Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

নির্বাচনে পরিস্থিতি অস্থিতিশীল করে জাতীয় ইস্যু সৃস্টির পাঁয়তারা

১০ নভেম্বর, ২০২১ | ৯:০৬ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 51 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

আর দুই দিন পরই নারায়ণগঞ্জের তিনটি উপজেলার ১৬ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। যেখানে নৌকার প্রার্থীর পাশা-পাশি রয়েছে লাঙ্গল, হাতপাখার প্রার্থীসহ স্বতন্ত্র প্রার্থীও। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি ইউনিয়নের নির্বাচনে ভয়, আশংকা, সংঘাতের অশনি বাজতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গনে এক প্রেসব্রিফিং করলেন নারায়ণগঞ্জ ৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান। যেখানে তিনি সংশয় প্রকাশ করেছেন একটি গোষ্ঠি লাশের রাজনীতি করার চেষ্টা করছেন। আশার কথা শুনিয়েছেন, প্রশাসন  একটি সুন্দর অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে পারবে। আর নারায়ণগঞ্জ শহরকে ডেড সিটি আখ্যা দিয়ে বাসা ভাড়া বাড়তি হওয়ার কারণ টা যেমন জানিয়েছেন, তেমনি জানালেন বাস মালিকদেও অনুরোধ  করে ভাড়া কমানোর কথাও। দেশের প্রভাবশালী রাজনীতিবিদ শামীম ওসমান বলেছেন, ‘আমি সহযোগীতা চাই সকলের। একটি উগ্র মৌলবাদী গোষ্ঠী লাশের রাজনীতি করার চেষ্টা করছে। যে যার যার পছন্দ মত ভোট দেবে। কেউ যদি বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করে তাহলে নারায়ণগঞ্জের প্রশাসন যথাযথ ব্যবস্থা নেবে’। তিনি বলেন, ‘সাংবাদিকরা আপনাদের চোখ কান খোলা রাখবেন। যেভাবে ১৬ জুন ২০০১ এ বোম ব্লাস্ট করা হয়েছিল। সামনে আরেকটা নির্বাচন আসছে। কোন নির্বাচন আমি বলতে চাই না। ঠিক একই ভাবে এই এলাকায় নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার জন্য এমন কোন গোম খেলতে পাওে, যাতে একটা অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি হয় কিংবা আমরা যেন প্রশ্নবিদ্ধ হই। একটা জাতীয় ইস্যু সৃস্টি করতে চায় ওই গোষ্ঠি’। দেশের আলোচিত এ নেতা বলেন, ‘এটা আমাদের নারায়ণগঞ্জ। আমরা সবাই নারায়ণগঞ্জের বাসিন্দা। আপনারা জানেন, নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা একটা বড় উপজেলা। একটা উপজেলায় একটা এমপি এলাকার সমান ভোট আছে। প্রায় দুই লাখের ওপর ভোট আছে শুধু কুতুবপুর ইউনিয়নেই। প্রায় সাত আট লাখের মত ভোট সদর এলাকায় আছে। আমি ব্যাক্তিগতভাবে খুব অসুস্থ। আগামীকাল আমার জন্য মেডিকেল বোর্ড বসবে। তারপরেও একটি খবর পেয়ে আমাকে ছুটে আসতে হয়েছে। একটা তৃতীয় পক্ষ সুযোগ নেয়ার চেষ্টা করছে। তারা হতে পারে স্বাধীনতা বিরোধী বা হতে পারে মোশতাকের বংশধর বা মৌলবাদী শক্তি। আমাদের পুলিশ, গোয়েন্দা, বিজিবি, র‌্যাব যথেষ্ট ভূৃমিকা পালন করছেন। যেহেতু এই এলাকাটা মূলত আমার। তাই আমার নির্বাচনী এলাকায়, একটা ইস্যু তৈরি কওে, একটা লাশের রাজনীতি করার চেষ্টা হচ্ছে। আমি প্রশাসনের সাথে আলোচনা করবো। আমাদের এলাকায় শতভাগের ওপরে আমরা নিশ্চিত করেছি- ফ্রী এন্ড ফেয়ার নির্বাচন হবে। যারা নির্বাচনের মাঠে নেই, তারাই এই গেম খেলার চেষ্টা করছে। শামীম ওসমান বলেন, কিছু কিছু বক্তব্য সারা দেশে আমাদের দলের ভাবমূর্তি বিনষ্ট করছে, জাতির পিতার কন্যার ভাবমূর্তি বিনষ্ট করছে। এই সমস্ত হাউব্রিড বক্তব্যের কারনে ‘নারায়ণগঞ্জ’, যেখান থেকে আওয়ামী লীগের সৃষ্টি হয়েছে, সেখানে আমরা এমন কিছু হতে দেব না, যেখানে আমাদের দল বা নেত্রীর ভাবমূর্তি নষ্ট না হয়। এমপি বলেন, প্রশাসনের সকলের সাথে বৈঠক করে আলোচনা করেছি। ডিসি মহোদয়ের সাথেও বৈঠক করবো, তাকে জানাবো। আমি প্রশাসনকে পরিষ্কার ভাবে জানিয়েছি- আমরা চাই একটা ফ্রী এবং ফেয়ার ইলেকশন হোক। সম্প্রতি সবচেয়ে আলোচিত বিষয় ‘বাস ভাড়া’। এ বিষয়ে শামীম ওসমান বলেন, যৌক্তিক কারণেই তেলের দাম বাড়ানো হয়েছে। নারায়ণগঞ্জে আমার নিজেরও একটি বাস কোম্পানি আছে ‘শীতল পরিবহন’। আমরা তাদের বলেছি ভাড়া কমাতে। ইতিমধ্যে অনেক বাস মালিকরা আমাদের অনুরোধে টিকিটপ্রতি পাঁচ টাকা করে কমিয়েছে। তবে, নারায়ণগঞ্জ জ্যামের কারণে ডেড সিটিতে পরিণত হয়েছে। ছোট্র শহওে একটি গাড়ি ঘুরতে আধা ঘন্টা এক ঘন্টা লাগে। শহরে জ্যামের কারনে তেল বেশি পুড়ছে, যে কারনে বাসের ভাড়া কমানো সম্ভব হচ্ছে না। শামীম ওসমান একই সাথে জানান, ‘প্রশাসনকে বলতে চাই- যাদের রুট পারমিট নাই সে গাড়ি গুলো যেন না চলতে পারে খেয়াল রাখবেন। এতে করে যাদের পারমিট আছে তারা যথেষ্ট যাত্রী পাবেন ফলে আরও ভাড়া কমানো সম্ভব হবে। আমাদের পরিবারও এ বাসে চড়ে। সাধারণ মানুষ এ বাসে চলে। সাংবাদিক ভাইয়েরাও আমাদের এই রুট পারমিট ও ট্রাফিক জ্যামের বিষয়টা তুলে ধরবেন আশা করি’।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *