Home » প্রথম পাতা » শ্রী কৃষ্ণের জন্মাষ্টমী আজ

ধর্ষনের দায়ে কবিরাজ গ্রেফতার

৩১ ডিসেম্বর, ২০২১ | ১২:২৪ অপরাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 171 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ফতুল্লায় ১৭ বছর বয়সী  প্রতিবন্ধী এক কিশোরীকে ধর্ষনের অভিযোগে আলতাফ হোসেন (৭৫) নামক এক ভন্ড কবিরাজকে আটক করে ৯৯৯ এ ফোন দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে এলাকাবাসী। আটক আলতাফ হোসেন বরিশাল জেলার সদর থানার চরপতনিয়ার মৃত রহম আলীর পুত্র ও ফতুল্লা থানার দেওভোগ মাদ্রাসার মেকার মনিরের ভাড়াটিয়া। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তাকে মাসদাইর গুদারাঘাট হাজীর মাঠ থেকে তাকে আটক করা হয়। প্রতিবন্ধী কিশোরীর মা জানায়, কিশোরীর বাবা ময়লা ফেলানোর কাজ করেন। অভিযুক্ত কবিরাজ আলতাফ হোসেনের সাথে কিশোরীর পিতার পূর্ব পরিচয় ছিলো। সে কিশোরীর পিতাকে নাতি এবং কিশোরীর মাকে নাতনি বলে ডাকতো। গত রেবাবার তার পা মচকে গেলে তাকে কবিরাজের নিকট নিয়ে যাওয়া হয়। এর একদিন পর সোমবার সকাল সাড়ে দশটার দিকে ওই কবিরাজ কিশোরীর বাসায় এসে তাকে বলে কিশোরীকে দেওভোগস্থ নিজ বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে নিয়ে গিয়ে কিশোরীকে ধর্ষন করে। পরে দুপুর তিনটার দিকে কিশোরীকে তাদের মাসদাইর গুদারাঘাটস্থ হাজী মাঠ সংলগ্ন বাসায় পৌঁছে দিয়ে যায়।এরপর থেকে কিশোরীর আচরন পরিবর্তন দেখে পরিবারের সদস্যরা তাকে প্রশ্ন করলে ও কিশোরী ভয়ে মুখ খুলেনি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পাশের বাসার এক নারীর নিকট প্রতিবন্ধী কিশোরী সোমবারের ঘটনা খুলে বলে। তখন তারা তাকে বিষয়টি জানায়। ঘটনা জানার কিছুক্ষন পরপর গ্রেপ্তারকৃত কবিরাজ কিশোরীর বাসায় এলে স্থানীয় এলাকাবাসী তাকে আটক করে পুলিশের হাতে সোপর্দ করে। তিনি আরো জানান, ইতিপূর্বেও কিশোরীকে কবিরাজ তার নিজ বাসায় একাধিকবার নিয়ে গিয়েছিলো। এবং সোমবারের পর থেকে গ্রেপ্তারকৃত কবিরাজ প্রতিদিন সকালে কিশোরীর বাসায় আসতো। সে সময় কিশোরীর বাবা বাইরে থাকতো এবং তিনি অন্যের বাড়ীতে কাজ করতো। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালেও গ্রেপ্তারকৃত কবিরাজ কিশোরীর বাসায় আসে। ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার উপপরিদর্শক আরিফ পাঠানা জানান, আটককৃত আলতাফ হোসেন স্থানীয় বাসীদের নিকট কবিরাজ হিসেবে পরিচিত। জরুরী সেবা ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কবিরাজকে আটক করে থানায় নিয়ে আসি। কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে লিখিত অভিযোগ পেয়ে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *