Home » প্রথম পাতা » গভীর রাতে বোট ক্লাবে কী করেছিলেন পরীমণি?

নজরুল এসেছিলেন আমাদের প্রিয় নারায়ণগঞ্জে

২৫ মে, ২০২১ | ৭:০০ অপরাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 75 Views

বাংলাদের মাটিতে যেমন মহান কবি কাজী নজরুল ইসলাম চির শায়িত আছেন। জাতিরজনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান অসুস্থ কবিকে কলকাতা থেকে বাংলাদেশে নিয়ে আসেন ২৪ মে ১৯৭২ সালে। চারটি বছর নজরুল ঢাকায় রাস্ট্রীয় সেবাশুশ্রয়ার মধ্যে ছিলেন। ১৯৭৬ সালে এই মহা বিদ্রোহী কবির চোখ চির তরে বন্ধ হয়। নজরুল তার প্রথম দিকের অভিশাপ “শীর্ষক একটি দীর্ঘ কবিতায় লিখেছিলেন — যেদিন আমি হারিয়ে যাব , বুঝবে সেদিন বুঝবে / অস্তপারের সন্দ্ব্যতারায় আমার খবর পছবে / বুঝবে সেদিন বুঝবে। আজ আমরা তার কথাটি সত্যি বুঝতে পেরেছি। নারায়ণগঞ্জের গুনি শ্রদ্ধেয় কবিদের সাথে আলাপ করে জানতে পেরেছি —– ১৯১৪ সালে কবি কাজী নজরুল ইসলাম প্রথম নারায়ণগঞ্জে আসেন। তার বয়স তখন পনের ছিল। সে বার মূলত তাঁর যাএার গন্তব্যটি ছিল ময়মনসিংহ। তিনি নারায়ণগঞ্জ হয়ে ময়মনসিংহ যান। তখন যাতায়াত হতো লঞ্চঘাট দিয়ে। এখনকার মতো রাস্তাঘাট উন্নত ছিল না। নজরুল ইসলাম ১৯২৬ সালে ২ রা জুলাই নারায়ণগঞ্জে বসে অভিযান কবিতাটি লিখেন। কবিতাটি মোহাম্মদ কাসেম (১৯০৫ — ১৯৭০) সম্পাদিত মাসিক অভিযান পএিকায় প্রথম প্রকাশিত হয়। মাসিক অভিযান নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রকাশিত হতো। তার প্রথম দু’ টি সংখ্যা নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রকাশিত হয়। প্রথম সংখ্যা প্রকাশিত হয়েছিল বাংলা — ভাদ্র ১৩৩৩ সালে। পরে কলকাতা থেকে নতুন রুপে অভিযান এর প্রকাশিত হয়েছিল। নজরুল তার পান্ডুলিপিতে অভিযান কবিতার শেষে স্বাক্ষর করে লিখেছিলেন — নারায়ণগঞ্জ — ২-৭-২৬। অভিযান নতুন পথের যাএা পথিক / চালাও অভিযান উচ্চ কনঠ উচ্চারণ আজ — মানুষ মহীয়ান চারিদিকে আজ ভীষণ মেলা/ খেলবি কে আয় নতুন খেলা জোয়ার, জলে ভাসিয়ে ভেলা বাইবি আজ ভীষণ উজান / ফেড়ে চলি মাতাল। নারায়ণগঞ্জে ২–৭–২৬। আমি পূরব দেশের পুরনারী গানটি নজরুল ইসলাম শীতলক্ষ্যা ঘাটে বসে রচনা করেন। ১৯৭৪ সালে নজরুল শেষ বারের মতো নারায়ণগঞ্জে আসেন। সাংস্কৃতিক সংগঠন শাপলার পক্ষে থেকে নজরুল জয়ন্তীতে কবিকে সংবধর্না জানানো হয়। নজরুলের সাথে এসেছিল —- রমেশ দাশগুপ্ত, উমা, কাজী খিলখিল , কাজী মিষ্টি, ও রেণু ভৌমিক। নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে সেই অনুষ্ঠানে হাজার হাজার লোকের সমাগম হয়ে ছিল। রাস্তা বন্ধ হয়েছিল। জনগণের চাপে নারাযণগঞ্জ ক্লাবের পূর্ব দিকের দেয়াল ভেঙে পড়েছিল। কাজী নজরুল ইসলাম জন্ম ২৫শে মে ১৮৯৯ (১১ই জৈষ্ঠ্য, ১৩০৬ বঙ্গাব্দ)। বাল্যকালে তার নাম ছিল দুখু মিয়া। বিদ্রোহী কবি নামে বেশি খ্যাত ছিল। কবি নজরুল ইসলাম প্রথম কবিতা প্রকাশিত মুক্তি (১৩২৬)। আবুল মনসুর আহমেদ এর কোন গ্রন্থে নজরুল ভূমিকা, রচনা- আয়না। কাজী নজরুল এর কাব্যগ্রন্থটি সঞ্চিতা রবীন্দ্রনাথকে উৎস্বর্গ করেন। বিদ্রোহ কবিতাটি পরে রবীন্দ্রনাথ মুগ্ধ হয়েছিলেন। নজরুল এর সর্বপ্রথম কবিতা প্রকাশিত হয় বঙ্গীয় মুসিলম সাহিত্য পত্রিকা। ধুমকেতু কাজী নজরুল ইসলামের প্রবন্ধ গ্রন্থ। প্রকাশকাল ১৯৬০ সালের। এ পর্যন্ত কাজী নজরুলের গ্রন্থের সংখ্যা ৫১টি। বাংলাদেশের জাতীয় কবি হিসেবে ১৯৭২ সালে ২৪ শে স্বকৃতি (সংবাধনিক ভাবে এখনো পাননি)। হে বিদ্রোহী আর দেশে একজন কাজী নজরুলের খুব দরকার। যাহার দীপ্ত কন্ঠ আজ বলতে- “মহা বিদ্রোহী রণ ক্লান্ত, আমি সেই দিন হব শান্ত,

যবে উৎপীড়িতের ক্রন্দন- রোল আকাশে বাতাসে

ধ্বনিবেনা,

অত্যাচারী খড়গ কৃপায় ভীম রণভূমে রনিবে না,

বিদ্রোহী রনক্লান্ত

আমি সেই দিন হবো শান্ত।

আজ মঙ্গলবার বিদ্রোহী কবির ১২২ তম জন্মবার্ষিকীতে তাকে গভীর শ্রদ্ধা।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *