Home » শেষের পাতা » অক্টোবরে মাঠে নামবো

কাফনের কাপড় দেখে নির্বাচন থেকে সরলেন জাপা নেতা

১৯ মে, ২০২২ | ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 94 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

দরজায় কাফনের কাপড় দেখে আতঙ্কে নির্বাচন থেকে সরে গেলেন সোনারগাঁয়ের মোগরাপাড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু। গত মঙ্গলবার নিজ ফেসবুক অ্যাকাউন্টে স্ট্যাটাস দিয়ে তিনি নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার বিষয়টি প্রকাশ করেন। নিজের ও পরিবারের নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করেই তিনি এ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান। কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু নারায়ণগঞ্জ জেলা যুব সংহতির যুগ্ম সম্পাদক। তিনি জাতীয় পার্টির রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হলেও তার পুরো পুরো পরিবার বিএনপির রাজনীতির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু বাবা সোনারগাঁ বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি কাজী নজরুল ইসলাম টিটু মোগরাপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে একাধিক বার নির্বাচন করেছেন। জাতীয় পার্টির রাজনীতি করলেও স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে গত ১২ মে কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু তার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেন। তবে গত মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ দিনে তিনি তার মনোনয়নপত্র জমা দেননি। কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু বলেন, আমি মনোনয়নপত্র ক্রয় করার পর থেকেই আমার কর্মী-সমর্থক ও স্বজনদেরকে প্রতিপক্ষের লোকজন নানাভাবে ভয়ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। সর্বশেষ সোমবার রাতে আমার নারায়ণগঞ্জ শহরের বাসায় দরজার সামনে কে বা কারা কাফনের কাপড় রেখে গেছে। তবে এসব ভয়ভীতিতে আমি বিচলিত হইনি কিন্তু আমার পরিবার বিশেষ করে আমার মায়ের নির্দেশে শেষ পর্যন্ত এ নির্বাচন থেকে সরে যেতে বাধ্য হয়েছি। মোগরাপাড়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। শেষ পর্যন্ত দুজন মূল প্রতিদ্বন্দী মাঠে থাকবেন বলে এলাকাবাসী জানিয়েছেন। কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ায় মোগরাপাড়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী শাহ মোহাম্মদ সোহাগ রনি ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এ ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান আরিফ মাসুদ বাবুর মধ্যে ভোটের মাঠে মূল লড়াই হবে। স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়া প্রসঙ্গে কাজী নাজমুল ইসলাম লিটু জানান, কৌশলগত কারণেই তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছিলেন। তবে বাসায় দরজার সামনে কাফনের কাপড় দেখে পারিবারিক সিদ্ধান্তেই নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। আগামী ১৫ জুন সোনারগাঁ উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *