আজ: শুক্রবার | ১০ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২৬শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৯শে জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | বিকাল ৪:২৭

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

দিতির মৃত্যুর সাড়ে ৪ বছর পর ছবি সেন্সরে যাচ্ছে

ডান্ডিবার্তা | ২৫ জুন, ২০২০ | ১২:৩৫

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট দীর্ঘদিন ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে ২০১৬ সালের ২০ মার্চ শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন চিত্রনায়িকা পারভীন সুলতানা দিতি। মা-বাবার কবরের পাশে শেষ ঠিকানা হয় এ চিত্রনায়িকার। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের দিয়াপাড়ায় পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয় তাঁর মরদেহ। ১৯৬৫ সালের ৩১ মার্চ সোনারগাঁওয়ে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। পারভীন সুলতানা দিতি প্রায় সাড়ে চার বছর আগে মারা যান। তবে রেখে গেছেন তাঁর অভিনয়ের স্বাক্ষর। দুই শতাধিক চলচ্চিত্র দিয়ে দর্শকহৃদয়ে স্থায়ী জায়গা করে নেন তিনি। আগামী সোমবার (২৯ জুন) সেন্সর বোর্ডে জমা পড়ছে দিতি অভিনীত চলচ্চিত্র ‘এ দেশ তোমার আমার’। ছবিটি পরিচালনা করেছেন এফ আই মানিক। মনোয়ার হোসেন ডিপজল ও দিতি এ ছবিতে জুটি বেঁধেছেন। তাঁর মৃত্যুতে বিপাকে পড়ে বেশ কিছু চলচ্চিত্র। কিছু চলচ্চিত্রে দিতির অংশ নতুন করে শুট করা হয়। আবার তাঁর অভিনীত বেশ কিছু চলচ্চিত্র এখনো মুক্তি পায়নি, সেসবের শুট তিনি শেষ করতে পেরেছিলেন। পরিচালক এফ আই মানিক বলেন, “দিতি ও ডিপজল অভিনীত ‘এ দেশ তোমার আমার’ ছবিটি সেন্সর বোর্ডে জমা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হচ্ছে। আগামী বৃহস্পতিবার আশা করি সব কাজ শেষ হয়ে যাবে। সোমবার ছবিটি সেন্সরে জমা দেওয়ার পরিকল্পনা করছি।”দিতির মৃত্যুর প্রায় সাড়ে চার বছর পর ছবিটি জমা দেওয়া হচ্ছে সেন্সর বোর্ডে, এত দেরি হওয়ার কারণ কী? এমন প্রশ্নের জবাবে মানিক বলেন, ‘দিতি মারা যাওয়ার কয়েক মাস আগে আমরা ছবিটির শুটিং শেষ করেছি। ছবিটি ৩৫ মিলিমিটারে শুট হয়েছিল। ট্রান্সফার করে ডিজিটাল করা হয়েছে। তা ছাড়া ডিপজল সাহেব মাঝখানে কিছুদিন অসুস্থ থাকায় ছবির কাজ আর শেষ করতে পারিনি। যে কারণে দেরি হয়ে গেছে।’দিতির প্রশংসা করে মানিক বলেন, ‘দিতি অনেক গুণী ও জনপ্রিয় অভিনেত্রী। যিনি শুধু নিজের কাজ দিয়ে দর্শকহৃদয়ে বেঁচে থাকবেন হাজার বছর। আধুনিক মননের মানুষ ছিলেন। আমাদের ছবিটি দেখলে সবার আবারও মনে পড়বে কতটা শক্তিশালী ছিল তাঁর অভিনয়। সবাই তাঁর জন্য দোয়া করবেন।’১৯৮৪ সালে নতুন মুখের সন্ধানের মাধ্যমে চলচ্চিত্রের সঙ্গে যুক্ত হন দিতি। তাঁর অভিনীত প্রথম চলচ্চিত্র উদয়ন চৌধুরী পরিচালিত ‘ডাক দিয়ে যাই’। কিন্তু ছবিটি শেষ পর্যন্ত মুক্তি পায়নি। দিতি অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত প্রথম চলচ্চিত্র ‘আমিই ওস্তাদ’। ছবিটি পরিচালনা করেছিলেন আজমল হুদা মিঠু। এরপর দিতি দুই শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন। সুভাষ দত্ত পরিচালিত ‘স্বামী স্ত্রী’ ছবিতে দিতি আলমগীরের স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেন। এই ছবিতে অভিনয় করে দিতি প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *