আজ: রবিবার | ৫ই জুলাই, ২০২০ ইং | ২১শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১৩ই জিলক্বদ, ১৪৪১ হিজরী | রাত ৪:৩৪

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

না’গঞ্জ আ’লীগে ত্যাগী নেতার অভাব!

ডান্ডিবার্তা | ১৫ নভেম্বর, ২০১৯ | ১২:৪৩

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা কড়া কড়া বক্তব্য দিলেও দলের মধ্যে অনুপ্রবেশকারীদের হিড়িক পড়েছে। সাড়া দেশে অনুপ্রবেশকারীদের রুখতে যখন আওয়ামীলীগের রাজনীতি সরব তখন নারায়ণগঞ্জে অনুপ্রবেশকারীদের আওয়ামীলীগে যোগদানের হিড়িক দেখে মাঠ পর্যায়ের ত্যাগী নেতাকর্মীরা এখন হতাশ। জানাগেছে, অনুপ্রবেশকারীদের নিয়ে সম্প্রতি জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে সাংসদরা ও নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পেরেশনের মেয়রও বিভিন্ন প্রকার মন্তব্য করেছেন। অথচ দলের সদস্য সংগ্রহ অভিযান ও নতুন কমিটিগুলোতে বিএনপি থেকে শুরু করে বিভিন্ন সংগঠনের এক সময়ের সক্রিয় নেতারা এখন আওয়ামীলীগার বনে যাচ্ছে। বিশেষ করে ফতুল্লা থানা আওয়ামীলীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে  গত কয়েক সপ্তাহ ধরেই ফতুল্লা থানাধীন ইউনিয়নগুলোর প্রতিটি ওয়ার্ডে সদস্য সংগ্রহ ও কমিটি দেয়া হচ্ছে। অভিযোগ রয়েছে, বিএনপির সক্রিয় সদস্যরা কমিটিতে পদ দেয়া হচ্ছে। এনিয়ে ইতিমধ্যে কাশীপুর ও বক্তবলী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে। তারা বলছেন, বিএনপি নেতা থেকে শুরু করে ভূমিদস্যু ও সন্ত্রাসীদের আওয়ামীলীগের গুরুত্বপূর্ণ পদ দেয়া হচ্ছে। ত্যাগীদের বাদ দিয়ে এমন কমিটি গঠনে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা এখন হতাশ। এর আগে রূপগঞ্জ, আড়াইহাজার ও সোনারগাঁ আওয়ামীলীগের কমিটি নিয়েও সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহিদ বাদলসহ জেলা আওয়ামীলীগের শীর্ষ নেতারা। রূপগঞ্জ ও আড়াইহাজার আওয়ামীলীগের কমিটিকে স্থানীয় ত্যাগী নেতারা পকেট কমিটি দাবী করে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। আর সোনারগাঁ আহবায়ক কমিটি দিলেও কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশে তা বাতিল করে দেয়া হয়েছে। এদিকে গত মঙ্গলবার একটি অনুষ্ঠানে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বলেছিলেন, বর্তমান রাজনীতি এমন পর্যায়ে চলে এসেছে যে ধান্দা আর ধান্দা। সুবিধাবাধীদের রাজনীতিতে ছেয়ে গেছে পুরো বাংলাদেশ। কাউয়া, ব্যাঙ আর সন্ত্রান্সী মাস্তানি যাদের তাদের আজকে রাজনীতি আজকে একটা পর্যায়ে চলে গেছে। জননেত্রী শেখ হাসিনা উপলব্দি করেছেন যারা আমার সত্যিকার কর্মী তাদের মূল্যায়ন করা উচিত। এ কারণে যারা রাজনীতিতে সুবিধাবাদীদের দলে, নিজেদের আখের গোছানোর জন্য রাজনীতি করে। আনোয়ার হোসেনের এমন বক্তব্যকে সমর্থন জানিয়েছে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগের মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। এদিকে, সুবিধাবাদিদের কদর বেড়ে যাওয়ায় আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে ত্যাগী নেতাকর্মীদের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে। অনুপ্রবেশকারীদের দাপটে ত্যাগীরাই এখন বিপাকে রয়েছেন। সূত্র বলছে, টানা তৃতীয় বার আওয়ামীলীগ সরকার ক্ষমতায় থাকায় শীর্ষ নেতা থেকে শুরু করে অনুপ্রবেশকারীরা আঙ্গুল ফুলে কলাগাছ বনে গেলেও ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটেনি মাঠ পর্যায়ের ত্যাগী নেতাকর্মীদের। এমন অনেক নেতা রয়েছেন, যারা বিগত দলের স্বার্থে রাজপথে থেকে নানা ভাবে নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন তারা এখন দল ক্ষমতায় থাকার পরও হাইব্রীড নেতাদের দ্বারা নির্যাতনের শিকার হচ্ছেন।যার ফলে অনেক ত্যাগী নেতা রাজনীতিই ছেড়ে দিয়েছেন। অথচ যারা মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের পক্ষে কড়া কড়া বক্তব্য দিচ্ছেন তারা মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের জন্য কোন উদ্যোগী ভূমিকা না রেখে উল্টো দলের মধ্যে বহিরাগতদের সুযোগ করে দিচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। তাই নারায়ণগঞ্জে আওয়ামীলীগের রাজনীতিতে ত্যাগী নেতাকর্মীদের সংখ্যা দিন দিন কমে যাচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *