আজ: রবিবার | ২৯শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ | ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৪ই রবিউস সানি, ১৪৪২ হিজরি | সকাল ৭:৫৮

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

চাটুকারিতায় বিএনপি নাস্তানাবুদ!

ডান্ডিবার্তা | ২১ নভেম্বর, ২০২০ | ৭:৫৬

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
টানা ১৩ বছর ক্ষমতার বাহিরে থাকায় যেন হাপিয়ে উঠতে শুরু করেছে নারায়ণঞ্জ বিএনপি’র নেতারা। রাজপথে নিজেদের শক্ত অবস্থানের জানান দিতে গিয়ে হামলা-মামলার শিকার হয়ে বিএনপির নেতারা ক্ষমতাসীনদের কাছে কাবু হয়ে গেছেন। জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ অনেক নেতাই ক্ষমতাসীনদের সাথে আতাঁত করে রাজনীতি করছেন। নারায়ণগঞ্জে ক্ষমতাসীন দলের প্রভাবশালী এক নেতার সাথে বিএনপি পন্থি এক আইনজীবীর গোপন আলাপের তথ্য ফাঁস হওয়ার পর থেকেই গত বছর আইনজীবী সমিতির নির্বাচনের সমিকরণ পাল্টে যায়। দলের শীর্ষ নেতারা যখন ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টায় বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করছেন তখন কতিপয় নেতারা ক্ষমতাসীনদের সাথে আতাঁত করায় ক্ষমতাসীনদের কাছে বিএনপির নেতারা কাবু হয়ে পড়ছেন। সূত্র বলছে, নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে দীর্ঘদিন ধরেই চলছে তীব্র কোন্দল ও বিরোধ। ফলে অনেকটা নিস্ক্রিয় হচ্ছে বিএনপির রাজনীতি। নেতারা এখন মাঠের রাজনীতির চেয়ে ঘরোয়া রাজনীতিতে বেশী আকৃষ্ট হচ্ছেন। আর এসব কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে বিএনপির এক নেতার বাসায়। এতে করে চরম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিএনপি ও এর সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা। তারা বলছে, দলীয় কার্যালয় থাকতে তা নি®প্রভ রাখা হচ্ছে। নেতাকর্মীদের ওই বিএনপি নেতার বাসায় যেতে বাধ্য করা হচ্ছে যা অনপ্রিভেত। তবে জেলা ও মহানগর বিএনপির শীর্ষ কয়েকজন নেতা দলকে সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী করতে কঠোর পরিশ্রম করে গেলেও আতাঁতকারীদের জন্য তা ভেস্তে যাচ্ছে। এরই মধ্যে ক্ষমতাসীনদের সাথে আতাঁতকারীদের কারণে নারায়ণগঞ্জে বিএনপির রাজনীতিতে সাহসী ও সক্রিয় নেতার সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে। সাহসী ও সক্রিয় নেতারদের কারণেই গত বছরের ১৬ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জের রাজপথে বিএনপি তাদের অবস্থা জানান দিতে সফল হয়েছিল। তবে সেদিনও আতাঁতকারীদের কারণে পুলিশের দায়ের করা এক মামলাতেই বিএনপির নেতারা কাবু হয়ে পড়েন। কিন্তু পুলিশের দায়ের করা ঐ মামলায় শুধুমাত্র বিএনপির সক্রিয় ও সাহসী নেতাদেরই আসামী করা হয়েছে। দলের পধে থেকেও যারা ক্ষমতাসীনদের সাথে আতাঁত করে রাজনীতি করছেন তাদের কাউকে ঐ মামলায় আসামী করা হয়নি। জানাগেছে, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর কর্মসূচীতেও তেমন একটা সফলতার মুখ দেখেনি নারায়ণগঞ্জ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। আন্দোলনে সংগ্রামে সফলতা না আসার পেছনে জেলা ও মহানগর বিএনপির কোন্দলকেই দায়ী করছে মাঠ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দরা। আর বর্তমানে যখন বেশ কয়েকজন নেতা রাজনীতিতে সক্রিয় হয়ে নেতাকর্মীদের চাঙ্গা করতে মাঠে নেমেছেন তাদেরকেই কোনঠাসা করতে আতাঁতকারী নেতারা বেশ তৎপর রয়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *