Home » শেষের পাতা » হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে সড়ক-মহাসড়কে চলছে চাঁদাবাজী

কুতুবপুরে চাঁদাবাজরা সক্রিয়

২৬ মে, ২০২২ | ৯:৪২ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 50 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ফতুল্লায় গভীর রাতে অসহায় নিরীহ মিশুক চালকের বাসায় ঢুকে লুটপাট ও মারধর থানায় অভিযোগ দায়ের। অভিযোগ তুলে নিতে বাদীকে প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকির অভিযোগ উঠেছে বিরুদ্ধে। গত শুক্রবার দিবাগত রাত দেড় ঘটিকায় পাগলা পশ্চিম নন্দলালপুর এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। এ বিষয়ে পশ্চিম নন্দলালপুর এলাকার অসহায় নিরীহ মিশুক চালক শহিদ বাদী হয়ে, পশ্চিম নয়ামাটি এলাকার রনি (৩২), আরিফ ওরফে দালাল আরিফ (৩৫), হাসান (৩৫), ইউসুফ (২৫), হোসেন (৩৭), জাহাঙ্গীর ওরফে তুতলা জাহাঙ্গীর (৩৫), আব্বাস (৩৮) সহ আরো অজ্ঞাতনামা ৫/৬ জনকে আসামি করে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, অত্র এলাকার বাদী মিশুক চালিয়ে জীবিকা উপার্জন নির্বাহ করে। বাদী মিশুক গাড়ির ব্যাটারি ক্রয় করার জন্য ত্রিশ হাজার টাকা কিস্তিতে উত্তলন করে। তারপর থেকেই বিবাদীগন বাদীর কাছে বিভিন্ন অজুহাতে টাকা দাবি করে আসছিল। তাদের দাবিকৃত টাকা না দেওয়ায় গত ২০ মে তারিখ দিবাগত রাত অর্থাৎ ২১ মে রাত দেড় ঘটিকার সময় বিবাদীগণ বিভিন্ন দেশীয় অস্ত্র- শস্ত্র নিয়ে বাসার দেওয়াল টপকাইয়া অনাধিকারভাবে বাসায় প্রবেশ করে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদান করে। এমতাবস্থায় বাদীর বিছানার নিচে থাকা মিশুক গাড়ির ব্যাটারি ক্রয়ের ত্রিশ হাজার টাকা এবং তাদের সাথে থাকা ঊনষাট হাজার টাকা জোর পূর্বকভাবে ছিনাইয়া নিয়ে যায়। এবং বাদীসহ তার সাথে থাকা রুমমেটদের বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে চলে যায়। বিবাদীগন হুমকি দিয়ে আরো বলে যে, উক্ত বিষয়ে কাউকে যদি কিছু জানায় তাহলে বাদীসহ তার সাথে থাকা সবাইকে মিথ্যা জুয়া, মাদক মামলায় ফাঁসাইয়া দেওয়ার হুমকি প্রদান করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে তারা। অভিযোগ সুত্রে আরো জানা যায়, এ বিষয়ে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গদের কাছে বিচার দেওয়ায় বাদীকে পুনরায় আবার মারধর করা হয়। ( মারধরের ভিডিও ফুটেজ সংরক্ষিত রয়েছে অত্র প্রতিবেদকের কাছে) পরবর্তীতে বাদীর কাছে আবারও পঞ্চাশ হাজার টাকা দাবি করে উক্ত বিবাদীগন তা-না হলে তাদেরকে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেন। এ বিষয়ে অভিযোগের বাদী শহীদ জানান, আমরা এইখানে ভাড়া থাকি বলে কি আমরা বিচার পাবো না। যদি তাই হয়, তাহলে অভিযোগ দায়ের করার পরেও কিভাবে হুমকি দেয়। বিবাদীগণের বড় ভাই আক্তার হোসেন আমাদের অভিযোগ উঠিয়ে নেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত হুমকি অব্যাহত রেখেছে। আমি দারোগারে জানায়ছি সে বলছে আমি দেখবো। আমি তাদের সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণে জোর দাবী জানাচ্ছি। এ বিষয়ে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) আবু হানিফ বলেন, আমরা ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। তবে অভিযোগের সঠিক তদন্ত করে অপরাধীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *