ষাপটে রোগীদের ভীড় কমানোর জন্যই আউট ডোরে ঔষধ কম দেয়া হয়। কারন ৪/৫ শত রোগী হয় প্রতিদিন। এগুলো ম্যানটেন করা যাবে না বলে ঔষধ দেয়ার পরিমান কমানো হয়েছে। তবে হাসপাতালের জরুরী নাম্বারে ফোন দিলে তাৎক্ষনিক সেবা দেয়ার চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *