Home » শেষের পাতা » সোনারগাঁয়ে এক হাজার পরিবারের জন্য বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থা করলেন এমপি খোকা

নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে সুবাতাস

১৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ | ৯:১৩ পূর্বাহ্ন | ডান্ডিবার্তা | 56 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ বিএনপিতে ঐক্যের সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। জেলা ও মহানগর বিএনপিসহ অঙ্গসংগঠন গুলিতে দীর্ঘ দিন যাবত বিভাজন চলে আসায় মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে হতাশা সৃষ্টিসহ জেলার শীর্ষ নেতাদের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করে আসছিল। অবশেষে বিএনপির শীর্ষ নেতাদের মধ্যে জিয়ার খেতাব বাতিল ইস্যূতে এক কাতারে আসার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে জিয়ার খেতাব বাতিল ইস্যূকে কেন্দ্র করে তৈমূর গ্রুপ ও কালাম গ্রুপের নেতাকর্মীদের মধ্যে এক কাতারে আসার লক্ষণ দেখা দিয়েছে। গত বুধবার সাখাওয়াত হোসেন খান ও তার কতিপয় অনুসারি ছাড়া দুই গ্রুপের নেতাকর্মীদের একসাথে মিছিল করতে দেখা গেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সাব্বির আলম খন্দকারের মৃত্যুবার্ষিকীকে কেন্দ্র করে শহরে দুই গ্রুপ মিলে যে বিক্ষোভ মিছিল বের করে তা স্বরণকালের মধ্যে অনেকটাই বড় ছিল বলে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের দাবি। দীর্ঘ দিন পর গত বুধবার মহানগর বিএনপির সাথে মহানগর যুবদলের সভাপতি মাকসুদ আলম খন্দকার খোরশেদ জিয়ার খেতাব বাতিলের ইস্যূতে বের করা বিক্ষোভে এক কাতারে মাঠে নামেন। এতে করে মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা মনে করছেন বিএনপিতে ঐক্যের সুবাতাস বইতে শুরু করেছে। তবে মহানগর বিএনপির কমিটি এখনো বহাল থাকলেও নেতায় নেতায় কোন্দলের কারণে পৃথক ভাবে কর্মসূচী পালিত হচ্ছে। এ অবস্থার অবসান চায় মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তাদের বক্তব্য ঘরে বসে থাকলেও হামলা মামলার শিকার হতে হয়। তার চাইতে রাজপথের আন্দোলনে ঐক্যবদ্ধ ভাবে মাঠে নামলে বিএনপি সাধারণ মানুষের সহানুভ’তি যেমন পাবে তেমনই সরকারি দলের মোকাবেলায় আগামীতে মাঠ গরম রাখতে পারবে। যদিও সাখাওয়াত এবং তার কয়েকজন অনুসারি এখনো আলাদা ভাবে মাঠে কর্মসূচি পালন করে চলেছেন। এ বিষয়টি মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মী থেকে শুরু করে বিএনপির সাধারণ সমর্থকরা খুব একটা ভাল চোখে দেখছেন না। তাদের বক্তব্য রাজনীতিকে রাজনৈতিক ভাবেই মোকাবেলা করতে হবে। বিএনপির নেতাদের অনৈক্যের কারণে নারায়ণগঞ্জের রাজপথে দাঁড়াতে পারেনি মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। তারা মনে করে জেলার সকল রাজনৈতিক নেতা যদি নিজেদের মধ্যে বিভাজন ভুলে এক কাতারে আসতে পারে তবে ক্ষমতাসীন দলকে মোকাবেলা করা সময়ের ব্যাপার মাত্র। রাজনৈতিক বিভেদ ভুলে পুলিশের হামলা মামলার ভয়ে রাজপথ না ছেড়ে নেতারা মাঠে নামলে কর্মীরাও মাঠে নামবে এমনটাই মন্তব্য মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক বিএনপি নেতার বক্তব্য ব্যক্তিগত ইগু আর পদ পদবী হারানোর ভয়ে নেতারা অনৈক্য জিয়িয়ে রেখেছে। এ অবস্থার অবসান চায় বিএনপির কর্মী সমর্থকরা। এক্ষেত্রে যারা ঐক্যে বাধা হয়ে দাঁড়াবে তারা বিএনপির রাজনীতি থেকে ঝড়ে পড়বে বলে মন্তব্য করে বলেন, পুলিশের বাধা অতিক্রম করে আমরা রাজপথ দখলে নিতে চাই। নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতাকর্মীদের চাইতে সমর্থকদের সংখ্যা যে অনেক বেশী তা আগামীতে রাজপথেই প্রমান করতে চায় বিএনপির মাঠ পর্যায়ের সাধারণ নেতাকর্মীরা।

Comment Heare

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।