Home » শেষের পাতা » অধিগ্রহণ হচ্ছে নদীর জমি

নেতৃত্ব সংকটে না’গঞ্জের রাজনীতি!

২৩ জানুয়ারি, ২০২৩ | ৯:৫৯ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 49 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট নানা কারনেই দেশব্যাপি আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে পরিনত হয় নারায়ণগঞ্জ। ঢাকার পাশ্ববর্তী জেলা হিসেবে রাজনীতির ঘন্টা নারায়ণগঞ্জ থেকে বাজলে পুরো বাংলাদেশে এর প্রভাব ছড়িয়ে পড়ে। এমনকি নারায়ণগঞ্জের রাজনৈতিক প্রভাবও কেন্দ্রের রাজনীতিতে বিস্তার করে। অথচ রাজনীতির সূতিকাঘার এই নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে ক্লিন ইমেজের নেতার বেশ সংকট রয়েছে। রাজনীতিকে ভাগ্য পরিবর্তনের চাবি হিসেবে ব্যবহার করছেন কেউ কেউ। যার ফলে নারায়ণগঞ্জে রাজনীতির সঠিক চর্চা হচ্ছে না। ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ নেতারা ব্যস্ত নিজেদের ভাগ্য পরিবর্তন করতে। আর বিএনপিতে পদ-পদবী দখলের প্রতিযোগীতা চলছেই। সূত্র বলছে, রাজনীতির সঠিক চর্চা থেকে দূরে সরে এসেছেন নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিকরা। সংগঠনকে শক্তিশালী করার পরিববর্তে নিজ বলয়কে শক্তিশালী করতে ব্যস্ত সময় পার করছেন দলগুলোর শীর্ষ নেতারা। নিজ বলয়কে শক্তিশালী করার জন্য চালানো হয় কেন্দ্রীয় লবিং। যার ফলে অনুসারী নেতাদের পক্ষ অবলম্বন করা নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের মাঝে বাড়ছে বিরোধ। আর ক্ষমতাসীন দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপি উভয় দলে এমন চিত্র দেখা যায়। যা নিয়ে দলের নেতা কর্মীদের পাশাপাশি সাধারণ মানুষও হচ্ছেন বিব্রত। তবে শীর্ষ রাজনীতিকরা যখন নিজেদের নিয়ে ব্যস্ত তখন তরুন নেতারা সক্রিয় হয়ে উঠেছেন রাজনীতিতে নিজেদের অবস্থান পাকা পোক্ত করতে। তবে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে একঝাক তরুণ ক্লিন ইমেজ তৈরী করতে মাঠে কাজ করছেন। অতীতের করোনা ঢেউ যখন নারায়ণগঞ্জে বিস্তর আকার ধারন করে ঠিক সে সময় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে সাধারন মানুষকে সহযোগিতা করতে দেখা গেছে তরুন নেতৃবৃন্দকে। আওয়ামীলী-বিএনপিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিকদলের তরুন নেতৃবৃন্দও নানা ভাবে সাধারন মানুষের পাশে থেকেছেন। করোনা সংক্রমন থেকে নিরাপদ থাকার জন্য লিফলেট বিতরন এবং রাতের আধারে সাধারন মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরনসহ বিভিন্ন সহযোগিতার মাধ্যমে ইতিমধ্যে অলোচনায় রয়েছে নারায়ণগঞ্জের তরুন নেতৃত্ব। মানব সেবার মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জের রাজনীতিতে কৌশলগত দিক দিয়ে সিনিয়রদের চেয়ে বেশ জোড়ে সোরে এগিয়ে যাচ্ছেন নতুন প্রজন্মের নেতৃত্ব দান দান কারি উদীয়মান নেতারা। আর এই সকল নেতৃত্ব স্থান দখল করা নেতাদের বিরুদ্ধে নেই তেমন কোন বির্তকিত কর্মকান্ডের অভিযোগ। এ সকল তরুণ নেতাদের মধ্যে যারা বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের অন্তভূক্ত কোন ধরনের সমালোচনা ছাড়াই সুনামের সাথে রাজপথ কাপিয়ে যাচ্ছেন তরুন নেতৃবৃন্দ। তবে ক্ষমতাসীনদলের তরুন নেতৃবৃন্দের মধ্যে অধিকাংশই ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ রয়েছেন। শুধু তাই নয় সারাদেশে যখন ছাত্রলীগকে নিয়ে নানা অপকর্মের তথ্য গণমাধ্যমে প্রকাশ হতে থাকে। এক্ষেত্রে সম্পূর্ণ উল্টো চিত্র নারায়ণগঞ্জের তরুন নেতৃবৃন্দের রাজনীতির প্রেক্ষাপট। এছাড়াও নারায়ণগঞ্জের তরুন রাজনীতিবীদরা রাজনীাতর পাশাপাশি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও তাদের দক্ষতার প্রমান দিয়ে আসছেন। প্রায় ৩য় দফা ক্ষমতার বাহিরে থাকা বিএনপির সহযোগী সংগঠনগুলোর তরুণ নেতৃবৃন্দরা রাজনৈতিক মামলা হামলার শিকার হওয়ার পরও দল থেকে পিছু হটেননি। বর্তমান নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃত্ব দেয়া সিনিয়র নেতাদের চেয়ে এই তরুণ উদীয়মান নেতারা দলকে সাংগঠনিক ভাবে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছেন বেশ জোড়ে সোড়ে। যারা রাজনৈতিক অঙ্গনে মামলা হামলার শিকার হয়েও সাংগঠনিক ভাবে নিজেদের পাশাপাশি সংগঠনকে চাঙ্গা করে রেখেছেন পারদর্শীতার সাথে। এদিকে, তরুণ নেতারা যখন ক্লিন ইমেজ তৈরীতে ব্যস্ত আর উল্টো পথে হাটছে রাজনৈতিক দলগুলোর সিনিয়র নেতৃবৃন্দ। এমনকি বিভিন্ন বিতর্কিতমূলক কর্মকা-ে জড়িত রয়েছেন শীর্ষ রাজনীতিকরা।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *