আজ: শুক্রবার | ২৯শে মে, ২০২০ ইং | ১৫ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ | ৬ই শাওয়াল, ১৪৪১ হিজরী | সকাল ৭:৫৩
শিরোনাম: স্বাস্থ্যবিধি মেনে ৩১মে থেকে ব্যাংকে স্বাভাবিক লেনদেন চলবে     না’গঞ্জে ৩১মে থেকে বিপনীবিতানসহ সকল দোকানপাট স্বাস্থ্যবিধি মেনে খুলছে     আড়াইহাজারে ঝোপে যুবতির লাশ উদ্ধার     দেশে একদিনে করোনা শনাক্ত ছাড়ালো ২ হাজার২৯, মৃত্যু ১৫     গত ২৪ ঘন্টায় না’গঞ্জে করোনা আক্রান্ত ৬৫জন, মোট আক্রান্ত ২৪৯০     কাশিপুরে চিকিৎসার নামে মানসিক প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ,ধর্ষক আটক     বিশেষ ব্যবস্থায় সীমিত আকারে পাসপোর্ট বিতরণ শুরু করেছে মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাস     যুক্তরাষ্ট্রে ৪৪ বছরের যুদ্ধের প্রাণহানীর রেকর্ড ভাঙ্গলো     কথা রাখল না নেপাল,খুলে দেওয়া হলো এভারেস্টের দরজা     আইসিসি ও বিসিসিআইয়ের মধ্যে বিভেদ,কর না দিতে পারলে ভারত থেকে বিশ্বকাপ সরে যাবে    

সংবাদের পাতায় স্বাগতম

ফতুল্লায় সন্ত্রাসী বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষে ভিপি রাজীব নিহত

ডান্ডিবার্তা | ২১ এপ্রিল, ২০২০ | ২:১৭

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট: প্রতিপক্ষের সাথে সংঘর্ষের ঘটনায় রক্তাক্ত জখম ফতুল্লার পাগলা বাজার এলাকার রাজীব ওরফে ভিপি রাজীব হাসপাতালে মারা গেছে৷ এ ঘটনায় রাজীবের বাবা বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন৷ ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহাদাত হোসেন জানান, সোমবার (২০ এপ্রিল) দুপুরে সন্ত্রাসী ভিপি রাজীব ও প্রতিপক্ষ মিঠুন বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়৷ এতে গুরুতর জখম হয়ে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি হয় সে৷ রাত সাড়ে ১১টার দিকে মারা যায় ভিপি রাজীব৷ পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, রাজীব ফতুল্লার পাগলা বউবাজার এলাকার হাসু তালুকদারের ছেলে। সে কুতুবপুরের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মীর হোসেন মীরু বাহিনীর সদস্য৷ ২০১৬ সালে মারধরের একটি ঘটনায় দায়ের করা মামলা নিয়ে রাজীব ও জেলেপাড়া এলাকার মিঠুন বাহিনীর সাথে দ্বন্দ্ব চলছিল৷ মিঠুন বাহিনীর কাউসারকে মারধরের ঘটনায় দায়ের করা মামলাটিতে আসামি করা হয় রাজীবকে৷ মামলাটি তুলে নেওয়ার জন্য মিঠুন ও কাউসারকে চাপ দিচ্ছিল রাজীব৷ এ নিয়েই সোমবার দুপুরে তাদের দুই বাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হয়৷ এতে রক্তাক্ত জখম হয়ে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি হয় ভিপি রাজীব৷ পরে রাত ১১টার দিকে মারা যায় সে৷ স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে ফতুল্লা থানার পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন বলেন, ‘দুপুরে ভিপি রাজীব তার বাহিনী নিয়ে জেলেপাড়া এলাকায় ঢুকে মামলা তুলে নিতে কাউসার হুমকি-ধমকি দেয়৷ এ সময় কাউসার ও মিঠু বাহিনী তাদের ধাওয়া করে৷ পরে আবারও লোকজন নিয়ে ওই এলাকায় যায় রাজীব৷ এ সময় এলাকায় বাড়িঘর-দোকানপাট ভাঙচুর করে তারা৷ পরে প্রতিপক্ষের লোকজনও ভিপি রাজীব ও তার লোকজনকে মারধর করে৷ গুরুতর আহত ভিপি রাজীব হাসপাতালে মারা যায়৷’ পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন আরও বলেন, এ ঘটনায় রাজীবের বাবা হাসু তালুকদার বাদী হয়ে ১১ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতসহ ২৬ জনের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন৷ অভিযোগের প্রেক্ষিতে মামলা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে৷ তবে এখন পর্যন্ত কাউকে আটক কিংবা গ্রেফতার করা যায়নি বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *