Home » প্রথম পাতা » পদ্মা সেতু জাতির আরেক বিজয়

নৌকা প্রার্থীরা বেকায়দায়!

০১ নভেম্বর, ২০২১ | ৬:১০ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 85 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

সদরের গোগনগর ও বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়াতে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের দুই প্রার্থী হুমকি ধামকিসহ নানা রকমের চাপের শিকার হচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে। এরমধ্যে উভয় ইউনিয়নেই নৌকার দুই প্রার্থীর ক্যাম্প ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছে। তবে সুবিধা জনক অবস্থানে রয়েছেন বন্দরের মুছাপুর ও বন্দর ইউনিয়নের লাঙ্গলের প্রার্থীরা। এ দুই ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী থাকলেও তাদের প্রতি মানুষের আস্থা নেই। তাদের পক্ষে মানুষের আনাগোনাও নেই। সকলেই লাঙ্গলের পক্ষে কাজ করছেন। মুছাপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মাকসুদ হোসেন সাধারণ মানুষের মন জয় করতে সক্ষম হয়েছেন। তাকে দলীয় প্রতীক না দিলেও তিনি বিনা বাধায় বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন এটা অত্র ইউনিয়নের ভোটাররাই জানান। কারণ তার কোন বদনাম নেই। তিনি ক্লিন ইমেজের মানুষ। বন্দর ইউপিতে চেয়ারম্যান এহসান উদ্দিন একজন শিক্ষিত ও ধনী ব্যক্তি তিনি শুধু সন্মানের জন্য ইউপি চেয়ারম্যান হয়েছেন। তিনি যে সন্মানী সরকার থেকে পান তার চেয়ে অনেক বেশী সাধারন মানুষের মধ্যে বিলিয়ে দেন। আর তার প্রতি মানুষের অঘাত বিশ্বাস ও ভালবাসা রয়েছে। তাই তাকে পরাজিত করার মত বন্দর ইউপিতে কোন প্রার্থী নেই। যদিও নৌকার প্রার্থী রয়েছে তার কোন অবস্থানই নেই বন্দর ইউপিতে। এদিকে গত শুক্রবার রাতে কলাগাছিয়া ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কাজিম উদ্দিন প্রধানের ক্যাম্প ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী দেলোয়ার প্রধানের লোকজনের বিরুদ্ধে এবং গোগনগর ইউনিয়নে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জসিম উদ্দিনের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে বিদ্রোহী প্রার্থী ফজর আলীর লোকজনের বিরুদ্ধে। তবে, তারা আওয়ামী লীগের সিনিয়র কোনো নেতাকে এই অবস্থায় পাশে পাচ্ছেনা বলেও অভিযোগ রয়েছে। তবে দেলোয়ার প্রধান নৌকা ক্যাম্প ভাংচুরের কথা অস্বীকার কেরেচন। সূত্র জানায়, বন্দর উপজেলার কলাগাছিয়া ইউনিয়ন পরিষদে লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থী দেলোয়ার প্রধান। তিনি সাংসদ সেলিম ওসমানের একনিষ্ঠ লোক। মূলত সাংসদের প্রভাবেই দেলোয়ারসহ তার অনুগামিরা নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর ওপর নানা রকম চাপ, হুমকি ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করেছেন বলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী কাজিম প্রধানের অভিযোগ। অন্যদিকে সদর উপজেলার গোগনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার প্রার্থী হতে চেয়েছিলেন ফজর আলী। তবে তিনি বঞ্চিত হয়েছেন। তিনি সাংসদ শামীম ওসমানের একনিষ্ঠ লোক। এই ইউনিয়নে নৌকা প্রতীক বরাদ্দ পেয়েছেন আওয়ামী লীগ নেতা জসিম উদ্দিন। তাকে সমর্থন করছেন সেলিম ওসমান। অভিযোগ উঠেছে, শামীম ওসমানের প্রভাবে প্রভাবিত হয়েই ফজর আলী নানা রকম জোর জবরদস্তি করছেন। নানা ভাবে ভয় দেখা”েছন নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে। সর্বশেষ এই ফজর আলীর লোকজন জসিম উদ্দিনের নৌকা প্রতীকের ক্যাম্প ভাঙচুর চালিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছেন জসিম উদ্দিনের পক্ষ থেকে। এদিকে ক্যাম্প ভাঙচুরের ঘটনায় বন্দরে কাজিম উদ্দিন প্রধান একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন বলে তিনি নিশ্চিত করেন। অপরদিকে সদর মডেল থানায় নৌকার প্রার্থী জসিম উদ্দিন একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন। জসিম তার অভিযোগে জানিয়েছেন,  গত ২৭ ও ২৮ অক্টোবর বিবাদী চরসৈয়দপুর এলাকার দৌলত হোসেন মেম্বারের ছেলে আবুল কাশেম সম্রাট, মৃত আনোয়ারের ছেলে শরিফ, আবুল হোসেনের ছেলে শাহ পরান, মৃত আব্দুল খালেকের ছেলে কালাচান, আব্দুল জলিলের ছেলে রানা, মৃত কাদিরের ছেলে হাবিব, দৌলত হোসেনের ছেলে ফয়সাল, পুরান সৈয়দপুর এলাকার মৃত কাদিরের ছেলে রবিন ও রুবেল, আব্দুল জলিলের ছেলে সোহেল, আব্দুল কাদিরের ছেলে আনসার, পূর্ব সৈয়দপুর এলাকার মত রফিকুল ইসলাম িেফকরর ছেলে নাজির হোসেন ফকির সহ অজ্ঞাত নামা ২০/২৫ চরসৈয়দপুর কবরস্থান রোডের তোফাজ্জলের বাড়ির পাশে নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুর করে। বিবাদীরা আমার নৌকা প্রতীক ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছবি সম্বলিত পোস্টার ছিড়ে ফেলে আগুন ধরিয়ে দেয়। গত ২৮ অক্টোবর দুপুর ১২টার দিকে আবুল কাশেম সম্রাটের নেতৃত্বে বিবাদীরা চরসৈয়দপুরের নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুর করে বন্ধ করে দেয়। জসিমউদ্দিন আহম্মেদ বলেন, উল্লেখিত বিবাদীরা মটর সাইকেল প্রতিকের প্রার্থী ফজর আলীর লোকজন। তবে, এ ব্যাপারে জানতে মোটর সাইকেল প্রার্থী ফজর আলীর মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি তা রিসিভ করেননি। ফলে এ প্রসঙ্গে তার পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য গ্রহণ করা সম্ভব হয়নি। এদিকে দুটি ইউনিয়ন পরিষদের ওসমান ভ্রতৃদ্বয়ের প্রভাবে পৃথকভাবে নৌকার প্রার্থীর ওপর যেভাবে চাপ সৃষ্টি, চোখ রাঙানো হচ্ছে, এতে করে সুষ্ঠু নির্বাচন নিয়ে অনেকেই শঙ্কায় রয়েছেন। তারা বলছেন, এখানে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কিনা, ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার পছন্দের প্রার্থীর পক্ষে প্রয়োগ করতে পারবেন কিনা, সে বিষয়টি তাদেরকে খুব করে ভাবাচ্ছে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *