আজ: মঙ্গলবার | ২রা জুন, ২০২০ ইং | ১৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ১০ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | দুপুর ১২:৫১

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

নারায়ণগঞ্জ বিএনপির কমিটি ভেঙ্গে দেয়া হচ্ছে!

ডান্ডিবার্তা | ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ | ৩:০২

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট
নারায়ণগঞ্জ বিএনপিকে চাঙ্গা করার নামে একটি পক্ষ নতুন ভাবে খেলা শুরু করেছে। ইতিমধ্যে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির ব্যর্থতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে মহানগর বিএনপির একটি খসড়া কমিটি তৈরীর প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে। এ খসড়া প্রস্তুতের পর সেটি দলীয় ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপার্সন বরাবার পাঠানো হবে। দলীয় একাধিক সুত্র জানায়, খুব শিঘ্রই নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির গতিশীল একটি কমিটি ঘোষণা করা হবে যেখানে স্থান পাবে রাজপথের সক্রিয় ও সাহসী নেতারা। এটিএম কামাল বর্তমানে নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন এবং মাকসুদুল আলম খন্দকার খোরশেদ বর্তমানে মহানগর যুবদলের সভাপতি হিসেবে আছেন। দলীয় বিভিন্ন কর্মসূচীতে রাজপথে থেকেই কর্মসূচী পালনের চেষ্টা করেন তারা দুজন। একটি পক্ষ এ দুইজনকে দিয়ে কমিটি গঠনের পক্ষে কাজ করছেন। যদিও আরেক পক্ষে সাখাওয়াত হোসেন খানকে সভাপতি করে কমিটি খসড়া কমিটি তৈরি করছেন বলে জানা গেছে। ২০১৭ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি আবুল কালামকে সভাপতি করে এবং এটিএম কামালকে সাধারণ সম্পাদক করে দলের আংশিক কমিটি গঠন করা হয়। পরে সেটিকে পূর্ণাঙ্গ করা হয়। নারায়ণগঞ্জ মহানগর বিএনপির দ্বন্দ্ব ও বিভক্তির ফলে পৃথক পৃথক ব্যানারে দলীয় কর্মসূচি পালনের নানা দৃশ্য দেখা গেছে। সেই দ্বন্দ্ব কোন্দল এক পর্যায়ে বিরাট আকার ধারণ করে। দ্বন্দ্ব কোন্দলের বহিঃপ্রকাশ ঘটে দলটির মহাসচিবসহ নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি সেক্রেটারীর বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেয়ার মধ্য দিয়ে। এরই মধ্যে মহানগর বিএনপির কমিটির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। আদালত কমিটির উপর স্থিতি অবস্থা জারি করেছে। নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির সভাপতি দ্বয়ের রাজপথ বিমুখ থাকার সুযোগে মগানগর বিএনপির আলাদা ভাবে দু’টি কমিটি গঠনের প্রস্তুতি চলছে এমন সংবাদ খোদ কেন্দ্রেও রয়েছে। এ ব্যপারে কেন্দ্রীয় বিএনপির একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর বিএনপির বর্তমান কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পদকের রাজপথ বিমুখের খবর তাদের রয়েছে। বেগম জিয়ার মুক্তিসহ বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে নারায়ণগঞ্জ বিএনপি রাজপথে কোন প্রকার আন্দোলন গড়ে তুলতে পারেনি যার ব্যর্থতা বর্তমান নেতৃত্ব কোন অবস্থাতেই অস্বীকার করতে পারেনা। নারায়ণগঞ্জে বিএনপির কর্মীরা শত হামলা মামলার পরও যোগ্য নেতৃত্ব পেলে রাজপথে আন্দোলন গড়ে তুলতে পারবে বলে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব মনে করে। গত বছরের বিজয় দিবসের মিছিলে নেতাকর্মীদের রাজপথে উপস্থিতি প্রমান করেছে নেতারা ঘরে বসে থাকায় কর্মীরা মাঠে নামতে ভয় পায়। অথচ জেলার দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা যদি রাজপথে নামতো তবে নারায়ণগঞ্জ বিএনপির অবস্থান ক্ষমতাসীন দলের চাইতে আরো বেশী শক্তিশালী হতো বলে কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব মনে করছে। এ কারণে বর্তমান জেলা ও মহানগর কমিটির শীর্ষ নেতাদের অথর্ব আখ্যায়িত করে কেন্দ্রীয় বিএনপির একজন নেতা জানান, নারায়ণগঞ্জ জেলা মহানগর কমিটি অচিরেই ভেঙ্গে দিয়ে প্রথমে আহবায়ক কমিটি ও পরে পুর্নাঙ্গ কমিটি অনুমোদন দেয়া হবে। আগামী কমিটিতে ত্যাগী ও মাঠ পর্যায়ের সাহসী নেতাদের স্থান দেয়া হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *