Home » শেষের পাতা » মেয়াদি সুদের ফাঁদে জিম্মি হত-দরিদ্র জনগোষ্ঠী

নাসিক নির্বাচিত উৎসবে মুখরিত

০১ জানুয়ারি, ২০২২ | ৯:১৪ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 68 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন ঘিরে মেয়র, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর ও সাধারণ কাউন্সিলরদের পদচারনায় মুখরিত নগরীর ২৬টি ওয়ার্ড। শুক্রবার সরকারী ছুটির দিন হওয়ায় প্রার্থীরা ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছেন। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত (জুম্মার নামাজ শেষে) তাদের প্রচারণায় সরগরম হয়ে উঠে নগরীর অলিগলি। একদিকে প্রার্থীদের গুণকির্তন তুলে ধরে গান-বাজনা অন্যদিকে প্রার্থীদের নির্বাচনী মিছিল ভোটারদের দৃষ্টি কাড়ে। ছুটি দিন হওয়ায় ভোটারদের বাসায় পাওয়া যাবে তাই মক্ষম এই সুযোগটি হাত ছাড়া করেননি কোন প্রার্থী। ভোটাররাও প্রার্থীদের কাছে পেয়ে নির্বাচনী আমেজে সমীল হয়েছেন। নানা প্রতিশ্রুতি আর আশার বানী তুলে ধরে ভোট চেয়েছেন প্রার্থীরা। নতুন প্রার্থীরা বর্তমান প্রার্থীর নানা ব্যর্থতার চিত্রও তুলে ধরেছেন ভোটারদের কাছে। তবে পুরুষ প্রার্থীদের বেশিরভাগই জম্মার নামাজে প্রচারণায় মসজিদকে কাজে লাগিয়েছেন। নামাজ পড়তে গিয়ে মুসুল্লিদের সাথে কুশল বিনিময় ছিল চোখে পড়ার মতো। আবার কেউ কেউ নামাজ শুরুর আগে বক্তব্য দিয়ে নিজের পক্ষে সমর্থন চেয়েছেন। আবার কেউ কেউ দোয়া চেয়েছেন ঈমাম সাহেবের কাছে। ওদিকে গতকাল শুক্রবার একদিকে ছুটির দিন অন্যদিকে বছরের শেষ দিন। তাই প্রচারণার সময় প্রার্থীদের অনেকেই ভোটারদের ইংরেজী নববর্ষের আগাম শুভেচ্ছাও জানিয়েছেন। মোটকথা নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি আর নতুন বছরের শুভেচ্ছার মধ্যদিয়ে প্রচরণা শেষে করেছেন প্রার্থীরা। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সকালে নাসিকের সিদ্ধিরগঞ্জের ৫নং ওয়ার্ড থেকে প্রচারণা শুরু করেন স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা তৈমুর আলম খন্দকার। জুম্মার নামাজের আগ পর্যন্ত তিনি ৬নং ওয়ার্ডে প্রচারণ করেন। নামাজের বিরতী দিয়ে বিকাল ৩টা থেকে ৬নং ওয়ার্ডের বাকী অংশ ও ১০নং ওয়ার্ডে  রাত পর্যন্ত গণসংযোগ করেন তিনি। এসময় তার সাথে বিএনপির স্থানীয় নেতাকর্মী, সমর্থক ছাড়া বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন। একইভাবে সকাল থেকে নগরীর ১৩ নাম্বার ওয়ার্ড থেকে প্রচারণা শুরু করেন আওয়ামীলীগের মনোনীত মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী। জুম্মার নামাজের পর বিকাল ৩টা থেকে ৬নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন তিনি। সকাল থেকে ১২ ও ১৩ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের মনোনীত মেয়র প্রার্থী (হাতপাখা) মুফতি মাসুম বিল্লাহ। ১৮ নাম্বার ওয়ার্ডে উঠান বৈঠক করেছেন খেলাফত মজলিসের মেয়র প্রার্থী এবিএম সিরাজুল মামুন। জুম্মার নামাজের পর নির্বাচনী মিছিল বের করেন ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী রুহুল আমীন মোল্লা ও মহসিন প্রধান। ৬নং ওয়ার্ডে প্রচারণা চালিয়েছেন কাউন্সিলর প্রার্থী মতিউর রহমান মতি (ঠেলাগাড়ি), সিরাজুল ইসলাম মন্ডল (ঘুড়ি) ও মিজানুর রহমান (মিস্টি কুমড়া)। ৩নং ওয়ার্ডে ব্যাপক প্রচারনা চালিয়েছেন এ আর ফররুখ আহমদ (রেডিও)। এছাড়াও প্রচরাণা চালিয়েছেন শাহজালাল (ঠেলা গাড়ি) ও তোফায়েল হোসেন (ঘুড়ি)। ২নং ওয়ার্ডে প্রচারণায় ছিলেন আমিনুল হক ভুইয়া রাজু (ঘুড়ি)। ৪নং ওয়ার্ডে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছেন আরিফুল হক হাসান (লাটিম)। ১ নং ওয়ার্ডে প্রচারণায় ছিলেন মাহমুদুর রহমান (লাটিম), আনোয়ার ইসলাম (ঠেলাগাড়ি), ৫নং ওয়ার্ডে গোলাম মুহাম্মদ সাদরিল (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), ৭নং ওয়ার্ডে মো: ফজলুল হক (মিস্টি কুমড়া) ও মিজানুর রহমান খান (রেডিও), ৯নং ওয়ার্ডে ইস্রাফিল প্রধান (করাত), ১০ নং ওয়ার্ডে ইফতেখার আলম খোকন (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), লিয়াকত আলী (ঘুড়ি), ১১ নং ওয়ার্ডে অহিদুল ইসলাম (ঝুড়ি), শাহাদাত হোসে (ঘুড়ি), আনোয়ার হোসেন মুক্তি (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট)। ১২নং ওয়ার্ডে শওকত হোসেন (লাটিম) ও নাঈম হোসেন (ঠেলাগাড়ি), মাকছুল আলম খোরশেদ (ঠেলাগাড়ি) ও শাহ ফয়েজ উল্লাহ (রেডিও), ১৪ নং ওয়ার্ডে মনিরুজ্জামান মনির (ঘুড়ি), দিদার খন্দকার (ঝুড়ি) ও শফিউদ্দিন প্রধান (লাটিম), ১৫ নং ওয়ার্ডে অসিত বরণ বিশ্বাস (ঝুড়ি), খোকন সাহা (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), জিএম আরমান (লাটিম), ১৬ নং ওয়ার্ডে কবির হোসেন (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), সাইদুল ইসলাম (মিস্টি কুমড়া), ১৭ নং ওয়ার্ডে আব্দুল করিম (ঘুড়ি), আলাউদ্দিন ভুইয়া (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), মোস্তাক হোসে (লাটিম), শেখ হাছান আলী (ঠেলাগাড়ি), ১৮ নং ওয়ার্ডে মকছুদুর রহমান (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), কামরুল হাসান মুন্না (ঘুড়ি), কবির হোসাইন (ঠেলাগাড়ি), ১৯ নং ওয়ার্ডে ফয়সাল মো: সাগর (করাত), মোখলেছুর রহমান (লাটিম), ২০ নং ওয়ার্ডে গোলাম নবী মুরাদ (লাটিম), শাহেন শাহ আহমেদ (করাত), ২১ নং ওয়ার্ডে মো: হান্নান সরকার (রেডিও), আজিজুল হক (লাটিম), ২২নং ওয়ার্ডে কাজী জহিরুল ইসলাম (ঠেলাগাড়ি), মাসুদ খান (ঘুড়ি), ইসরাত জাহান খান (ঝুড়ি), ২৩ নং ওয়ার্ডে সাইফুদ্দিন আহমেদ (লাটিম), আবুল কাউছার (ঠেলাগাড়ি), মো: হান্নান (ঘুড়ি), ২৪ নং ওয়ার্ডে আফজাল হোসেন (ঘুড়ি), আব্দুস সাত্তার (লাটিম), আমজাদ হোসেন (ঠেলাগাড়ি), ২৫ নাম্বার ওয়ার্ডে সামছুল আলম (লাটিম), এনায়েত হোসেন (ঠেলাগাড়ি), ২৬নং ওয়ার্ডে সামসুজ্জোহা (ঘুড়ি), মোজাম্মেল হক (ঠেলাগাড়ি), সুমন রহমান (ব্যাডমিন্টন র‌্যাকেট), ২৭ নং ওয়ার্ডে আসাদুজ্জামান বাদল  ঠেলাগাড়ী) সিরাজুল ইসলাম (লাটিম), আলমগীর মিয়া (ঘুড়ি)। এদিকে পিছিয়ে ছিলেন সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলররাও। তারাও ছুটির দিনটিকে কাজে লাগিয়েছেন। তাদের মধ্যে প্রচারণায় দেখা গেছে, ১, ২ ও ৩ নম্বর ওয়ার্ডে মাকসুদা মোজাফফর (গ্লাস), শামীম আরা লাভলী (বই), ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডে মনোয়ারা বেগম (মোবাইল ফোন), জান্নাতুল ফেরদৌস নীলা (বই)। ৭, ৮ ও ৯ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর আয়শা আক্তার দিনা (চশমা), রেহানা পারভীন (আনারস), তাসনুভা নওরীন ইসলাম (বই), শারমিন শাকিল মেঘলা (মোবাইল ফোন), ১০, ১১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম (মোবাইল ফোন), নুপুর বেগম (আনারস), মৌসুমি ভুঁইয়া (চশমা)। ১৩, ১৪ ও ১৫ নম্বর ওয়ার্ডে কাউন্সিলর শারমিন হাবীব বিন্নি (বই), পপি রানী সরকার (মোবাইল ফোন)। ১৬, ১৭ ও ১৮ নম্বর ওয়ার্ডে আফসানা আফরোজ বিভা হাসান (আনারস), সানজিদা আহমেদ জুয়েলী (বই), খোদেজা খানম নাসরীন (হেলিকপ্টার)। ১৯, ২০ ও ২১ নম্বর ওয়ার্ডে শিউলী নওশাদ (বই), নুরুন্নাহার বেগম (আনারস), মায়ানুর আহমেদ (চশমা), শারমিন ইসলাম (মোবাইল ফোন)। ২২, ২৩ ও ২৪ নম্বর ওয়ার্ডে শাওন অংকন (বই), শাহনাজ আক্তার ভুঁইয়া (জিপ গাড়ি), ডলি বেগম (আনারস)। ২৫, ২৬ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ড এ হোসনে আরা  (চশমা), সানিয়া আক্তার (আনারস), শাহী ইফাৎ জাহান (বই)।

 

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *