Home » প্রথম পাতা » ফতুল্লার কাশিপুরে মোস্তফার অত্যাচারে অতিষ্ট সাধারন মানুষ

তোলারামের পাশে কোচিং সেন্টারের ছড়াছড়ি

২৪ নভেম্বর, ২০২২ | ১১:০৭ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 55 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই নির্দেশ অনুযায়ী, এত দিনে কোচিং সেন্টার বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথাও ছিল। কিন্তু নারায়ণগঞ্জে সে নির্দেশ মানা হচ্ছে না। নির্দেশনার ২১ দিন অতিবাহিত হলেও নগরীর প্রাণ কেন্দ্র চাষাঢ়ায় সরকারি তোলারাম কলেজের চারপাশে চলছে অন্তত ২ শতাধিক কোচিং সেন্টার। অথচ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক বলছেন, তালিকা পাঠালে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। আর জেলা শিক্ষা অফিসার বলছে, কোচিং সেন্টার খোলা রাখলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষার জন্য গত ৩ নভেম্বর থেকে আগামী ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। গত ১৯ অক্টোবর সংবাদ সম্মেলন করে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বিষয়টি জানিয়ে ছিল। সেখানে গত মঙ্গলবার ও বুধবার গিয়ে দেখা যায়, সরকারি তোলারাম কলেজের বিভিন্ন শিক্ষকের নামে পরিচালিত কোচিং সেন্টার রয়েছে সেখানে। রয়েছে কোচিং সেন্টারের বিভিন্ন প্রাতিষ্ঠানিক নামও। সকাল থেকে এ সকল কোচিং সেন্টার চলছে। তবে, বিকালে শিক্ষার্থী আসছে বেশি। কলেজ রোডের কিছু কিছু বাড়িতে ফ্লাট ভাড়া নিয়েও কোচিং সেন্টার পরিচালনা করা হচ্ছে। পাশেই সরকারি তোলারাম কলেজ ও সরকারি মহিলা কলেজে এই বছর পরীক্ষা কেন্দ্র রয়েছে। সেখানে পরীক্ষা দিচ্ছে শত শত শিক্ষার্থী। কলেজ রোডে গিয়ে একাধিক শিক্ষার্থীর সাথে কথা হয়েছে। তারা জানায়, বন্ধের কথা কোচিং সেন্টার থেকে বলা হয়নি। তবে ৩ নভেম্বর থেকে বন্ধ রাখার সরকারি নির্দেশনা তারা জানে। এ ব্যাপারে ইতি কোচিং সেন্টারের মালিক ইতি আক্তার জানান, সরকার সিদ্ধান্ত দিয়েছে ঠিকেই, অভিভাবকরা মানতে চায় না। তাই যে ক্লাসে পরীক্ষা চলছে, সেই ক্লাসের কোচিং করানো বন্ধ রেখেছি। বাকি ক্লাস গুলো চলমান রয়েছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা শিক্ষা অফিসার মো. শরিফুল ইসলাম জানান, ‘পরীক্ষাকালিন সময়ে কোচিং সেন্টার খোলা রাখলে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হতে পারে। তাই বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট স্যারকে জানাবো। আশা করি খুব দ্রুত একটি ফলাফল পাবেন।’ নারায়ণগঞ্জ জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আজিজুল হক জানান, ৩ নভেম্বর থেকে ১৪ ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশের সব কোচিং সেন্টার বন্ধ রাখার ঘোষণা সরকারের আছে। আপনারা তালিকা দিন, আমরা ব্যবস্থা নিবো। কলেজ রোড পুকুড়পাড় এলাকায় চালু রয়েছে নেক্সাস একাডেমি কেয়ার, একাউন্টিং পয়েন্ট এইচ.এস.সি (টিপু স্যার), এক্সক্লুসিভ এডুকেশন জোন (১১-১২ম), এলেক্স (আলিমুল্লা স্যার), সবুজ স্যার, কাউসার স্যার ও আকাশ স্যারের পরিচালনায় প্যানাসিয়া। টিএন্ডটি গলিতে চালু রয়েছে ইউনাইটেড আইটি ইনস্টিটিউট, মুনির স্যারের কোচিং, ইম্প্রুভমেন্ট, আইসিটি (রিজওয়ান স্যার), ঢাকা ইউনিভার্সিটি কোচিং সেন্টার, নারায়ণগঞ্জ শাখা, পদার্থ বিজ্ঞান (আল আমিন স্যার), মেক্স কোচিং সেন্টার, সর্বাধিক স্মবলিত ব্যাচ (রাহুল স্যার) বি.এ.এস.ই নার্সিং, এমবিশন একাডেমি (আবির স্যার), এ.আর কমার্স কোচিং সেন্টার (আব্দুর রহমান স্যার), নিরব স্যার ( অনার্স, ডিগ্রি), রেজান স্যার, রিপন স্যার (ইন্টার, অনার্স), রাব্বি স্যার, শুভঙ্কর স্যার, কামরুল স্যার, সানি’স ম্যাথ ওয়ার্ল্ড (সানি স্যার), আমান’স একাউন্টিং (আমান স্যার), কলেজ রোড-(তোলারাম কলেজ ডাকের মোড় থেকে গলাচিপা আল্লামা ইকবাল রোডের শেষ মাথা পর্যন্ত), বুকম্যান একাডেমি (মাসুদ রানা স্যার), ইজি কোচিং সেন্টার, ঘঈঅ কোচিং সেন্টার, লুমিনাস কোচিং সেন্টার, একাডেমিক এন্ড এডমিশন কেয়ার, রাজু স্যার, রায়হান স্যার, আব্দুর রহমান স্যার, ইতি ম্যাডামের কিউরিয়সিটি কোচিং, ঐংপ নাহিদ স্যার, এক্সক্লুসিভ সাইন্স কেয়ার (শাকিল স্যার+সোহরাব স্যার), সৃজনশীল একাডেমি (পিন্টু স্যার+ জুয়েল স্যার), মাজহারুল স্যার, টুটুল স্যার, ইউনুস স্যার, সানজিদা ম্যাম, নিহাল স্যার, উমর ফারুখ স্যার, ইশতিয়াক স্যার, ইজি একাউন্টিং (মামুন স্যার), জহির স্যারের ব্যাচ, নয়ন স্যারে, দু প্রফেসর কোচিং (এম. এ রহিম স্যার), ঝকত একাডেমি কোচিং (শফিক স্যার+জহির স্যার+কাউছার স্যার), গ্রিন একাডেমি (শর্টকোর্স), রাজীব স্যারের ব্যাচ, হানিফ একাডেমি (হানিফ স্যার), খোকন স্যার (কঝই) , সাইফ স্যার (পদার্থ বিজ্ঞান), মেডি এইড বায়োলজি কোচিং, সাইন্স জোন (লোকনাথ সাহা), এডুএইড একাডেমি এন্ড এডমিশন কেয়ার (সাইফ আহমেদ +জিহাদ রহমান), বিএল কমার্স কোচিং (লোকনাথ স্যার), অক্সফোর্ড ফরেন এডমিশন সেন্টার, খোকন’স একাউন্টিং একাডেমি (মো. মাহমুদুল হাসাম খোকন ), আলী স্যারর ইংলিশ ( আলী স্যার), সুপার কেয়ার কোচিং সেন্টার, রেডিক্স স্টাডি কেয়ার। মসজিদ গলিতে জেনিথ কোচিং সেন্টার (সাগর মাহমুদ), নবধারা টিউটোরিয়াল হোম (মো. আল আমিন (কাজল), আহমেদ’স ইংলিশ একাডেমি (সাইফুদ্দিন স্যার), একাউন্টিং লার্নিং প্লেস (রুমেল স্যার), একাউন্টিং জোন টিউটোরিয়াল হোম (জাহাঙ্গীর আলম স্যার), এডুটেক স্পোকিং আইএলটিএস ফ্রীলান্সিং, কমিপেটেন্ট কোচিং, নিউরন কোচিং সেন্টার, বিদ্যানিকেতন কোচিং (গোসাই স্যার+রুবেল স্যার), মৌমিতা কোচিং একাডেমি (মুকুল স্যার ও জনি স্যার), টুটুল’স একাউন্টিং (টুটুল স্যার), বাংলা অনুশীলন (জাহিদ স্যার), আলী স্যার, সাইফুল স্যারের ব্যাচ, আপডেট একাউন্টিং কেয়ার (আনন্দ দাস স্যার), স্মার্ট একাউন্টিং কেয়ার (সজল স্যার), ক্যারিয়ার প্লাটফর্ম। প্যারাগন কোচিং সেন্টার (বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি), মানবিক একাডেমি, সায়েন্স একাডেমি, ঈঅউঊ ( শিহাব- রেদওয়ান+ ফারুক স্যার), চন্দ্রা এডুকেশন জোন (প্রকাশ সাহা রনি), কাউছার স্যারের ব্যাচ। এছাড়া এফএম গলি চিস্তী একাউন্টিং হোম, গণিত ও পদার্থ (সমীর স্যার), হারুন স্যার, সুফিয়ান স্যার, রনক স্যার, মর্ডাণ ইংলিশ টিচিং হোম (কামরুল হাসান স্যার), একাউন্টিং প্যালেস (মামুন স্যার), সানরাইজ কিন্ডারগার্টেন, শহীদ স্যারের ইংলিশ ব্যাচ, মো. আব্দুস সালাম আজাদ স্যার, কাম ফান এন্ড লার্ণ (রাহুল স্যার), কসমিক কোচিং সেন্টার ( আসাদ ইকবাল মামুন), সাকসেস কোচিং (ইঞ্জি. সামিউর রহমান সামি স্যার), ইংলিশ ল্যাব (হারুন স্যার), খান ইংলিশ একাডেমি (ইমরোস আফরিন রিতু), রবিন স্যার, হামিদ স্যার ও সায়মন স্যার। এছাড়া নাম ছাড়াই চলছে আর প্রায় অর্ধশত কোচিং।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *