Home » প্রথম পাতা » ওসমান পরিবারের সাথে কোন দ্বন্দ্ব নেই: আইভী

কোন ষড়যন্ত্র নৌকা রুখতে পারবে না

০৬ ডিসেম্বর, ২০২১ | ৭:৩৪ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 65 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী অতীতের সকল ভেদাভেদ ভুলে কাধে কাধ মিলিয়ে নৌকার জন্য অলিগলি পাড়া মহল্লায় কাজ করার আহবান জানিয়ে বলেছেন, বার বার ষড়যন্ত্র হয়েছে আর ষড়যন্ত্র হবেই। তাই বলে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া নৌকা নিয়ে আমাদের কারো মধ্যে বিভেদ থাকা ঠিক নয়। এখনো যারা নিশ্চুপ রয়েছেন তাদেরকে নৌকার পক্ষে মাঠে নামার আহবান জানিয়ে বলেন, আমি আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী। শেখ হাসিনা আমাকে নৌকার মাঝি করেছে মাত্র। এই নারায়ণগঞ্জের স্বার্থে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে নৌকার বিজয়ে কাজ করতে হবে। সেলিনা হায়াত আইভী আরো বলেন, আওয়ামীলীগে অনেক যোগ্য লোক রয়েছে। কিন্তু মনোনয়ন যেহেতু একজন পাবে এ জন্যই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে উপলক্ষ করেছের মাত্র। আমরা অতীতে একই দলের দুইজন নির্বাচন করেছিলাম। আপনারা তখন রায় দিয়েছিলেন আমার পক্ষে। ২০১৬ তে প্রথম প্রতীকে নির্বাচন হয়। প্রধানমন্ত্রী আমার হাতে নৌকা তুলে দেন। তখন মুক্তিযোদ্ধা বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন আমাকে সহযোগীতা করেছিলেন ফলে আমি বিজয়ী হয়ে ছিলাম। এবারও আপনারা সকলে আমার পাশে থাকবেন। আগামী ১৬ জানুয়ারি আমরা প্রধানমন্ত্রীকে নৌকা উপহার দেব। তিনি আরো বলেন, নারায়ণগঞ্জের জনতাই আমার প্রধান শক্তির উৎস। দল ও জনতা আমাকে উৎসাহ দিয়েছেন বলেই আমি আজকে মেয়র। সে কারণেই আমি কোন সিদ্ধান্ত নিতে দ্বিধাবোধ করি নাই। দল আমাকে সব সময়ে সমর্থন দিয়েছেন। নারায়ণগঞ্জবাসী সব সময়ে আমার পাশেই ছিলেন। অচিরেই আমি প্রচারণা করবো। মনোনয়নপত্র জমা দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করবো। আইভী বলেন, এই শহরের মানুষ সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করেনি। নারায়ণগঞ্জ ঐতিহ্যবাহী জেলা। নারায়ণগঞ্জের পাইকপাড়া ক্লাবেই আওয়ামী লীগের জন্ম। পরে ঢাকার রোজ গার্ডেনে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়। আমি সেই ক্লাবটি সংরক্ষণ করেছি। তিনি বলেন, অনেকে জানেননা ৮১ সালে প্রধানমন্ত্রী যখন বাংলাদেশে আসলেন তখন ঢাকার বাইরে নেত্রীকে প্রথম সংবর্ধনা দিয়েছিলেন তৎকালীন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী আহমদ চুনকা। তখন তার হাতে আওয়ামী লীগের চাবি তুলে দিয়েছিল। তিনি আরও বলেন, আজকে আমি সকল আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই আমার পাশে থাকার জন্য। ২০০৩ এ যখন আমি নারায়ণগঞ্জে ফিরে আসি অনেকে শহর ত্যাগ করেছিলেন। বিদেশে থেকেছেন দেশে ঢুকতে পারেনি। তখন এই আওয়ামী লীগের অনেকেই আমার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন বলেই আমরা তখন জয় ছিনিয়ে আনতে পেরেছিলাম। এবারও আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকলে কেউ নৌকার বিজয় রোধ করতে পারবে না। নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, নির্বাচনের আগ পর্যন্ত অনেক ষড়যন্ত্র হবে এসব ষড়যন্ত্রকারীদের মুখে ছাঁই দিয়ে আমাদের বিজয় ছিনিয়ে আনতে হবে। দলে হাইব্রিড ও কাউয়াদের সম্পর্কে সজাগ থাকার আহবান জানিয়ে বলেন, এরা রাতারাতি প্রার্থী তৈরী করে সন্মানীত মানুষদের অসন্মান করার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। এসব ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সবাইকে সজাগ থাকার আহবান জানান। মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেন, নৌকা প্রতীক যিনি পেয়েছেন আওয়ামীলীগার হিসাবে আমাদের সকলের দায়িত্ব তার জন্য মাঠে নেমে ভোট চেয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী করা। এড. আসাদুজ্জামান বলেন, আমরা সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে মাঠে আছি। জেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি আরজু রহমান ভ’ইয়া বলেন, নারায়ণগঞ্জে আমরা ঐক্যবদ্ধ। আরেক সহসভাপতি আব্দুল কাদির বলেন, যারা ষড়যন্ত্র করছে তাদের বিষ দাঁত ভেঙ্গে ফেলা হবে। জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সুফিয়ান বলেন, নৌকার বিরুদ্ধে যারা কাজ করবে তারা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশকে উপেক্ষা করবে। জেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম বলেন, অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে, আর কোন ষড়যন্ত্র করার চেষ্টা হলে তা প্রতিহত করা হবে। জিএম আরাফাত বলেন, এ নৌকা নারায়ণগঞ্জবাসীর আস্থার প্রতিফলন। মেয়র আইভী নৌকা প্রতীক পাওয়ার পর পাড়া মহল্লায় প্রায় প্রতিদিনই চলছে প্রচারনা।

 

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *