Home » প্রথম পাতা » ওসমান পরিবারের সাথে কোন দ্বন্দ্ব নেই: আইভী

প্রার্থীদের প্রচারণায় সরগম আদালতপাড়া

১৩ জানুয়ারি, ২০২২ | ৫:২৯ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 58 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

নারায়ণগঞ্জ জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যকরী পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামী ১৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনে আইনজীবী সমিতির দুইবারের নির্বাচিত সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েল ও আইনজীবী সমিতির বর্তমান যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রবিউল আমিন রনির নেতৃত্বে একটি শক্তিশালী প্যানেল নির্বাচনে গঠন করেছে আওয়ামীলীগ। এছাড়া আওয়ামী লীগের পাশাপাশি নারায়ণগঞ্জ আদালতপাড়ায় বিএনপি প্যানেলের প্রার্থীদের নিয়ে নিয়মিত নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি। বিএনপি’র আইনজীবীরা নির্বাচনী প্রচারণায় বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে ভোটের লড়াইয়ে লড়াই করার স্লোগান দিয়ে যাচ্ছেন। সাধারণ আইনজীবীরা জানিয়েছেন, বিগত কয়েক বছর ধরে আওয়ামী লীগ প্যানেল থেকে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আইনজীবী সমিতির নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। এই কয়েকটি আমলে আইনজীবী সমিতির কর্মকা-ে ব্যাপক উন্নয়নমূলক কর্মকা-ের ছোঁয়া দিয়েছে আওয়ামী লীগ। যেখানে আইনজীবীদের পেশা পরিচালনার জন্য আট তলাবিশিষ্ট ডিজিটাল ভবন নির্মাণ চলমান। একই সঙ্গে রয়েছে আইনজীবী সমিতির সকল কার্যক্রমে ডিজিটালাইজেশনের ছোঁয়া। আইনজীবীদের দাবি- সভাপতি প্রার্থী অ্যাডভোকেট হাসান ফেরদৌস জুয়েলের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আইনজীবীদের ও আইনজীবী পরিবারের কল্যাণে বেনাভোলেন্ড ফান্ড গঠন সারাদেশের আইনজীবী সমাজে একটি বিরল দৃষ্টান্ত। আইনজীবীরা মনে করছেন- হাসান ফেরদৌস জুয়েল যতবার সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে আইনজীবী সমিতির নেতৃত্ব ছিলেন ততবারই নতুন নতুন স্বচ্ছ ও কার্যকরী উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড হয়েছে। এসব কারণে আইনজীবী সমিতির রাজনীতিতে হাসান ফেরদৌস জুয়েল অপ্রতিরোধ্য একজন সভাপতি প্রার্থী। এদিকে একই সঙ্গে হাসান ফেরদৌস জুয়েলের যোগ্য উত্তরসূরী ও অযোগ্য পার্টনার হিসেবে আইনজীবীরা মনে করছেন রবিউল আমিন রনিকেই। আইনজীবীদের দাবি- জুয়েলের পাশাপাশি রনি নির্বাচিত করা হলে আইনজীবী সমিতির উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড আরো ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। রবিউল আমিন রনি আদালতপাড়ায় স্বচ্ছ ও ক্লিন ইমেজধারী আইনজীবী হিসেবে মনে করা হয়। যে কারণে আওয়ামী লীগ দাবি করেন জুয়েল ও রনির নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের পূর্ণ প্যানেল বিজয় হলে আরো বেশি উন্নয়নমূলক কর্মকান্ড বেগবান হবে। আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ হয়ে জুয়েল ও রনি প্যানেলকে জয়ী করতে কাজ করছেন। নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্যানেল থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে প্রার্থী রয়েছেন অ্যাডভোকেট আলাউদ্দিন আহমেদ, সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট সুভাষ বিশ্বাস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট মাহমুদুল হক মমিন। পরিষদের কোষাধ্যক্ষ পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট আবুল বাশার রুবেল, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট স্বপন ভূঁইয়া, ক্রীড়া সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট সোহেল আজাদ, লাইব্রেরী সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট হাছিব উল হাসান রনি, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট রাজিয়া আমিন কানচি, সমাজসেবা সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট রাশেদ ভূঁইয়া, আইন ও মানবাধিকার সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট আব্দুল মান্নান। কার্যকরী সদস্য পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট এরশাদুজ্জামান ইমন, অ্যাডভোকেট হালিমা আক্তার, অ্যাডভোকেট হোসেন আহমেদ, অ্যাডভোকেট মেরাজ সরকার ও অ্যাডভোকেট অঞ্জন দাস। অপদিকে বিএনপির আইনজীবীরা জানিয়েছেন, এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ভোটের মাধ্যমে লড়াই করতে চায় বিএনপি। সেই লক্ষ্যেই তারাও নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। আওয়ামী লীগের পাশাপাশি বিএনপি প্যানেলের আইনজীবীরাও সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আদালতপাড়ায় আইনজীবীদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থনা করছেন। একইসঙ্গে প্রতিদিন দুপুরবেলা আদালতপাড়ায় বিএনপিপন্থী আইনজীবীদের নিয়ে আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। বিএনপি’র আইনজীবীরা বলছেন- তারা এই নির্বাচনে লড়াই করবেন। ভোটের লড়াইয়ে তারা তাদের প্যানেলের বিজয় দেখছেন বলেও তারা দাবি করেন। গতকাল বুধবার দুপুরে আদালতপাড়ায় বিএনপির আইনজীবীরা প্রচারণা চালান। এই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ এবং বিএনপি থেকে দুইটি প্যানেল মনোনয়নপত্র দাখিল করেছে। যেখানে বিএনপি সমর্থিত জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য পরিষদের সভাপতি পদে অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম চৌধুরী রতন ও সাধারণ সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট এইচএম আনোয়ার প্রধানের নেতৃত্বে প্যানেল গঠন করেছে বিএনপি। এছাড়াও আওয়ামী লীগের প্যানেল থেকে সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট মানিক মিয়া, সহ-সভাপতি পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট হামিদা খাতুন লিজা, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট কাওসার আলম চৌধুরী টুটুল। পরিষদের কোষাধ্যক্ষ পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট গোলজার হোসেন, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট শাহআলম শামীম, ক্রীড়া সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট ইকবাল আহমেদ মানিক, লাইব্রেরী সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট জিয়াউল আহমেদ ভূঁইয়া, সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট সারোয়ার জাহান, সমাজসেবা সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মাহমুদা আক্তার, আইন ও মানবাধিকার সম্পাদক পদে অ্যাডভোকেট মামুন মাহমুদ মিয়া। কার্যকরী সদস্য পদে রয়েছেন অ্যাডভোকেট ফাইজুর রহমান বাবলু, অ্যাডভোকেট নয়ন ঢালী, অ্যাডভোকেট ফাতেমা আক্তার, অ্যাডভোকেট নুরুল আলম কাদির সোহাগ ও অ্যাডভোকেট ফারুক মিয়া।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *