Home » শেষের পাতা » অধিগ্রহণ হচ্ছে নদীর জমি

ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রুটে বাড়ছে ট্রেনের সংখ্যা

০৭ ডিসেম্বর, ২০২২ | ৬:৫৯ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 63 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট অবশেষে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেলপথে ট্রেনের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে। যাত্রী চাহিদার কথা বিবেচনায় এনে এই সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে বাংলাদেশ রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। আগামী জানুয়ারির মধ্যেই নতুন সময়সূচি চূড়ান্ত করা হবে। তবে, নারায়ণগঞ্জে বাস্তবায়ন হবে ট্রেন চালুর পর থেকে। এতে আরও প্রায় ৪ হাজারের বেশি যাত্রীকে প্রতিদিন সেবা দিতে পারবে বাংলাদেশ সরকারের এই সংস্থাটি। গত ১ নভেম্বর বাংলাদেশ রেলওয়ের ঢাকা কন্ট্রোল এর অফিস কক্ষে বিভাগীয় রেলওয়ের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ সফিকুর রহমানের সভাপতিত্বে একটি সভা হয়েছে। বিভাগীয় কর্তকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সেখানে বাংলাদেশ রেলওয়ের আয় বৃদ্ধি ও যাত্রী চাহিদার কথা বিবেচনায় এনে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ সেকশনে আরও ২টি ট্রেন চালানোর মতামত পেশ করেন। পরে সিদ্ধান্ত মতামতটি প্রস্তাব আকারে প্রেরণ করার। বাংলাদেশ রেলওয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, নতুন সূচি নির্ধারণের ক্ষেত্রে তারা যাত্রী সুবিধাসহ বেশ কিছু বিষয় বিবেচনায় নিচ্ছে। গভীর রাতে যাত্রীদের ঘরে ফেরার বিড়ম্বনা কমানোর চেষ্টা করবেন। একইসঙ্গে যাত্রীদের সুবিধাজনক সময়ে ট্রেনের সূচি সাজিয়ে কিভাবে আয় বৃদ্ধি করা যায় সেটিও দেখা হচ্ছে। গত ৪ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রেলপথ পুরোপুরি বন্ধ রয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছেন, পদ্মা সেতু রেললিংক প্রকল্পের আওতায় ঢাকা থেকে গেন্ডারিয়ার মধ্যে তিনটি রেললাইনের নির্মাণকাজ চলছে। এ কাজ দ্রুত শেষ করার জন্য ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ পথে চলাচলকারী সব ট্রেনের চলাচল সাময়িকভাবে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। কাজ দ্রুত শেষ করার পর এ পথে ট্রেন চলাচল শুরু হবে। ২০২০ সালে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রোডে ১৬ জোড়া ট্রেন দিনে ৩২ বার আসা যাওয়া করেছে। করোনার পর ট্রেনের সংখ্যা কমিয়ে ৯ জোড়ায় নামানো হয়। এতে দিনে ১৮ বার ট্রেন চলাচল করতো। জানুয়ারির পর আরও ২টি ট্রেন বৃদ্ধি পেলে ১১ জোড়ায় ২২ বার ট্রেন চলাচল করার সুযোগ পাবে। নারায়ণগঞ্জ স্টেশন মাস্টার কামরুল ইসলাম খান বলেন, ‘পুরন ট্রেন লাইন, ডাবল ট্রেন লাইন, পদ্মা সেতু রেল সংযোগের কাজ চলমান, লোকবল ও স্টেশন মাস্টার সংকটের মতো নানা কারণে এই পথে ট্রেন কমিয়ে দেওয়া হয়েছে। তার উপর ডেমু ট্রেন বেশির ভাগ সময়ে নষ্ট থাকায় আরও বেশি সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। তাই ট্রেন বাড়ানো দরকার।’ এই পথের নিয়মিত যাত্রী ওমর ফারুক বলেন, দীর্ঘদিন যাবতই ট্রেন বাড়ানোর দাবি আমরা জানিয়ে আসছিলাম কিন্তু বাড়াচ্ছে না। তাই অতিরিক্ত যাত্রীর সাথেই চলাচল করতে হয়েছে। এখন ট্রেন বাড়ানোর সংবাদ পেয়ে আমরা আনন্দিত।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *