Home » শেষের পাতা » মেয়াদি সুদের ফাঁদে জিম্মি হত-দরিদ্র জনগোষ্ঠী

ফতুল্লায় আবারো কিশোর গ্যাং

০৩ জানুয়ারি, ২০২২ | ৯:০৪ পূর্বাহ্ণ | ডান্ডিবার্তা | 59 Views

ডান্ডিবার্তা রিপোর্ট

ফতুল্লায় প্রভাব বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘষে ৩ পুলিশসহ ৪জন আহতের ঘটনায় মামলা হয়েছে। শুক্রবার রাতে ফতুল্লার মাসদাইর বাজারে এঘটনায় গত শনিবার রাতে ফতুল্লা মডেল থানায় এসআই শাহাদাত হোসেন বাদী হয়ে দুইজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে ৩৫ জনের নাম উল্লেখ করে দেড়শ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলায় গ্রেফতারকৃতরা হলো-মাহাবুব ওরফে লাভু (৩৫) ও হাসিবুর রহমান সাব্বির(৩৪)। পলাতকরা হলেন-নাসির কসাইয়ের দুই ছেলে সেলিম কসাই তার ছোট ভাই রাসেল, রসা কসাইয়ের ছেলে শাওন, আছাস কসাইয়ের ছেলে আল আমিন, নুরু মিয়ার ছেলে রাকিব, কামালের ছেলে রাজিব, জুলহাসের ছেলে সানি, চুন্নুর ছেলে সাগর, মৃত.মানিকের ছেলে বাবু, মোহাম্মদ আলীর ছেলে জাহিদ, লেবু মিয়ার ছেলে ফেরদৌস, মতি মিয়ার ছেলে ফয়সাল, আয়ুব আলীর ছেলে বাবু, পুকু মিয়ার ছেলে শাকিল, দাপা ইদ্রাকপুরের মেহেদী হাসান দোলন, রানা, কৃসনা, হৃদয়, জুয়েল আরমান, রাজু, রুবেল, ইট্রু রিপন, শাহিন, ফরহাদ, নাসির কসাই, পারভেজ, পোড়া কাকন, শাহীন, ডিবজল, মামুন, পাভেল, ডিব্বা হালিম, সঞ্জয় সহ ১৫০জন। মামলায় উল্লেখ করা হয়, গত শনিবার রাত সোয়া ১টায় জরুরী সেবা ৯৯৯ নম্বরের ফোনে জানানো হয় ফতুল্লার মাসদাইর বাজার এলাকায় সন্ত্রাসী কাকন,সেলিম কসাই ও শাওন কসাই গ্রুপ থার্টি ফাষ্ট নাইট পালন করতে পাল্টাপাল্টি অবস্থান নেয়। খবর পেয়ে পুলিশ মাসদাইর বাজারে এসে উভয় গ্রুপকে শান্ত করেন। পরে রাত সোয়া ২টায় আবার কাকন,সেলিম কসাই ও শাওন কসাই গ্রুপ জনবল বাড়িয়ে দেশীয় অস্ত্রসস্ত্র হাতে ইটপাটকেলসহ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে উভয় গ্রুপ মাসদাইর বাজারে পথচারীদের যানবাহন ভাংচুর করে। এসময় এসআই শাহাদাত হোসেন ও তার সঙ্গীয় কনেষ্টেবল জুয়েল,সজিব ও তাদের বহনকৃত সিএনজি চালক রিয়াজ হোসেন ইট পাটকেলের আঘাতে আহত হয় এবং তাদের সিএনজির সামনের গ্লাস ভাংচুর করা হয়। এসময় পুলিশ চার রাউন্ড গুলি ছুড়ে আত্মরক্ষা করেন। তখন অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করেন। ফতুল্লা মডেল থানার ওসি রকিবুজ্জামান জানান,মামলা হয়েছে। পলাতক আসামীদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে।

Comment Heare

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *