আজ: মঙ্গলবার | ২৬শে মে, ২০২০ ইং | ১২ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৩রা শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | দুপুর ১২:০৩
শিরোনাম: না.গ‌ঞ্জে ঈদের জামা‌তে ছিলো মুসল্লীদের ঢল,বিশেষ দোয়া ও মোনাজাত     ফতুল্লায় চাঁদ রা‌তের মধ্য প্রহ‌রে বন্ধুর হ‌া‌তে বন্ধু খুন! ঘাতক আটক     থমকে থাকা নজরুল ভবন আলোর মুখ দেখছে     ঈদ মোবারক     শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে ঈদে কোলাকুলি না করার আহ্বান স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের     নারায়ণগঞ্জ করোনা হাসপাতাল ঈদের দিনে কার্যক্রম চালু থাকবে     নারায়ণগঞ্জে এবার পবিত্র ঈদুল ফিতরে ৩৩শ মসজিদে হবে ৫ হাজার ঈদ জামাত     খোর‌শে‌দের স্ত্রী ক‌রোনায় আক্রান্ত, সক‌লের দোয়া প্রত্যাশা     বন্দরের ৭শতাধিক অসহায় পরিবার নাসরিন ওসমানের ত্রাণ পেল     ফতুল্লায় ভিন্ন প্রেক্ষাপটে ঈদুল ফিতর উদযাপন    

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

জালকুড়িতে একই পরিবারের ৫ জনকে কুপিয়ে জখম

ডান্ডিবার্তা | ২৫ এপ্রিল, ২০২০ | ১০:৩২

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার জালকুড়ির একই পরিবারের নারীসহ ৫ জনকে পিটিয়ে এবং কুপিয়ে জখম করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনার প্রায় সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও মামলা নেয়নি পুলিশ। ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, করোনার অজুহাত নিয়ে মামলা গ্রহণে গড়িমসি করছে পুলিশ। এদিকে বিবাদীপক্ষ প্রতিনিয়ত হুমকি দিয়ে যাচ্ছে তাদের। ভুক্তভোগী পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, জালকুড়ি চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকার ঈদগাহের পাশেই আব্দুল জব্বার তার স্ত্রী-সন্তান নিয়ে বসবাস করেন। আপন ভাই দেলোয়ার হোসেনের সাথে তাদের পারিবারিক দ্বন্দ্ব রয়েছে। দ্বন্দ্বের জের ধরেই তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত ১৯ এপ্রিল দুপুর ১টার দিকে তাদের তর্কবিতর্ক হয়। ভুক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ, এ সময় লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে আব্দুল জব্বারসহ তার পরিবারের পাঁচ সদস্যকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে জখম করে দেলোয়ার হোসেন ও তার ছেলেরা। আহতরা নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। আব্দুল জব্বারের ছেলে মোহাম্মদ ইয়াসিন জানান, চাচা ও চাচাতো ভাইদের হামলায় আহত হয়েছেন তার বাবা আব্দুল জব্বার, মা নাজমা বেগম, বড় বোন নাদিরা আক্তার সুইটি, বড় ফুফু নূরজাহান এবং তিনি নিজে। ঘটনার দিন বিকেলে সিদ্ধিরগঞ্জ থানায় চাচা দেলোয়ার হোসেন, চাচী শাহনাজ, চাচাতো ভাই ইব্রাহিম ও ইমনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অভিযোগ দায়েরের সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও তা মামলা হিসেবে গ্রহণ করা হয়নি বলে জানান তিনি। ইয়াসিন বলেন, বাড়ির সামনে সিড়িতে কাঠ দেওয়ার কারনে তারা আমাদের উপর হামলা চালিয়েছে। বাড়িও আমাদের, সিড়ির জায়গাও আমাদের অযথাই তারা হামলা চালায়। করোনা ভাইরাসের অজুহাত দিয়ে পুলিশ মামলা নিচ্ছে না। এদিকে চাচা ও চাচাতো ভাইরা প্রতিনিয়ত তাদের হুমকি দিচ্ছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। এ বিষয়ে অভিযুক্ত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ইমন বলেন, জমি সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে তাদের সাথে আমাদের দ্বন্দ্ব। ওইদিন তারা পরিকল্পনা করে এই ঘটনা ঘটাইছে। আমরাই তাদের উপর হামলা চালিয়েছি বিষয়টি এমন না। তারাও আমাদের উপর হামলা করেছে, আমরাও আহত হইছি। পরবর্তীতে হুমকি দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি। জানতে চাইলে তদন্তকারী কর্মকর্তা সিদ্ধিরগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক আমিনুল ইসলাম বলেন, ছোট ভাই আর বড় ভাইয়ের মধ্যে ঝামেলা। বড় ভাইয়ের পরিবারের কয়েকজন আহত হইছে। আবার দুই পক্ষই পৃথক দুটি অভিযোগ লিখিত আকারে থানায় দিয়েছে। করোনার কারনে সবকিছু লকডাউন, আদলত বন্ধ। তাই মামলা নেওয়া হয়নি। ভাই-ভাইয়ের ঝগড়া তাদের মধ্যেই মিটিয়ে নেওয়ার পরামর্শ দিয়েছিলাম। হুমকি যদি দিয়ে থাকে তাহলে বিষয়টির তদন্তে যাবো আমি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *